খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে আন্দোলন ছড়িয়ে পড়বে: নজরুল

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার | ২১ এপ্রিল ২০১৯, রোববার
বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে শিগগিরই সারাদেশে নতুন আন্দোলন ছড়িয়ে পড়বে বলে মন্তব্য করেছেন দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান। তিনি বলেন, সেই আন্দোলনের জনস্রোত কোনো স্বৈরাচারী সরকার ঠেকাতে পারবেনা। গতকাল শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ২০ দলীয় জোটের অন্যতম শরিক বাংলাদেশ জাতীয় দল-এর আয়োজনে এক মানববন্ধনে তিনি এসব মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, আজকে সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন মিথ্যা মামলা দিয়ে দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে কারাগারে বন্দি রাখা হয়েছে। বিশ্বের যেখানে গণতন্ত্র আছে সেখানে মানুষ হয়রানি বা নিপীড়িত হয় না। আজকে লাখো মানুষের জীবন ও মা বোনের ইজ্জতের বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীন দেশে আমরা অধিকার বঞ্চিত। আসলে ক্ষমতাসীনেরা জনগণের ভোটে নির্বাচিত নয়। এজন্য জনগণের কাছে তাদের কোনো জবাবদিহিতা নেই। তারা পুলিশ ও প্রশাসনকে ব্যবহার করে ক্ষমতায় টিকে থাকতে চায়। নজরুল ইসলাম খান বলেন, আজকে দেশের স্বাধীনতার ঘোষক শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের স্ত্রী ও বাংলাদেশের সাবেক চারবারের প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে কারাবন্দী রাখা হয়েছে। যিনি গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করতে আপোসহীন। এখন কারাগারে তাকে সুচিকিৎসা দেয়া হয়না। তিনি খালেদা জিয়া কোনো টাকা তছরুপ করেননি। আদালত তার অপরাধ প্রমাণ করতে পারেনি। তারপরও তিনি জেলে। অথচ দেশে আইন করে তছরুপকারীদের মওকুফ করা হয়েছে। প্রবীণ এই শ্রমিক নেতা বলেন, আমরা খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি চাই। যে কোনো মূল্যে আমরা তার মুক্তি চাই। কারণ খালেদা জিয়ার মুক্তি তার প্রাপ্য। রাজনৈতিক কারণে, আইনি কারণে আমরা তার মুক্তি দাবি করছি। বিএনপি স্থায়ী কমিটির এই সদস্য বলেন, আমরা সংসদে যাওয়ার কোনো সিদ্ধান্ত নেইনি। এ নিয়ে বিভ্রান্তি তৈরির চেষ্টা হচ্ছে। দলের সিদ্ধান্ত মানতে আমাদের দলের এমপিরা রাজি আছেন। তারপরও এটা নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়ানো হচ্ছে। নজরুল ইসলাম খান বলেন, হাজার হাজার মামলা প্রত্যাহার করা হয়েছে। খুনের আসামীকে মাফ করা হয়েছে। দুর্নীতির মামলায় নাজমুল হুদা জামিন পেলেন আর খালেদা জিয়াকে কারাবন্দী রাখা হলো! এখন আমরা বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলন সারাদেশে ছড়িয়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। সব মানুষ রাজপথে নেমে আসলে সরকার ঠেকাতে পারবেনা। বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু বলেন, আন্দোলনের মাধ্যমে দেশনেত্রীকে আমরা মুক্ত করবো। কিন্তু সরকার তার মুক্তি নিয়ে ধূম্রজাল সৃষ্টি করছে। বিএনপি শপথও নেবেনা প্যারোলও নেবেনা। আমারা জনগণকে সাথে নিয়েই বিজয়ী হতে চাই। বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেন, আজকে দেশে সাধারণ মানুষের নিরাপত্তা নেই। দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতিতে মানুষ দিশেহারা। এই সরকারকে দেশের জনগণ উপযুক্ত জবাব দিতে প্রস্তুত। জাতীয় দলের চেয়ারম্যান সৈয়দ এহসানুল হুদার সভাপতিত্বে মানববন্ধনে অন্যদের মধ্যে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব, নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মুহাম্মদ রহমাতুল্লাহ, নিপুণ রায় চৌধুরী, জেবা আমিন খান, বিএনপি নেতা কাজী মনিরুজ্জামান, স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক সাইফুল ইসলাম ফিরোজসহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।




এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ভিপি নুরের ইফতারে ছাত্রলীগের বাধা, রেস্টুরেন্টে তালা

বাংলাদেশ দলের নিউক্লিয়াস

সৌভাগ্যের কার্ডিফে টাইগারদের বিশ্বকাপ যাত্রা শুরু

ছোট নৌকায় দ্বিগুণ যাত্রী তুলে ভাসিয়ে দেয় সাগরে

রাজনৈতিক দলে না থাকলেও ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে থাকবো

ওদের কান্নার যেন শেষ নেই

দ্বিতীয় মেঘনা, গোমতী সেতুর উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

নরসিংদীতে অভাবের তাড়নায় দুই কন্যাকে হত্যা করেছে বাবা

একদিনে দুই ইফতার

মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রয়োজন বৃহত্তর ঐক্য

ফ্রান্সের লিওনে পার্সেল বোমা বিস্ফোরণ আহত ১৩

কসাইখানা থেকে কলেজে মহিষ...

নগরীতে ‘বাস বে’ করা একটি বড় চ্যালেঞ্জ: ডিএনসিসি মেয়র

জীবন উৎসর্গ করা ১২ বাংলাদেশি শান্তিরক্ষীর প্রতি জাতিসংঘের সম্মাননা

লোকসভায় বেড়েছে মুসলিম এমপি

বান্দরবানে অপহৃত আওয়ামী লীগ নেতার লাশ উদ্ধার