চট্টগ্রাম-কুমিল্লার মোবাইল চোর চক্রের ছয় সদস্য কিশোরগঞ্জে আটক

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, কিশোরগঞ্জ থেকে | ১০ আগস্ট ২০১৯, শনিবার | সর্বশেষ আপডেট: ৮:৩৪
চট্টগ্রাম এবং কুমিল্লা থেকে দোকানের তালা ভেঙে আন্তঃজেলা মোবাইল ফোন চোর চক্রের ছয় সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে কিশোরগঞ্জ জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। এ সময় তাদের কাছ থেকে চোরাই বিভিন্ন ব্র্যান্ডের ৩৪টি মোবাইল ফোন সেট, নগদ টাকা, তালা ভাঙার যন্ত্রপাতি এবং চোরাই রিচার্জ স্ক্র্যাচ কার্ড উদ্ধার করা হয়েছে। বুধবার রাত সোয়া ১টা থেকে সোয়া ৪টা পর্যন্ত চট্টগ্রাম ও কুমিল্লা জেলার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে মো. শানু মিয়া (৪০), মো. দুলাল মিয়া (৩২), মো. বাদশা মিয়া (২৫), মো. সাহাব উদ্দিন ওরফে সাহেব আলী (৩৩), মো. সুমন মিয়া (২৭) এবং মো. সোহেল মিয়া (২৯) নামে চোরচক্রের ছয় সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়। কিশোরগঞ্জ জেলার পুলিশ সুপার মো. মাশরুকুর রহমান খালেদ বিপিএম (বার) এর নির্দেশনায় জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) পরিদর্শক একেএম মহিউদ্দিন পিপিএম (বার) এর নেতৃত্বে ডিবি’র অন্যান্য অফিসার-ফোর্সের সহযোগিতায় তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার করে তাদের অবস্থান নিশ্চিত হওয়ার পর এই অভিযান চালানো হয়। গ্রেপ্তার হওয়া চোর চক্রের ছয় সদস্যের মধ্যে মো. শানু মিয়া কুমিল্লা জেলার দেবিদ্বার থানার ফতেহাবাদ কাজীবাড়ি নয়াকান্দির মৃত সিরাজ মিয়ার ছেলে, মো. দুলাল মিয়া মুরাদনগর থানার থল্লা সরকারবাড়ির মো. সুরুজ মিয়ার ছেলে, মো. বাদশা মিয়া মুরাদনগরের বাহাদুরপুর গ্রামের মৃত আবদুল হাইয়ের ছেলে, মো. সাহাব উদ্দিন ওরফে সাহেব আলী তিতাস থানার লালপুর গ্রামের মো. আশরাফ আলীর ছেলে, মো. সুমন মিয়া মুরাদনগরের রানী মহুরী গ্রামের মৃত মনছুর আলীর ছেলে এবং মো. সোহেল মিয়া হোমনা থানার শুভারামপুর গ্রামের মো. নূরুল হকের ছেলে। বৃহস্পতিবার তাদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।
জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) সূত্র জানায়, গ্রেপ্তার হওয়া চোর চক্রের ছয় সদস্যের সবার বাড়ি কুমিল্লা জেলার বিভিন্ন থানা এলাকায়। কিন্তু তারা বসবাস করে চট্টগ্রাম জেলায়। গ্রুপ করে তারা দেশের বিভিন্ন জেলায় ঘুরে বেড়ায়। কোনো দোকানকে টার্গেট করার পরে একত্রিত হয়ে সূক্ষ্ম কৌশলে চুরি করে চলে যায়।
গত ২০শে মে রাত সোয়া ৯টা থেকে ২১শে মে সকাল ৯টা এই সময়ের মধ্যে বাজিতপুর বাজারের এ.বি সিদ্দিক টাওয়ার (এমপি মার্কেট) এর নিচ তলায় টেকনোপার্ক টেলিকম শো-রুমের তালা ভেঙে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের ৫৬টি মোবাইল ফোন সেট চুরি করে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় বাজিতপুর থানায় ২৩শে মে মামলা (নং-২৪) দায়ের করা হয়। পুলিশ সুপার মো. মাশরুকুর রহমান খালেদ বিপিএম (বার) এর নির্দেশে গত ২রা জুলাই মামলাটির তদন্তভার জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) এর ওপর ন্যস্ত করা হয়। এরপর পুলিশ সুপার মো. মাশরুকুর রহমান খালেদ বিপিএম (বার) এর নির্দেশনায় জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহারসহ বিভিন্ন মাধ্যমে চোর চক্রকে শনাক্ত করতে কাজ করে। পরে চোর চক্রের সদস্যদের অবস্থান নিশ্চিত হওয়ার পর বুধবার রাত সোয়া ১টা থেকে সোয়া ৪টা পর্যন্ত চট্টগ্রাম ও কুমিল্লা জেলার বিভিন্ন এলাকায় তারা অভিযান চালিয়ে ছয় সদস্যকে গ্রেপ্তার করেন।
পুলিশ সুপার মো. মাশরুকুর রহমান খালেদ বিপিএম (বার) জানান, গ্রেপ্তার হওয়া ছয়জনই আন্তঃজেলা মোবাইল ফোন চোর চক্রের সক্রিয় সদস্য। দেশের বিভিন্ন জেলায় তারা সুকৌশলে দোকানে চুরি করে। চক্রের বাকি সদস্যদের ধরতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলেও পুলিশ সুপার জানিয়েছেন।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

কাশ্মীর ইস্যুতে আবার মধ্যস্থতার প্রস্তাব ট্রাম্পের

কাশ্মীর ইস্যুতে জাতিসংঘের আদালতে যাবে পাকিস্তান

কারা হেফাজতে আইনজীবীর মৃত্যুর ব্যাখ্যা চেয়েছেন হাইকোর্ট

ছাদ থেকে লাফিয়ে কারারক্ষীর স্ত্রীর মৃত্যু

এক রাতের জন্য ৪০ হাজার পাউন্ড প্রস্তাব

‘২১শে আগস্ট হত্যাকাণ্ডের মাস্টারমাইন্ড তারেক রহমান’

দেশে ফিরতে অনীহা রোহিঙ্গাদের

রোহিঙ্গা সঙ্কট নিয়ে ৬১ এনজিওর ৪ সুপারিশ

২ মাসেও সন্ধান পাওয়া যায়নি হবিগঞ্জের সুমনের

লক্ষ্মীপুরে ব্যবসায়ীকে গলাকেটে হত্যা

বিয়ের ২২দিন পর একই রশিতে স্বামী-স্ত্রীর আত্মহত্যা

রোহিঙ্গা প্রত্যাবর্তন পরিকল্পনা স্থগিত করার আহ্বান হিউম্যান রাইটস ওয়াচের

ফেনীতে নিখোঁজের ৭দিন পর স্কুুলছাত্রের লাশ উদ্ধার

‘এটা আমাদের ইন্ডাস্ট্রির জন্য ইতিবাচক’

নানা চোখে জয়শঙ্করের ঢাকা সফর

এখনো যন্ত্রণা বয়ে বেড়াচ্ছে ওরা