এরশাদের অনুপস্থিতিতে চেয়ারম্যান জিএম কাদের

শেষের পাতা

স্টাফ রিপোর্টার | ১৯ জানুয়ারি ২০১৯, শনিবার | সর্বশেষ আপডেট: ২:৫২
এরশাদের অবর্তমানে জাতীয় পার্টি (জাপা) চেয়ারম্যান হবেন তারই ছোটভাই পার্টির কো-চেয়ারম্যান জিএম কাদের। হঠাৎ করে গত ১লা জানুয়ারি নেতাকর্মীদের কাছে ‘জাতীয় পার্টির জন্য ভবিষ্যৎ নির্দেশনা’ নামে একটি চিঠি পাঠান জাপা চেয়ারম্যান ও একাদশ সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। সেখানে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, পার্টির জাতীয় কাউন্সিল আমার মতো তাকেও চেয়ারম্যান নির্বাচিত করে সার্বিক দায়িত্ব অর্পণ করবে। এরশাদের পার্টিতে তারই ভাইকে চেয়ারম্যান উইল করা নিয়ে তখন ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা দেখা দেয়। পার্টির সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান ও এরশাদের স্ত্রী রওশন এরশাদকে ডিঙ্গিয়ে তাকে দায়িত্ব উইল করা নিয়েও চলে কানঘুষা।

এ সময় রওশনপন্থি বলে পরিচিত নেতাকর্মীরা ভিন্ন ইঙ্গিত দিয়ে কথাও বলেন। এ ছাড়া দশম সংসদের বিরোধীদলীয় প্রধান রওশনকে এবার কোনো ভূমিকায় রাখেননি এরশাদ। এ নিয়েও অনেকে ভিন্ন ভিন্ন কথা বলেন।
নতুন সংসদ সদস্যদের শপথ অনুষ্ঠানে পরে রওশন এরশাদকে পার্টির কোথাও দেখা যায়নি। তিনি রয়েছেন অনেকটা অন্তরালে। তবে গতকাল জিএম কাদেরকে চেয়ারম্যানের নির্দেশনা দিয়ে এরশাদ প্রায় একই ধরনের একটি চিঠি দেন পার্টির নেতাকর্মীদের বরাবর। ‘সাংগঠনিক নির্দেশনা’ নামে চিঠিতে এরশাদ লিখেন, আমি জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান হিসেবে পার্টির সর্বস্তরের নেতা-কর্মী ও সমর্থকদের জ্ঞাতার্থে জানাচ্ছি যে, আমার অবর্তমানে বা চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিদেশ থাকাকালীন সময়ে পার্টির বর্তমান কো-চেয়ারম্যান জিএম কাদের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন। গঠনতন্ত্রের ২০/১/ক ধারা মোতাবেক নিয়োগ প্রদান করা হলো। যা অবিলম্বে কার্যকর হবে। পার্টির নেতাকর্মীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, জাপার সাংগঠনিক কার্যক্রম এখন এরশাদের একক নির্দেশনায় চলে।

তার অনুপস্থিতিতে যেন কোনরকম বিবেধ না দেখা দেয় সে কারণে এরশাদ আবারো একই ধরনের নির্দেশনা দিয়েছেন। তিনি খুব শিগগির দেশের বাহিরে চিকিৎসা নিতে যাবেন। এ ছাড়া এ সময় যদি একাদশ সংসদ অধিবেশন শুরু হয় তাহলে স্যারের অনুপস্থিতিতে জিএম কাদেরই চেয়ারম্যানের সিদ্ধান্ত নিবেন। এছাড়া প্রথমবারের নির্দেশনাটি ছিলো কেবল এরশাদ মরে যাওয়ার পরে পার্টির চেয়ারম্যান নিয়োগের। এটাকে তারা উত্তরসূরি নিয়োগই বলেন। তবে এবার এরশাদ তার যেকোনো অনুপস্থিতিকেই বুঝিয়েছেন বলে জানান পার্টির নেতাকর্মীরা। এ বিষয়ে পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও এরশাদের একান্ত সচিব মেজর (অব.) খালেদ আখতার বলেন, একই নির্দেশনা দুইবার দেয়া হয়নি। প্রথমবার যেটি দেয়া হয়েছিল সেটি একেবারেই অবর্তমানে। বলা যায় এরশাদের মৃত্যুর পরে চেয়ারম্যান নিয়োগের নির্দেশনা। আর এবারের নির্দেশনাটি তার জীবিত থাকা অবস্থায় যদি তিনি হাসপাতালে থাকেন অথবা বিদেশে যান তখনই জিএম কাদেরই জাপার চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করবেন। এ সময় তিনিই চেয়ারম্যান বলে বিবেচিত হবেন। তিনি এই নির্দেশনাকে দুটি সম্পূর্ণ ভিন্ন বলে জানান।

রোববার সিঙ্গাপুর যাবেন এরশাদ
উন্নত চিকিৎসার জন্য আগামীকাল রোববার সিঙ্গাপুর যাবেন এরশাদ। দুপুর ১২টা ৪০ মিনিটে তিনি সিঙ্গাপুরের উদ্দেশ্যে ঢাকা ছাড়বেন। এরশাদের একান্ত সচিব মেজর (অব.) খালেদ আখতার মানবজিমনকে বলেন, স্যার বর্তমানে সিএমএইচে চিকিৎসা নিচ্ছেন। আরো উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে সিঙ্গাপুরে নেয়া হচ্ছে। স্যার রোববার দুপুরেই ঢাকা ছাড়বেন। তিনি সুস্থ হলে চিকিৎসা শেষে ঢাকায় ফিরবেন। এর আগেও দুই দফায় এরশাদ চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুর যান। সর্বশেষ নির্বাচনের তফসিলের পরে ১০ই ডিসেম্বর সিঙ্গাপুর গিয়েছিলেন। অনেক নাটকীয়তা শেষে নির্বাচনের আগে ২৬শে ডিসেম্বর দেশে ফিরেন।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

লিবিয়ায় সরিয়ে নেয়া হলো ২৫০ বাংলাদেশিকে

ফেরদৌসের পর নূরকে ভারত ছাড়ার নির্দেশ

আগুনে পুড়লো মালিবাগের ২৬০ ব্যবসায়ীর সম্বল

ভারতে ভোটে হাঙ্গামা, ইভিএম বিভ্রাট

জরুরি সফরে ঢাকা আসছেন ভারতের বিদেশ সচিব

ফেঁসে যাচ্ছেন রাজউকের ২০ কর্মকর্তা-কর্মচারী

সড়ক দুর্ঘটনায় ১১ জনের মৃত্যু

প্রধানমন্ত্রীর ব্রুনাই সফরে ছয় চুক্তি হতে পারে

সুবীর নন্দীর শারীরিক অবস্থা অপরিবর্তিত

দেশে এখন অবলীলায় হত্যা ধর্ষণ হচ্ছে: ফখরুল

গণমাধ্যমের স্বাধীনতায় ৪ ধাপ পিছিয়ে ১৫০তম বাংলাদেশ

প্রেমের ফাঁদে ফেলে অপহরণ, ৬ দিন পর উদ্ধার

ম্যালেরিয়া ঝুঁকিতে ১ কোটি ৮০ লাখ মানুষ

‘আমার সবকিছু কেড়ে নেয়ার পর মেয়ের দিকে কু-দৃষ্টি পড়ে যুবলীগ নেতা উজ্জ্বলের’

ভূঞাপুর হাসপাতালে সেবা না পেয়ে রাস্তায় সন্তান প্রসব

পুলিশের ভূমিকার বিচারবিভাগীয় তদন্ত দাবি টিআইবি’র