ট্রাম্প-পুতিন বৈঠক, নিজ দলেই সমালোচনা

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১৭ জুলাই ২০১৮, মঙ্গলবার | সর্বশেষ আপডেট: ৫:০৩
ফিনল্যান্ডের রাজধানী হেলসিংকিতে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প ও রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের মধ্যে অনুষ্ঠিত বৈঠককে ঐতিহাসিক হিসেবেই দেখছেন অনেকে। কিন্তু এই বৈঠক নিয়ে নিজ দেশ যুক্তরাষ্ট্রে বেশ সমালোচনার মুখে রয়েছেন ট্রাম্প। রাশিয়া নিয়ে তার মন্তব্যের কারণে তার নিজ দল রিপাবলিকান শীর্ষ কয়েকজন নেতা সমালোচনার তীর ছুড়েছেন। এর মধ্যে রয়েছেন প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার পল রায়ান ও রিপাবলিকান প্রভাবশালী সিনেটর জন ম্যাককেইন। রুদ্ধদ্বার প্রায় ২ ঘন্টার ওই বেঠক শেষে পুতিন বলেছেন, ২০১৬ সালে অনুষ্ঠিত যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনে তার দেশ হস্তক্ষেপ করে নি। পুতিনের পক্ষে অবস্থান নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে কথা বলেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা সংস্থাগুলো যে রিপোর্ট দিয়েছে ট্রাম্পের এ কথা তার সঙ্গে সাংঘর্ষিক। একাধিক গোয়েন্দা সংস্থা রিপোর্ট দিয়েছে যে, তারা প্রমাণ পেয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের ওই নির্বাচনে রাশিয়া হস্তক্ষেপ করেছিল।
কিন্তু পুতিনের সঙ্গে বৈঠক শেষে ট্রাম্প বললেন, রাশিয়ার হস্তক্ষেপ করার কোনো কারণই নেই। যুক্তরাষ্ট্র কংগ্রেসের প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার পল রায়ান বলেছেন, ট্রাম্পকে অবশ্যই দেখতে হবে যে, রাশিয়া আমাদের মিত্র নয়। অন্যদিকে সিনেটর জন ম্যাককেইন বলেছেন, ট্রাম্পের এই পারফরমেন্স হলো মর্যাদাহানিকর। সোমবার হেলসিংকিতে ওই বৈঠক শেষে যৌথ সংবাদ সম্মেলনে ট্রাম্পকে সাংবাদিকরা জিজ্ঞেস করেন, নির্বাচনে হস্তক্ষেপের বিষয়ে তিনি কি তার নিজ দেশের গোয়েন্দা সংস্থাগুলোকে বিশ্বাস করেন নাকি রাশিয়ার প্রেসিডেন্টকে? এর জবাব দেন ট্রাম্প। তিনি বলেন, প্রেসিডেন্ট পুতিন বলেছেন, রাশিয়া এ কাজ করে নি। তারা হস্তক্ষেপ করবে এর কোনো কারণ আমি দেখতে পাই না। এ সময় তিনি যুক্তরাষ্ট্রের অতীত প্রশাসনগুলোকে দায়ী করেন। তিনি মনে করেন রাশিয়ার সঙ্গে দুর্বল সম্পর্কের জন্য দায়ী তারা। উল্লেখ্য, ২০১৬ সালে যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপ নিয়ে তদন্ত রিপোর্ট দিয়েছেন সে দেশের গোয়েন্দা সংস্থাগুলো। তাতে বলা হয়েছে, নির্বাচনে হিলারি ক্লিনটনের বিরুদ্ধে বড় মাত্রায় হাত ছিল রাশিয়ার। তারা প্রচারণার সময় রাষ্ট্র মদতপুষ্ট প্রচারণায় আক্রমণ করেছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভুয়া খবর ছড়িয়ে দিয়েছে। পরে অবশ্য এক টুইটে ট্রাম্প বলেছেন, আমার গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর ওপর বড় আস্থা আছে। তবে পল রায়ান কঠোরভাবে রাশিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রকে সমান করে দেখার বিরোধী। তিনি বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়াকে সমতুল্য করে দেখার কোনো নৈতিক কারণ নেই। যুক্তরাষ্ট্রের মৌলিক মূল্যবোধ ও ধারণার সঙ্গে এখনও রাশিয়া শত্রুতাপূর্ণ অবস্থানে। তিনি জোর দিয়ে বলেন, ২০১৬ সালের নির্বাচনে মস্কো যে হস্তক্ষেপ করেছিল এ নিয়ে কোনো প্রশ্নই হতে পারে না। ট্রাম্পের ওই বক্তব্যের সমালোচনা করেছেন সিনেট আর্মড সার্ভিসেস কমিটির গুরুত্বপূর্ণ সদস্য সিনেট ম্যাককেইন। তিনি বলেছেন, একজন অত্যাচারীর সামনে এর আগে কোনো প্রেসিডেন্ট এভাবে নিজেকে নামিয়ে আনেন নি। সমালোচনা করেছেন রিপাবলিকান দলের আরেক সিনিয়র সিনেটর লিন্ডসে গ্রাহাম। তিনিও সিনেট আর্মড সার্ভিসেস কমিটির একজন সদস্য। তিনি টুইট করে বলেছেন, এবার একটি সুযোগ নষ্ট হলো। এই সুযোগে ২০১৬ সালে নির্বাচনে হস্তক্ষেপের জন্য রাশিয়াকে দায়ী করা যেত। টুইট করেছেন ডেমোক্রেট দলের সিনেট নেতা চাক শুমার। তিনি বলেছেন, ট্রাম্পের কর্মকান্ড আমাদের বিরোধকে আরো বাড়িয়েছে। প্রতিরক্ষাকে দুর্বল করেছে। উল্লেখ্য, ওই সংবাদ সম্মেলনে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের দিকে পুতিন একটি ফুটবল ছুড়ে দেন। তা ট্রাম্প ধরে দর্শক আসনে বসে থাকা ফার্স্টলেডি মেলানিয়া ট্রাম্পের দিকে ছুড়ে মারেন। পরে  মেলানিয়াকে ওই বলটি কোলের ওপর রেখে তার কথা শুনতে দেখা যায়।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

কাতার এয়ারওয়েজের জরুরি অবতরণ

ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশে বিপুল লোকসমাগমের প্রস্তুতি বিএনপির

চট্টগ্রাম ও সিলেটে বিএনপি নেতাকর্মীদের ধরপাকড়

মন্ত্রিসভা ছোট না করার ইঙ্গিত প্রধানমন্ত্রীর

অবাধ, বিশ্বাসযোগ্য ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের বার্তা দিয়েছি

রাষ্ট্রীয় পদ পাওয়ার ইচ্ছা নেই, অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনই লক্ষ্য

খাসোগি হত্যা মারাত্মক ভুল, সালমান জড়িত নয়

কী মর্মান্তিক!

গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের জন্য বিরোধী দলের অংশগ্রহণ প্রয়োজন

৪ জনের ফাঁসি ও ১ জনের যাবজ্জীবন

‘শহিদুল আলম যুক্তরাষ্ট্রেও সম্মানিত’

আদমজীতে পুলিশ-শ্রমিক সংঘর্ষ, আহত অর্ধশত

ব্যারিস্টার মইনুলের বিরুদ্ধে আরো মামলা, জামিন

প্রচারণায় আওয়ামী লীগ মাঠে নেই বিএনপি

যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশের নতুন হাইকমিশনার সাঈদা মুনা তাসনিম

আড়াইহাজারে গুলিবিদ্ধ ৪ লাশের পরিচয় মিলেছে