পিরোজপুরে দলীয় কর্মীদের হামলায় আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ আহত ২০

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার, বরিশাল থেকে | ২৪ মার্চ ২০১৯, রোববার, ১০:২৬ | সর্বশেষ আপডেট: ৪:৪৮
পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলায় নিজ দলেরর কর্মীদের হামলায় আওয়ামী লীগের উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী হোসাইন মোশারেফ সাকুসহ অন্তত ২০ জন আহত হয়েছেন। শনিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলার গুলিসাখালী বাজারে এ ঘটনা ঘটে। গুরুতর আহত আওয়ামী লীগের এই নেতাসহ আরও ৫ জনকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।


উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও টিকিকাটা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম জমাদ্দার জানান, শনিবার রাতে উপজেলার গুলিসাখালী বাজারে আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী হোসাইন মোশারেফ সাকুর নির্বাচনী জনসভা শেষে ফেরার সময় স্বতন্ত্র প্রার্থী রিয়াজ উদ্দিন আহমেদের (আনারস  প্রতীক) সমর্থকেরা হামলা চালায়। এ সময় প্রতিপক্ষের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে গুলিসাখালী ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান রিয়াজুল আলমসহ অন্তত ২০ জন আহত হন। খবর পেয়ে আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান  প্রার্থী হোসাইন মোশারেফ সাকু ঘটনাস্থলে পৌঁছালে উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও সাবেক উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আশরাফুর রহমানের নেতৃত্বে হোসাইন মোশারেফের ওপর হামলা করা হয়। স্থানীয় লোকজন ও পুলিশ আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।


এ ঘটনার ব্যাপারে আশরাফুর রহমানের বক্তব্য জানার জন্য তার সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হয়। কিন্তু সাংবাদিক পরিচয় জানার পর তিনি ফোনের সংযোগ কেটে দেন।
আশরাফুর রহমানের বড় ভাই উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও স্বতন্ত্র প্রার্থী রিয়াজ উদ্দিন আহমেদ অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, শনিবার রাত ১০টার দিকে রিয়াজুল আলমের নেতৃত্বে গুলিসাখালী বাজারে অবস্থিত আমার (আনারস  প্রতীক) নির্বাচনী কার্যালয় ও ইউনিয়ন ছাত্রলীগের কার্যালয় ভাঙচুর করে এবং হলতা গুলিসাখালী ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য আলাউদ্দিনকে মারধর করেন। এতে স্থানীয় জনতা ক্ষিপ্ত হয়ে তাদের ওপর হামলা করে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) মনিরুজ্জামান বলেন, আহত ২০ জন চিকিৎসা নিয়েছেন। রিয়াজুল আলম ও হোসাইন মোশারেফ সাকুসহ ৫ জনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। রিয়াজুল আলমের মাথায় ধারালো অস্ত্রের জখম রয়েছে। হোসাইন মোশারেফের শরীর ও হাতে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

মঠবাড়িয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এম আর শওকত আনোয়ার ইসলাম বলেন, পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনেছে। আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িতদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। হামলায় স্বতন্ত্র  চেয়ারম্যান প্রার্থীর লোকজন জড়িত বলে জানা গেছে। মঠবাড়িয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রফিউদ্দিন আহমেদের সঙ্গে সাবেক উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আশরাফুর রহমানের বিরোধ রয়েছে। উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে আশরাফুর রহমান দলীয় মনোনয়ন পাওয়া থেকে বঞ্চিত হন। এরপর আশরাফুর রহমানের বড় ভাই রিয়াজ উদ্দিন আহমেদ স্বতন্ত্র  প্রার্থী হন। আগামী ৩১শে মার্চ এখানে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

আজও উজ্জ্বল আমির

সেনাবাহিনীকে সব সময় জনগণের পাশে দাঁড়াতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

আইসিসি’র সমালোচনায় সাঙ্গাকারা

ইমরান খানের কথা না শুনে মাসুল গুনছেন সরফরাজ

কোহলির নতুন মাইলফলক

পাকিস্তানি সমর্থকের কাণ্ড

নয়নকে কুপিয়ে মারলো দুর্বৃত্তরা

চিড় নেই মুশফিকের হাতে

ডিআইজি মিজানকে দুদক কেন গ্রেপ্তার করতে পারছে না: সুপ্রিম কোর্ট

নুসরাতের কবরে গিয়ে শপথ নিয়েছিলাম ন্যায়বিচারে লড়বো: ব্যারিস্টার সুমন

স্বপরিবারে ফ্রান্সে অবকাশ যাপনে ওবামা

ওসি মোয়াজ্জেম গ্রেপ্তার

সরফরাজদের জন্য ইমরানের তিন পরামর্শ

হলমার্কের জেসমিনকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ

‘মোবাইল ফোনে শুল্ক বাড়ানোর প্রস্তাব আত্মঘাতী’

মুক্তি পাবে সৌদির সেই কিশোর!