যানজট এড়াতে ৮ই আগস্ট থেকে পোশাক শ্রমিকদের ছুটি

শেষের পাতা

স্টাফ রিপোর্টার | ১৫ জুলাই ২০১৯, সোমবার | সর্বশেষ আপডেট: ৮:২৬
যানজট এড়াতে আগামী ৮ই আগস্ট থেকে পোশাক শ্রমিকদের পর্যায়ক্রমে ঈদুল আজহার ছুটি দেয়া হবে। গতকাল সচিবালয়ে ঈদুল আজহা উপলক্ষে আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত সভা শেষে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। বলেন, ৮ই আগস্ট থেকে গার্মেন্ট শ্রমিকদের পর্যায়ক্রমে ছুটি দেয়া হবে। যাতে অযথা যানজট না হয়। উল্লেখ্য, চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ১২ই আগস্ট দেশে মুসলমানদের দ্বিতীয় বড় ধর্মীয় উৎসব ঈদুল আজহা বা কোরবানির ঈদ উদ্‌যাপিত হবে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আসন্ন ঈদুল আজহা উদযাপনে আইনশৃঙ্খলা স্বাভাবিক রাখতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী তৎপর থাকবে। যাতে দেশের মানুষ আনন্দের সঙ্গে ঈদুল আজহা উদযাপন করতে পারে। দেশে ঈদের জামাতগুলোতে প্রয়োজন মাফিক পর্যাপ্ত নিরাপত্তা দেয়া হবে। ঈদের ছুটিতে চুরি-ডাকাতি যাতে না হয় তা নিয়ন্ত্রণের জন্য নিরাপত্তা বাহিনী ইউনিফর্মধারী এবং পাশাপাশি সাদা পোশাকধারী সদস্যরা সবসময় থাকবেন। ঈদ সামনে রেখে কোনো নাশকতার আশঙ্কা আছে কি না- জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, নাশকতার কোনো সংবাদ এখন পর্যন্ত নেই। যদি হয় সে জন্য নিরাপত্তা বাহিনী সবসময় প্রস্তুত রয়েছে।

যানজট নিরসনে রাস্তা ও রাস্তার পাশে কোনো ধরনের পশুর হাট বসবে না বলে সভায় সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে জানিয়ে আসাদুজ্জামান খান বলেন, এই সিদ্ধান্ত সব জায়গায় বলবৎ থাকবে আমরা সেই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করছি। বন্যার কারণে নির্দিষ্ট স্থানে হাট বসতে না পারলে ডিসি বা ইউএনও নির্ধারণ করে দেবেন কোন জায়গায় হাট হবে, যাতে রাস্তায় কোনো প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি না হয়। সরকারের নির্দিষ্ট করে দেয়া স্থান ছাড়া কোরবানি দেয়া যাবে না জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ঢাকা শহরে নির্ধারিত স্থান ছাড়া কোরবানির হাট বসতে পারবে না। সিটি কর্পোরেশনগুলো কমিশনার সাহেবের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করে স্থান নির্ধারণ করবেন, ওই স্থানের বাইরে কোরবানির হাট দেয়া যাবে না। পশুবাহী গাড়ি কিংবা হাইওয়েতে কোনো লোডেড গাড়ি থামানো হবে না। নির্দিষ্ট স্থানে গিয়ে গাড়ি থামবে, যাতে যানজট সৃষ্টি না হয়।

নদীপথেও কোনো নৌযানকে আমরা থামাব না, যদি না কোনো সুনির্দিষ্ট অভিযোগ না থাকে। পশুর গাড়িতে চাঁদাবাজি হয়- এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে মন্ত্রী বলেন, পশুবাহী ট্রাকের সামনে গন্তব্যের নাম ঝুলিয়ে দেয়া হবে। গাড়ি আটকালে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নজরে আসলে ব্যবস্থা নেয়া হবে। গতবারও এই ব্যবস্থা ছিল। হাইওয়ে পুলিশ থেকে শুরু হবে জেলা পুলিশ এটার নজরদারি করবে। উচ্চ পর্যায়ের সভায় পুলিশের মহাপরিদর্শক মোহাম্মদ জাবেদ পটোয়ারী, সুরক্ষা সেবা বিভাগের সচিব মোস্তাফা কামাল উদ্দীন, র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়াসহ অন্যান্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষেও বড় জয় কিশোরদের

রাখাইনে নির্যাতন অব্যাহত, কফি আনান কমিশনের সুপারিশ বাস্তবায়নের আহ্বান

এ কেমন শত্রুতা!

মওদুদের রিভিউ খারিজ, মামলা চলবে

ঢাকায় কিশোর গ্যাংয়ের ১৭ সদস্যের কারাদণ্ড

মাদারীপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২

‘মিয়ানমারের অভিযোগ হাস্যকর’

রিয়ালের ড্রয়ে হতাশ জিদান

মির্জাপুরে গুলি করে ২৬ লাখ টাকা ছিনতাই

কিশোরগঞ্জে ডেঙ্গুতে শিশুর মৃত্যু

সাবেক আইজি প্রিজনস সৈয়দ ইফতেখারকে দুদকের জিজ্ঞাসাবাদ

মোদির সামনে কাশ্মীর ইস্যু উত্থাপন করবেন গুতেরাঁ

ওএসডি হলেন জামালপুরের সেই ডিসি

জেলখানায় সবজি চাষ করেন সেই ধর্মগুরু

ঢামেকে আরও এক ডেঙ্গু রোগীর মৃত্যু

চুল কাটায় নজরদারি