টুর্নামেন্ট সেরা হচ্ছেন কে?

প্রথম পাতা

স্পোর্টস ডেস্ক | ১৩ জুলাই ২০১৯, শনিবার | সর্বশেষ আপডেট: ৫:০৪
বিশ্বকাপের ‘ম্যান অব দ্য টুর্নামেন্ট’ হওয়ার লড়াইয়ে আছেন সাকিব আল হাসান। সঙ্গে রয়েছেন রোহিত-ওয়ার্নাররাও। সর্বোচ্চ রান সংগ্রহকারীদের তালিকায় শীর্ষে রয়েছেন ভারতের রোহিত শর্মা, অস্ট্রেলিয়ার ডেভিড ওয়ার্নার, বাংলাদেশের সাকিব আল হাসান। সর্বোচ্চ উইকেট শিকারির তালিকায় অস্ট্রেলিয়ার মিচেল স্টার্ক, বাংলাদেশের মোস্তাফিজুর রহমান, ভারতের জসপ্রিত বুমরাহ ও নিউজিল্যান্ডের লকি ফার্গুসন। ব্যাটিং গড়ে শীর্ষে আছেন নিউজিল্যান্ডের অধিনায়ক কেইন উইলিয়ামসন। যিনি একাই দলকে অনেকটা টেনে তুলেছেন ফাইনালে। দল সেমিফাইনালে উঠতে না পারলেও ব্যাটিং বোলিং মিলিয়ে সবার উপরেই আছেন বাংলাদেশের সাকিব।

সাকিব আল হাসান (বাংলাদেশ): তালিকায় সবার উপরে আছেন বাংলাদেশের সাকিব আল হাসান।
বিশ্বকাপের শুরু থেকে যেদিন বাংলাদেশ টুর্নামেন্ট থেকে বাদ পড়ে যায় সেদিন পর্যন্ত সাকিব আল হাসানের দিকে তাকিয়ে আশাবাদী ছিলেন বাংলাদেশের ভক্তরা। শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশ সেরা চারে তো উঠতে পারেইনি, আট নম্বরে থেকে টুর্নামেন্ট শেষ করেছে। দল সেরা চারে স্থান করে নিতে না পারলেও সাকিব পরিসংখ্যান ও পারফরম্যান্সে উজ্জ্বল। কারণ বাদবাকি যারা সব তালিকার ওপরের দিকে আছেন তারা সবাই অন্তত সেমিফাইনাল খেলেছেন, কয়েকজন ফাইনালেও জায়গা করে নিয়েছেন। কিন্তু তাদের চেয়ে সাকিব একটা জায়গাতে এগিয়ে, সেটা হলো ব্যাটে বলে এমন পারফরম্যান্স আর কেউই দেখাতে পারেনি। সাকিব মোট আটটি ম্যাচে ব্যাট হাতে মাঠে নামেন, ৬০৬ রান তুলেছেন, ৮৬.৫৭ গড়ে। সাকিবের গড় টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ। বল হাতে সাকিব ৮ ম্যাচে নিয়েছেন ১১ উইকেট।  বাংলাদেশের তিন জয়ের তিনটিতেই ম্যাচ সেরা হয়েছেন সাকিব। মোট আট ম্যাচ খেলা সাকিব ৭ ইনিংসেই ন্যুনতম ৫০ রান অতিক্রম করেছেন। বিশ্বকাপে তার সর্বনিম্ন সংগ্রহ ৪১ রান। বিশ্বকাপ ক্রিকেটের ইতিহাসে একমাত্র ক্রিকেটার হিসেবে একই আসরে ৬০০ এর ওপর রান ও ১০টিরও বেশি উইকেট নিয়েছেন সাকিব।

রোহিত শর্মা (ভারত): সেমিফাইনালে ব্যাট হাতে সুবিধা করতে না পারায় নিউজিল্যান্ডের কাছে হেরে বিদায় নিয়েছে ভারত। দল না থাকলেও বিশ্বকাপের ইতিহাসে প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে পাচঁটি সেঞ্চুরি করা রোহিত শর্মাও আছেন সিরিজ সেরা হওয়ার তালিকায়। ভারতের ব্যাটিংয়ে টোন সেট করার দায়িত্বটা তারই, তবে শুরু থেকে তার ওপর চাপ ছিল পাহাড়সম। বিশেষ করে ইনজুরি নিয়ে শিখর ধাওয়ান ছিটকে যাওয়ার পর ভারতের টপ অর্ডারের দায়িত্ব কাঁধে নেন রোহিত। বিশ্বকাপে ৮৭ গড়ে ৬৪৮ রান করেছেন রোহিত।

ডেভিড ওয়ার্নার (অস্ট্রেলিয়া): বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়া মানেই অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটারদের দাপট। ২০১১ বিশ্বকাপ ছাড়া ১৯৯৯ সাল থেকে ২০১৫ বিশ্বকাপ পর্যন্ত একই দৃশ্য দেখা গেছে। অ্যাডাম গিলক্রিস্ট, ম্যাথু হেইডেনের পর আরো একবার বিশ্বকাপে সেরাটা দেখালেন আরেক অস্ট্রেলিয়ান ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার। ডেভিড ওয়ার্নার এই বিশ্বকাপে ৩টি সেঞ্চুরি ও ৩টি হাফসেঞ্চুরি করেছেন। শুরুটা ধীরগতির হলেও শেষদিকে রানের গতি বাড়িয়েছেন ওয়ার্নার। পাকিস্তানের বিপক্ষে ১০৭, বাংলাদেশের বিপক্ষে ১৬৬ ও দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ১২২। আফগানিস্তানের বিপক্ষেও ৮৯ রানে অপরাজিত ছিলেন ওয়ার্নার।

কেন উইলিয়ামসন (নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক): টুর্নামেন্টের সেরা রান সংগ্রাহকের তালিকার দিকে তাকালে উইলিয়ামসনের রান খুব বেশি মনে নাও হতে পারে, তবে তিনি যে রান করেছেন তাতে নিউজিল্যান্ড দল বিপদ থেকে মুক্তি পেয়েছে বেশ কয়েকবার। প্রথম ম্যাচে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ১০ উইকেটে জয় ছাড়া নিউজিল্যান্ডের উদ্বোধনী জুটি তেমন উল্লেখ করার মতো রান করতে পারেনি। প্রায় প্রতিটি ম্যাচে ব্যাট হাতে নিউজিল্যান্ডের ত্রাতার ভূমিকায় ছিলেন কেন উইলিয়ামসন। আফগানিস্তানের বিপক্ষে ৭৯, দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ১০৬ ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ১৪৮ রান তোলেন নিউজিল্যান্ডের এই অধিনায়ক। মূলত প্রথম পাঁচ ম্যাচের জয়ই নিউজিল্যান্ডকে সেমিফাইনালে উঠতে সাহায্য করে।

মিচেল স্টার্ক (অস্ট্রেলিয়া): মিচেল স্টার্ক ২০১৫ বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়ার নায়ক, সেবার তিনি নেন ২২ উইকেট। টুর্নামেন্ট সেরাও হয়েছিলেন এই পেসার। সেমিফাইনালে তার দল বিদায় নিলেও তার নামের পাশে রয়েছে ২৭ উইকেট। এই বিশ্বকাপে সর্বাধিক উইকেটের মালিকও এই অজি পেসার। বিশ্বকাপের মতো আসরে মোট ৩বার পাঁচ উইকেট নেয়ার রেকর্ডও এখন তার। মিচেল স্টার্ক চলতি বিশ্বকাপেই ২বার চারটি করে ও ২বার পাচঁটি করে উইকেট নিয়েছেন। তার গড় মাত্র ১৬.৬১, ইকোনমি রেট ৫.১৮। মিচেল স্টার্কের বিশ্বকাপে উইকেট সংখ্যা ১৮ ম্যাচে ৪৯টি।

জো রুট (ইংল্যান্ড): ইংলিশ টেস্ট অধিনায়ক জো রুট এই বিশ্বকাপের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান। দশ ম্যাচে তার রান ৫৪৮। দলের গুরুত্বপূর্ণ সময়ে হাল ধরেছেন এই ক্রিকেটার। ৯১.৭৪ স্ট্রাইক রেটে খেলেছেন তিনি। পাকিস্তানের বিপক্ষে শতরান, আফগানিস্তানের সাথে ৮৮ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। এছাড়া বিশ্বকাপের শুরুতেই দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ৫১ রানের একটি ইনিংস খেলেন তিনি। একটা জায়গায় জো রুট সবার চেয়ে এগিয়ে, ২০১৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপে ১০ ম্যাচে ১২টি ক্যাচ ধরেছেন তিনি।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

মোঃ আবুল কাশেম হেলাল

২০১৯-০৭-১৩ ০০:৩১:২৮

সাকিব আল হাসানকে বিশ্বকাপে ম্যান অব দ্যা টুর্নামেন্ট ঘোষনা করা হউক।

ম নাছিরউদ্দীন শাহ

২০১৯-০৭-১২ ২৩:৩৩:২১

আই সি সি ইতিমধ্যে সাকিব আল হাসান কে সম্মান দিয়ে ছবি পোষ্ট করেছে। বিশ্ব ক্রিকেট এর রাজকীয় বরপুত্র সব রকমের পরিসংখ্যানে এগিয়ে। ফাইনালে ম্যাচে ভারতীয় কোন কুটিল প্রভাব যদি না পড়ে। আই সি সি সিদ্ধান্তে যদি নিরাপেক্ষতা থাকে বাংলাদেশের মুল্যবান হীরা সাকিব আল হাসান টুনামেন্টের শ্রেষ্ঠ খেলোয়াড় এর সম্মান পাওয়ার এক নম্ভর দাবিদার। সমস্ত ক্রিকেট অনুরাগী লক্ষ কোটি মানুষের দোয়া এই বিরল সম্মান আমরা বাংলাদেশীরা পাব কি ?

md manik mia

২০১৯-০৭-১২ ২১:০৮:৪২

সাকিব আল হাসান বিশ্বকাপের সেরা খেলোয়াড় হওয়ার দাবিদার।

আপনার মতামত দিন

রেনু হত্যায় প্রধান আসামি হৃদয় গ্রেপ্তার

মা হত্যার বিচার চেয়ে রাজপথে তুবা

সেদিন যা ঘটেছিল বাড্ডার স্কুলে

বরিস জনসন বৃটেনের নতুন প্রধানমন্ত্রী

সড়কে পৌনে ৫ লাখ ফিটনেসবিহীন গাড়ি

জাপার বিবাদ প্রকাশ্যে

পরিস্থিতি অস্থিতিশীল করতেই মানুষ হত্যা করা হচ্ছে

ডেঙ্গু শনাক্তে ডায়াগনস্টিক সেন্টারে ভিড়

আক্তারকে মারধর নূর লাঞ্ছিত

ট্রাম্পের বক্তব্য নিয়ে উত্তপ্ত ভারতের রাজনীতি

সুযোগসন্ধানীরা যেন ফায়দা লুটতে না পারে -প্রেসিডেন্ট হামিদ

প্রধানমন্ত্রীর চোখে অস্ত্রোপচার

আশুগঞ্জে আলোচনায় ৬%, টার্গেট ৩৮ কোটি টাকা

নিখোঁজ ৩.৭০ কোটি হিন্দু বাংলাদেশি ভারতেই

কারাগারে এনামুল বাছির

সিলেটে তোলপাড় খালা-বোনঝির ‘ইয়াবা মিশন’