ফয়সালের অপেক্ষায় পরিবার

এক্সক্লুসিভ

মরিয়ম চম্পা | ১৪ মার্চ ২০১৮, বুধবার | সর্বশেষ আপডেট: ১:১৩
নেপালে বিমান ট্র্যাজেডির সঙ্গে মিশে গেছে সাংবাদিক ফয়সাল সরদারের নাম। ওই দিন সকাল সাড়ে ছয়টায় তার বড় বোন শিউলিকে বলেন, আপা আমি তিনদিনের জন্য ঢাকার বাইরে যাচ্ছি। এটাই ছিল পরিবারের সঙ্গে তার শেষ কথা। নেপালে ইউএস-বাংলার বিমান বিধ্বস্ত হওয়ার পর পরিবার জানতে পারে ফয়সাল ওই বিমানে ছিল। তার কোনো খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না। ফয়সাল বৈশাখী টেলিভিশনের রিপোর্টার ছিলেন। এ ব্যাপারে বৈশাখী টেলিভিশনের সিএনই সাইফুল ইসলাম বলেন, ‘ফয়সাল সরদারের আহত হওয়ার সংবাদ আমরা পেয়েছি। কিন্তু হাসপাতালে ভর্তি হওয়া আহতদের তালিকায় তার নাম নেই।
এখন তার ভাগ্যে কি ঘটেছে আমরা নিশ্চিত নই। ফয়সালের গ্রামের বাড়ি শরীয়তপুর জেলার ডামুড্যা উপজেলায়। ফয়সালের পরিবারে তার তিন ভাই, তিন বোন ও মা-বাবা রয়েছেন। ফয়সালের মামা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি বাহাদুর ব্যাপারী। তার আরেক মামা রাজিব মাঝি বলেন, ব্যক্তিগত ট্যুরেই নেপাল গিয়েছিলেন ফয়সাল। যদিও আমাদের নিশ্চিত করে বলে যায় নি। নেপাল যাওয়ার আগে সকাল সাড়ে ৬টায় তার বড় বোন শিউলিকে বলে গেছেন ‘আপা আমি তিন দিনের জন্য ঢাকার বাইরে যাচ্ছি’ এটাই ছিল তার সর্বশেষ কথা। শান্ত স্বভাবের ফয়সাল সবসময় চুপচাপ থাকতেই পছন্দ করতো। ব্যক্তিগতভাবে খুবই হাস্যোজ্জ্বল ছেলে ফয়সাল। রাজিব বলেন, সবার প্রয়োজনে যেমন নিজে এগিয়ে যেতো তার প্রয়োজনেও সবাইকে পাশে পেতো।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

সিলেট থেকে ধানের শীষের প্রচারণা শুরু

হামলা, সংঘর্ষ-বাধা

‘চোখ রাঙালে চোখ তুলে নেয়া হবে’

নির্বাচন কমিশন বিব্রত

আলোকচিত্রী থেকে কয়েদি

ডিসিদের রিটার্নিং কর্মকর্তা নিয়োগ কেন অবৈধ নয়

ইআইইউ’র রিপোর্টে আওয়ামী লীগের ক্ষমতায় থাকার পূর্বাভাস

সবার চোখ তৃতীয় বেঞ্চে

আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সঙ্গে ইসির বৈঠক আজ

অভিযোগ দিয়ে ফেরার পথে বিএনপি নেতা আটক

দুলু গ্রেপ্তার

পাবনায় স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা খুন

এখন আর ভাষণে লাভ নেই, অ্যাকশনে যেতে হবে

ছাদ থেকে ফেলে বিএনপি নেতাকে হত্যা করেছে পুলিশ: রিজভী

ইসির সিদ্ধান্ত স্থগিত নির্বাচন পর্যবেক্ষণে থাকবে অধিকার

জীবনে এমন নির্বাচন দেখিনি