নাইক্ষ্যংছড়িতে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ একজন নিহত

অনলাইন

নাইক্ষ্যংছড়ি (বান্দরবান) প্রতিনিধি | ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, শনিবার, ১০:১৭ | সর্বশেষ আপডেট: ২:৪৭
বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়িতে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ একজন নিহত হয়েছেন। পুলিশের দাবি, নিহত ব্যক্তি ডাকাত ছিলেন। এ সময় তার কাছ থেকে ১টি এলজি, ১টি একনলা বন্দুক ও ৬টি গুলির খোসা উদ্ধার করা হয়েছে। বন্দুকযুদ্ধের সময় সুলতান ও জ্যোতি চাকমা নামে দুই পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। নাইক্ষ্যংছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আলমগীর শেখ এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
নিহত ব্যক্তির নাম আনোয়ার হোসেন প্রকাশ ওরফে বলি আনোয়ার (৪০)। তিনি কক্সবাজারের রামু উপজেলার ঈদগড়ের কোনাপাড়ার আবু ছৈয়দের ছেলে। শুক্রবার রাত ২টার সময় নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বাইশারীর ব্রিক ফিল্ড এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
পুলিশ জানায়, রাতে ব্রিক ফিল্ড এলাকায় কিছু ডাকাত ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছিলো। গোপন সংবাদ পেয়ে বাইশারী তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ একেএম হাবিবুল ইসলামের নেতৃত্বে একদল পুলিশ সেখানে গেলে ডাকাতরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে।
এসময় পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্রসহ আনোয়ারের লাশ উদ্ধার করে। নাইক্ষ্যংছড়ি থানার ওসি মো. আলমগীর শেখ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ ব্রিকফিল্ড এলাকায় গেলে ডাকাতরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। পরে পুলিশও পাল্টা গুলি ছুঁড়লে আনোয়ার নিহত হয়। তবে কতজন ডাকাত সেখানে ছিল অন্ধকার থাকায় তা বোঝা যায়নি বলেও জানান তিনি।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

টেলি সামাদ গুরুতর অসুস্থ, হাসপাতালে ভর্তি

সিলেট থেকে শুরু হবে ধানের শীষের প্রচারণা

নির্বাচনে আপনারা তো ইনশাআল্লাহ হেরে যাচ্ছেন

জেনুইন নির্বাচন চেয়ে কূটনীতিকদের বিবৃতি

কাদের-ফখরুল পাল্টাপাল্টি

কাল থেকে নির্বাচনী প্রচারে নামছেন হাসিনা

চূড়ান্ত লড়াইয়ে ১৮৪১ প্রার্থী, স্বতন্ত্র ৯৬

খালেদার রিটে আদেশ আজ

দশ দিনের জন্য সেনা মোতায়েনের পরিকল্পনা

টুকু ও দুলুর মনোনয়ন গ্রহণের নির্দেশ

চট্টগ্রাম-২ আসনে আপেল নিয়ে নৌকার বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগের পেয়ারুল

ঐক্যফ্রন্ট ক্ষমতায় গেলে ডিজিটাল আইন বাতিল করা হবে: ফখরুল

দেশ ক্রমশ রক্তপাতের দিকে যাচ্ছে

সিঙ্গাপুর নেয়া হয়েছে জাহাঙ্গীরের ছেলে ওয়াহিদ জামানকে

নৌকা মার্কায় ভোট চাই- সালমান এফ রহমান

আতঙ্ক নয়, আস্থার পরিবেশ চায় কমিশন