বরিশালে পুলিশ কমিশনারের মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে পেটালেন আওয়ামী লীগ নেতা

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার, বরিশাল থেকে | ১৬ জুলাই ২০১৮, সোমবার, ৭:৩৪ | সর্বশেষ আপডেট: ৯:১২
প্রতীকী ছবি
বরিশালে দলীয় প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণায় এসে ঘটনাচক্রে পুলিশ কমিশনারের ওপর চড়াও হলেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ নেতা শাহে আলম মুরাদ। একটি যাত্রীবাহী লঞ্চের কেবিনে এই নেতা প্রকাশ্যে অস্ত্র উঁচিয়ে সিনিয়র সহকারী কমিশনার মর্যাদার এক কর্মকর্তাসহ তিন পুলিশ সদস্যকে পেটালেন। এ সময় পুলিশ কমিশনার (ভারপ্রাপ্ত) মাহফুজুর রহমানকেও শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করা হয়। শনিবার সন্ধ্যারাতে বরিশাল লঞ্চ টার্মিনালের এই ঘটনায় বরিশাল পুলিশ প্রশাসনে তোলপাড় চলছে। ঘটনার প্রায় ২৪ ঘণ্টা পরে বরিশাল কোতোয়ালি মডেল থানা পুলিশের এসআই নিজাম মাহমুদ ফকির বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলায় ১ জনের নাম উল্লেখ করে ২০ থেকে ২৫ জনকে অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ সুন্দরবন-১১ লঞ্চের ভিআইপি কেবিনের সামনে অন্তত অর্ধশত নেতাকর্মী নিয়ে অবস্থান করছিলেন। প্রায় একই সময় ঢাকায় যাওয়ার উদ্দেশে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সচিব ফয়েজ আহম্মেদ ও প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব সাজ্জাদুল হাসান লঞ্চঘাটে যান। সরকারি এই কর্মকর্তাকে প্রটোকল দিতে সেখানে গিয়েছিলেন ডিআইজি মো. শফিকুল ইসলাম ও পুলিশ কমিশনার (ভারপ্রাপ্ত) মাহফুজুর রহমান। কিন্তু ঘটনাচক্রে সচিবকে পেছনে ফেলে পুলিশের এই দুই কর্মকর্তা চলে যান লঞ্চের ভিআইপি কেবিনের লাউঞ্জে। সেখানে গিয়ে দেখতে পান অর্ধশতাধিক লোকের মধ্যে বসেছিলেন আওয়ামী লীগ নেতা শাহ আলম মুরাদ। এই নেতার সঙ্গে থাকা অপরাপর বেশ কয়েক ব্যক্তি পিস্তল হাতে নিয়ে নানা অঙ্গভঙ্গি করছিলেন। সেই দৃশ্য দেখে কমিশনারের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার জাহিদুল ইসলাম ছুটে গিয়ে অস্ত্র প্রদর্শনের বিষয়টি জানতে চান এবং পিস্তলের বৈধতা যাচাইয়ের জন্য কাগজপত্র দেখতে চান। কিন্তু আওয়ামী লীগ নেতা শাহে আলম মুরাদ ও তার সঙ্গে থাকা লোকজন পুলিশের সঙ্গে বাক-বিতণ্ডায় জড়ান।
এমন পরিস্থিতিতে পুলিশ কমিশনারের দেহরক্ষী ছুটে গিয়ে তাদের দ্রুত স্থান ত্যাগের অনুরোধ করেন। এই সময়ে তুমুল বাকবিত-ার একপর্যায়ে শাহে আলম মুরাদের সঙ্গে থাকা সৈকত ইমরানসহ ২০ থেকে ২৫ জন একত্রিত হয়ে সহকারী জাহিদুল ইসলাম ও দেহরক্ষী হাসিবকে এলোপাতাড়ি পিটুনি দেয়।  উদ্ভূত পরিস্থিতিতে পুলিশ কমিশনার চেয়েছিলেন সকলকে বের করে দিয়ে পরিবেশ নিয়ন্ত্রণে নেয়ার। কিন্তু ক্ষুব্ধ শাহে আলম ও তার লোকজন পুলিশ কমিশনারকে চারদিক থেকে ঘিরে ফেলে। একপর্যায়ে শাহে আলম কমিশনারের মাথায় পিস্তল ধরেন।
এমনকি কমিশনারকে এই সময়ে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেন তার সঙ্গে থাকা ইমরান সৈকতসহ বেশ কয়েকজন। এই চিত্র ক্যামেরায় ধারণ করতে গেলে কমিশনারের সঙ্গী ওবায়েদকেও মারধর করা হয়। একপর্যায়ে তার সঙ্গে থাকা ক্যামেরাটি ছিনিয়ে নিয়ে যায় শাহে আলমের লোকজন। পরিস্থিতি বেগতিক দেখে পুলিশ কমিশনার দ্রুত ফোন করে ঘটনাস্থলে আরো পুলিশ ডেকে নেন। কিন্তু বরিশাল পুলিশ চাইছিল না সরকারের দুইজন সচিবের উপস্থিতিতে এই ধরনের বিষয় প্রকাশ্যে আসুক।
যে কারণে ঘটনার পর জড়িতদের গ্রেপ্তারের প্রস্তুতি নিতে লঞ্চটি থামিয়ে রাখা হলেও পরবর্তীতে ছেড়ে দেয়া হয়। তবে একটি সূত্র দাবি করছেÑ এই ঘটনার পর বিষয়টি তাৎক্ষণিক শাহে আলম মুরাদ কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী এক নেতাকে মুঠোফোনে অবহিত করেন। এর পরেই কমিশনারের মোবাইল ফোনে কোন ব্যক্তিবিশেষ ফোন করে কথা বলেন। মূলত মুঠোফোনে আলাপচারিতার পরই বরিশাল পুলিশ গ্রেপ্তারের মতো কোনো ঘটনার দিকে না গিয়ে লঞ্চটি ছেড়ে দেয়। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে গোটা লঞ্চের যাত্রীদের মাঝে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। অনেকেই এই লঞ্চে ঢাকায় যাত্রা নিরাপদ নয় মনে করে টার্মিনালেই নেমে যান। এ ঘটনায় তোলপাড় শুরু হয় পুলিশ প্রশাসনে। ঘটনার প্রায় ২৪ ঘণ্টা পর বরিশাল কোতোয়ালি মডেল থানায় সরকারি কাজে বাধা, হত্যার উদ্দেশ্যে পুলিশ সদস্যদের মারপিট ও গুরুতর আহত করার দায়ে এসআই নিজাম মাহমুদ ফকির বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন। যার নম্বর ৩৩/১৮। মামলাটির তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয় কোতোয়ালি মডেল থানার এসআই মহিউদ্দিন মাহিকে।
ঘটনার বিষয়ে শাহে আলম মুরাদ মানবজমিনকে বলেন, ঘটনায় আমি জড়িত নই। দলীয় নেতা-কর্মীদের সঙ্গে সাদা পোশাকের পুলিশের বাক-বিতণ্ডা হয়েছিল। যা পরে মিটমাট হয়ে গেছে।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Amin

২০১৮-০৭-১৮ ০২:৫৩:৪১

পুলিশের সাথে খারাপ আচারন কোন বুদ্বিমান রাজনীতিবিদ করবে না।

Ahmed emdad

২০১৮-০৭-১৭ ১৬:৪৯:৩১

Joy bangla

chonchol

২০১৮-০৭-১৭ ২২:০৪:৫৪

Police leauge r aamileauge ei r ki? jonogon dekhen hasina desh ta k kothay nia gasa?

Ripon

২০১৮-০৭-১৭ ০৯:০০:১৭

পুলিশকে তার নেয্য পাওনা বুজিয়ে দেওয়া হয়েছে!! ধন্যবাদ বাংলাদেশ আওয়ামীলিগ কে

zaki Rokey

২০১৮-০৭-১৭ ০৭:১৬:০৮

বাহ পুলিশ, সবে শুরু, মাইর আরো খাইবেন।

Romel

২০১৮-০৭-১৭ ০৭:১১:৫০

This is really tragedic!! But we r not shown our sorrow !!! Due to , police activity was not unquestionably!!! They always did rude behave with civilians !! So they might need more gift like this .

Anwar

২০১৮-০৭-১৭ ১৮:২২:৩০

very sad..

অভি

২০১৮-০৭-১৭ ০২:৩৪:৩২

আমি হলে সাথে সাথে আইনের আওতায় এনে রিমান্ডে দিতাম, সাহস কি করে হয় ও সরকারী পোষাকের গায়ে হাত তুলি।

Rubel

২০১৮-০৭-১৬ ২২:১২:৫৫

আজ এটা অন্য কেও করলে এত খানে কয়েকশ লোক গ্রেফতার হতেন, পুলিশের মান মর্যাদা পুলিশ রাজনিতির মাঝে বিলিয়ে দিয়েছে, কাল যে আইজিপি কে মারধর করা হবে না তার গ্যারান্টি কেও দিতে পারবে না, উনাকেও নিরবে জল ফেলতে হবে

মুহাম্মদ রহিম উদ্দিন

২০১৮-০৭-১৬ ২২:০৪:৪৪

নিজেরা নিশ্চয়ই অন্যায়ের সাথে জড়িত, না হয় পুুলিশের সাথে এতোবড় গর্হিত কাজ করার সাহস পায় কেমনে বা পুলিশ কর্মকর্তা সহ্য করে কেমনে?

শরিফ

২০১৮-০৭-১৬ ২০:৪০:৫৮

মাহফুজ স্যার একজন ভাল মানুষ, তার চাকরির সুবাদে মানিকগঞ্জের সবাই জানে।

Nam prokashe onicchu

২০১৮-০৭-১৬ ২০:১২:০৯

Pilice bahinir suicide kora uchit.

মাসুদ রানা

২০১৮-০৭-১৬ ২০:০৭:০৫

পুলিশ কখনো জনগণের বন্ধু হতে পারে না!!

Mkdoyal

২০১৮-০৭-১৬ ১৯:০১:৫৩

এইখানে একটা পারফেক্ট ক্রসফায়ারের নাটক করা যেত। কিন্তু পুলিশ যে উপরের নির্দেশ ছাড়া নিঃশ্বাস ও নিতে পারে না!

মোঃ আশরাফুল আলম

২০১৮-০৭-১৬ ১৮:৫১:৫৬

সব কিছুর আগে দরকার সুশিক্ষা। আইনের ক্ষেত্রে সকলের সমঅধিকার ও ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা।

Gazi

২০১৮-০৭-১৬ ১৮:১১:৪৭

এখনতো দেখছি পুলিশের চাকুরি না করে রাজনিতী করাই ভাল ছিল!

Motin

২০১৮-০৭-১৬ ১৫:০৪:২১

মনিবরা তো কিছু করার অধিকার রাখেন । এই আর কি ?

Sujan Fahad

২০১৮-০৭-১৬ ১৪:৩৬:০২

পুলিশের বেতন আসে জনগণের টাকা থেকে আর কুকুরগুলো সর্বদাই সরকারি দলের হয়ে কাজ করে জনগণের নয় কাজেই নেড়ি কুকুরগুলোর এটা উপযুক্ত পাওনা!

nasir uddin ahmed

২০১৮-০৭-১৬ ১৩:৪৬:৪৫

পুলিশের অবশ্যই কার্যকর ব্যবস্থা নিতে হব। অন্যথায় ছাত্রনেতা বা কেডার রা কথায় কথায় পুলিশকে অপমান করবে। আইনের শাসন প্রতিষ্টায় দল মত নির্বিশেষ সকলকেই আইনের আওতায় আনতে হবে

gggg

২০১৮-০৭-১৬ ১২:১৭:৫২

পুলিশ বর্তমানে আওয়ামীগের নেতাদের থেকেও ক্ষমতা বেশী,

রিয়াজ

২০১৮-০৭-১৬ ১২:১৩:২৯

এক সময় ছিলো চোর ডাকাত গুন্ডা শায়েস্তা করতো পুলিশ আর এখন বাংলাদেশের পুলিশ চোর গুন্ডা এদেরকে শায়েস্তা করার জন্য এ রকমের লোকের দরকার আছে।

Amit

২০১৮-০৭-১৬ ১১:৫৭:৪৫

পুলিশ আসলে কি জনগনের বুন্ধু

Tipu

২০১৮-০৭-১৬ ১১:৫৩:১৭

আসলে বলার মত কিছুই খুজে পাচ্ছিনা, তবে এতটুকুই বুঝলাম যে, ক্ষমতাসীন দলের সাধারণ তৃণমূল একজন নেতার কাছে এদেশের পুলিশ কমিশনার পদমর্যাদার একজন কর্মকর্তার কোন দাম নেই তা আবার পুলিশ কমিশনার নিজেই অস্বিকার করে তাকে লাঞ্চত করেনি, করেছে সাদাপোশাকধারী পুলিশকে তার মানে পুলিশকে যে কেউ এভাবে অপমান করতে পারে কোন সমস্যা নেই। এই পুলিশের সাধারন একজন কনষ্টেবল আবার সেনাবাহিনীর মত সংগঠনের একজন মেজর পদবীর অফিসারকে লাঞ্চিত করে ছি ছি ছি ধিক্কার জানাই তোমাদের মত কুলাংগার বাহিনীকে।

Kabir

২০১৮-০৭-১৬ ১১:২৮:২৬

সবকিছু কেমন জানি এলোমে, তাইনা??

ইমতিয়াজ

২০১৮-০৭-১৬ ১১:০৭:২৩

shame, shame.......

Citizen

২০১৮-০৭-১৬ ২৩:৫৬:১৮

well done. BD Govt officials are really servants to BAL, they deserve such humiliation.

আরিফ

২০১৮-০৭-১৬ ১০:৫৬:১৭

এত দিনে পুলিশের তোষামুদির ফলাফল পাওয়া শুরু হলো

Mostafeg

২০১৮-০৭-১৬ ১০:৪২:৫৮

মজাই মজা

মানিক রতন

২০১৮-০৭-১৬ ১০:৩৪:৪৮

কেউ আইনের উপরে নয়। এখানে আইনের সঠিকতর বিচার হওয়া উচিত

আবুল বাশার

২০১৮-০৭-১৬ ১০:০৮:৩৬

বিষয়টি জাতির জন্য দুঃখজনক। পূলিশের অতি দলবাজির কারনে তাদের প্রতি মানূষের সহানুভুতি পাওয়া কঠিন। পুলিশ এর পরও কি নিজের ইজ্জত বিকিয়ে দিবে সন্ত্রাসীদের কাছে?। আমি জানি না তারা আদৌ সংশোধন হবে কিনা। সকল পুলিশের উচিৎ নিজেদের হারানো গৌরব ফিরিয়ে আনা। আর এখনই সময় সেটা করার। না হয় ভবিষ্যতে করুন পরিনতি অপেক্ষা করছে।

অনামিকা

২০১৮-০৭-১৬ ১০:০২:৩১

জয় বা‌ঙলা।

Farid Ahmed

২০১৮-০৭-১৬ ০৯:৪২:৩৩

আশা করি পুলিশের উপলব্দি হবে।পুলিশের সহায়তায় আওয়ামীলিগ যদি পরর্বতী পাচ বৎসরের জন্য ক্ষমতায় আসে তা হলে পরিস্হীতি কেমন হবে।

Aakash

২০১৮-০৭-১৬ ০৯:৪২:২৯

Oh the event! This is the result of unethical practice done by Bangladesh Police since long. I am not astonished but cool. This police fail to become friend of common people but they are always acting in favour of politics or politician...none are safe...oh the police! Please do your duties as acts allowed everywhere..

Jashim

২০১৮-০৭-১৬ ০৯:৩৯:৩৯

আহ্ কি মজা! কে দেখ...বে.....ন সাপের খেলা?

dr harun ur rashid

২০১৮-০৭-১৬ ০৯:৩৭:২০

What our generation will learn from us.

অাবুসাঈদ

২০১৮-০৭-১৬ ০৯:২৭:১৭

ওদের কিছুই হবেনা কারণ এরা অাওয়ামী লীগের সোনার ছেলে। এরা যা ইচ্ছা তাই করবে কিন্তু এদের বিরুদ্ধে কিছু করতে গেলে ওল্টু বিপদের মুখে পড়তে হবে।

আরিফ

২০১৮-০৭-১৬ ০৯:২৬:৩১

আল্লার মাল আল্লায় বাচাইছে.. গুল্লি বাইর হয় নাই । দেশের আসল পরিস্থিতির প্রকাশ এটা

তুহিন

২০১৮-০৭-১৬ ০৯:২১:৩৮

ভালই করেছে এরা পুলিশ না পুলিশ নামের জানোয়ার ।

ইয়াসিন

২০১৮-০৭-১৬ ০৯:১৯:৩৪

আওয়ামীলীগের চামচামি করলে আরও অনেক কিছু দেখতে হবে...

অপু

২০১৮-০৭-১৬ ০৯:১৩:৩৯

পুলিশ কত অসহয়, মাথায় পিস্তল ঠেকালে কিছু করার নাই কারণ এরা সরকারি দলের কেডার,পুলিশ থেকে পাওয়ার বেশি,এবার বুঝেন আপনারা জখন সাদারন মানুষ কে পিস্তল ঠেকান হয়রানির করেন সাদারন মানুষ অসগায় কিছু করার থাকে না,

নাম দিয়া কাম কি

২০১৮-০৭-১৬ ০৯:১১:৪৭

যাদের পা চেটে চেটে পুলিশের কর্মকর্তাদের পেট ফুলল,তাদের হাতে একটু আধটু লাঞ্চিত হলেই বা কি.... পুলিশ তার যথাযথ ভূমিকা পালন না করার জন্যেই দেশ ও জাতির আজকের এই পরিস্থিতি । আমি কমিশনার হইলে মুরাদের 'বল' গুলার ভর পরিমাপ করেই লঞ্চ থেকে নামতাম

Nehal

২০১৮-০৭-১৬ ০৯:০৯:২০

Ki rokom officer tora. Shame on bd police

Dan

২০১৮-০৭-১৬ ০৯:০৭:৫৮

Joy Bangla

Zaman

২০১৮-০৭-১৬ ০৯:০৬:৫৩

Is this law in our country ? Assha gun gulo ki legal naki illegal celo ? Assha Jodi police officer na hoye a sahadaron manush hoto tahole ki hoto ?

rasel

২০১৮-০৭-১৬ ০৮:৪৭:৪০

উচিত কাজ হয়েছে। এভাবেই শিক্ষা দেয়া উচিত জনগনের শত্রু পুলিশকে...

Jamil Hossain

২০১৮-০৭-১৬ ০৮:৩৮:৪৮

Police এর মর্যাদাবোধ বলতে কিছু নাইতো , পা চাটা পুলিশ তো l পুলিশ পারলে প্রমান করুক যে আমার ধারণা ভুল l

Mahfuz

২০১৮-০৭-১৬ ০৮:৩৬:৫৩

সবে মাত্র শুরু, আগামি ১০ বছরের মধ্যে এ রকম ঘটনা প্রায় ডাল-ভাত হয়ে যাবে আশা করছি।

Sohag

২০১৮-০৭-১৬ ০৮:৩১:২১

Ami er tibro ninda janai

mahmud

২০১৮-০৭-১৬ ০৮:২৩:২৮

এটা খুব দু:খ জনক

mominul haque chowdh

২০১৮-০৭-১৬ ০৮:২২:২৫

কেউ আইনের ঊর্ধ্বে নয়, সুতরাং আইনের আওতায় এনে ওদের বিচার করা হোক। নয়তো সীমা লঙ্ঘনের অপরাধে মহান আল্লাহর পক্ষ থেকে যখন অনিবার্যভাবে পতন শুরু হয়ে যাবে তখন দায়ীত্বশীলেরা কেউ রেহাই পাবেনা।

Babul Ahmed

২০১৮-০৭-১৬ ০৭:৪৬:৪৬

Nothing to Say , It's Bangladesh ?

জহিরুল

২০১৮-০৭-১৬ ০৭:৪১:০৯

দেশের আইন সৃঙ্খলা পরিস্থিতি বড়ই দুঃখ জনক --- এটা কোন ভাবেই ভাল লক্ষন না

Masud rana

২০১৮-০৭-১৬ ০৬:৪৫:০৪

পুলিশের জন্য এর চেয়ে ভাল উপহার আর কি হতে পারে,কেননা এদেশের পুলিশ কখনোই নিরিহ মানুষের জন্য কিছুই করে না ...

আপনার মতামত দিন

১৫ই আগস্ট জাতির জন্য শুধু শোকের নয়, লজ্জারও

সিঙ্গাপুরের শীর্ষ ৫০ ধনীর একজন বাংলাদেশের আজিজ খান

হলের সামনে থেকে ঢাবি ছাত্রী আটক

বাস অযোগ্য শহরের তালিকায় ঢাকা দ্বিতীয়

মানহানির মামলায় খালেদার জামিন

গোলাম সারওয়ারের দাফন কাল

মৃত্যুর এই কাফেলা বন্ধ হবে কবে?

ঢাকায় ন্যায় বিচারের খোঁজে

রাখাইনে যা দেখে এলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

হুইলচেয়ারে চলাফেরা করছেন নওশাবা

সিলেটে রাজু খুনের ঘটনায় মামলা

নতুন কলরেট নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া

বিএনপি নির্বাচন বানচালের চেষ্টা করছে

বাংলাদেশের সব এজেন্সির জন্য মালয়েশিয়ার শ্রম বাজার উন্মুক্ত

গুজব সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে ছাত্রলীগকে সরব হওয়ার আহ্বান ড. হাছান মাহমুদের

‘এ দেশের মাটি স্বৈরাচারের নয়’