বিয়ানীবাজার বিএনপির কাউন্সিল

আলোচনায় যারা

বাংলারজমিন

মিলাদ জয়নুল, বিয়ানীবাজার (সিলেট) থেকে | ১২ জুন ২০১৯, বুধবার
ডাক পড়েছে তৃণমূল বিএনপির নেতাকর্মীদের। এখন তাদের আর ঘরে বসে থাকার সময় নেই। দলীয় অভ্যন্তরীণ কর্মসূচির মধ্য দিয়ে তাদের উজ্জীবিত করতে নির্দেশনা এসেছে হাইকমান্ড থেকে। ছোট ছোট কর্মসূচি, সভা-সেমিনার এবং কাউন্সিলে দলের সকল পর্যায়ের নেতাকর্মীদের উপস্থিতি নিশ্চিত করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের তাগিদ দেয়া হয়েছে সংশ্লিষ্টদের।
এ জন্য বিয়ানীবাজার উপজেলা বিএনপির আসন্ন কাউন্সিলে ভোট প্রদান করবেন হাজারের বেশি ভোটার! তৃণমূল নেতাকর্মীদের উজ্জীবিত এবং দলের প্রতি আবেগ বাড়াতে এত বিপুলসংখ্যক ভোটার কাউন্সিলে ভোটের মাধ্যমে তাদের নেতৃত্ব নির্বাচন করবেন। উপজেলা বিএনপির সহ-সাধারণ সম্পাদক ছরওয়ার হোসেন জানান, প্রতিটি ইউনিয়ন থেকে কমিটির ১০১ জন করে সদস্য কাউন্সিলে ভোট প্রদান করবেন। এ হিসাবে শুধুমাত্র ১০টি ইউনিয়নে ১০১০ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। তিনি আরো জানান, অচিরেই উপজেলা বিএনপির কমিটি ভেঙে দিয়ে নতুন আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হবে। এতে আহ্বায়ক যিনি হবেন, তিনি পরবর্তী কাউন্সিলে সভাপতি-সম্পাদক পদে প্রার্থী হতে পারবেন না। বিএনপির দলীয় সূত্র জানায়, কাউন্সিলকে ঘিরে দলের সকল নেতাকর্মীকে উজ্জীবিত করাই এবার মূল লক্ষ্য। এরপরই হয়তো বিএনপি আন্দোলনের ডাক দিতে পারে। মূলত দলীয় হাইকমান্ডের আন্দোলনমুখর রাজনীতির বার্তা দিতেই কাউন্সিলে এত বিপুল পরিমাণ কাউন্সিলরের মতামত প্রদানের সুযোগ সৃষ্টি করা হয়েছে। এদিকে বিয়ানীবাজারে বিএনপির আহ্বায়ক হিসেবে সাবেক সভাপতি আবদুল মতলিব, সাবেক আহ্বায়ক জিয়াউল বারী চৌধুরী শাহিনুর, আলীনগর ইউপি চেয়ারম্যান মামুনুর রশীদ মামুন দায়িত্ব পেতে পারেন বলে বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে। আর কাউন্সিলে সভাপতি পদে নজমুল হোসেন পুতুল, আখতার হোসেন খান জাহেদ এবং নজরুল খানের নাম আলোচনায় রয়েছে। সাধারণ সম্পাদক পদে ছিদ্দিক আহমদ, আবু নাছের পিন্টু ও ছরওয়ার হোসেন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারেন। তবে কাউন্সিল ছাড়া সমঝোতায় বিএনপির কমিটি গ্রহণ করা হবে না বলে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ স্পষ্ট নির্দেশনা দিয়েছেন। জানা যায়, উপজেলা কমিটির আহ্বায়ক হিসেবে দায়িত্ব নেয়ার পর সকল ইউনিয়ন কমিটি ভেঙে দিয়ে নতুন কমিটি গঠন করা হবে। ইউনিয়নের অধীন ওয়ার্ডগুলোও পুনর্গঠন করা হবে। উপজেলা বিএনপির সভাপতি নজমুল হোসেন পুতুল জানান, আমি চাই কাউন্সিলে নতুন নেতৃত্ব বেরিয়ে আসুক। তবে দুঃসময়ে আমি দল ছেড়ে যেতে চাই না। কাউন্সিলের মাধ্যমে যে কমিটি আসবে, তারাই বর্তমান সরকারের দুঃশাসনের বিরুদ্ধে গণআন্দোলন গড়ে তুলবে বলে মনে করেন তিনি।
বিয়ানীবাজার উপজেলা বিএনপির সর্বশেষ কাউন্সিলে সভাপতি পদে নজমুল হোসেন পুতুল এবং সাধারণ সম্পাদক পদে এমএ ওদুদ রোকন নির্বাচিত হন। পরবর্তী সময়ে মামলার খড়গ মাথায় নিয়ে স্বেচ্ছায় আত্মগোপন করেন তিনি। বর্তমানে তিনি কানাডায় অবস্থান করছেন বলে জানা গেছে। এমএ অদুদ রোকনের স্থানে পরে যুগ্ম সম্পাদক ছিদ্দিক আহমদকে পদায়ন করা হয়। এই কমিটির বিরুদ্ধে একপক্ষ থেকে নানা অভিযোগ উত্থাপন করা হলেও রাজপথে তারা সরকার বিরোধী সকল আন্দোলনে সক্রিয় ভূমিকা পালন করেন। তাদের প্রত্যেকের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা চলমান বলে জানা গেছে। সিলেট জেলা বিএনপির সহ-অর্থ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আহমদ রেজা জানান, জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি গঠনের পর হয়তো রমজানের পরই বিয়ানীবাজারে আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হবে। এ কমিটির নেতৃত্বে তৃণমূলে দলকে চাঙ্গা করতে সব ধরনের উদ্যোগ নেয়া হবে।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

ট্রাম্পের সঙ্গে ইমরান খানের বৈঠক আজ

এবার ময়লা ছুঁড়ার জবাব গোলে দিলেন নেইমার

নায়িকার সঙ্গে আড্ডা

ইয়াবাসহ আওয়ামী লীগ নেতার পুত্র গ্রেপ্তার

‘অভিযান নিয়ে যেন আতঙ্ক না ছড়ায়’

‘অনেকেই গা ঢাকা দিয়েছে, অনেককেই নজরদারিতে রাখা হয়েছে’

মোদির বিরুদ্ধে পররাষ্ট্রনীতি লঙ্ঘনের অভিযোগ

‘নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় আটক দু’ভাই জেএমবি’র সদস্য’

ম্যাসেজ পার্লারে আলো-আঁধারের আড়ালে

ছবিতে এমি অ্যাওয়ার্ডস

শামীমের টাকার ভাগ পেতেন প্রভাবশালী কয়েক নেতা

বন্ধ হয়ে গেল ১৭৮ বছরের প্রতিষ্ঠান থমাস কুক

যুক্তরাষ্ট্রে বিরল সংবর্ধনায় একে অন্যের প্রশংসায় পঞ্চমুখ মোদি-ট্রাম্প

ভারতে দেহব্যবসায় বাধ্য করানো ৮ বাংলাদেশী যুবতীকে উদ্ধার

বাংলাদেশ সফরে ভারতীয় নৌবাহিনী প্রধান

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় ‘জঙ্গি বিরোধী’ অভিযান চলছে