গাছের সঙ্গে শত্রুতা

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, দিনাজপুর থেকে | ১৫ আগস্ট ২০১৯, বৃহস্পতিবার
গাছের সঙ্গেও চরম শক্রতার বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলায়। সেখানে শাহিনুর রহমান সবুজ নামে এক যুবকের আমবাগানের ভিন্ন প্রজাতির প্রায় ৩০০ আমের গাছ কেটে ফেলেছে দুর্বৃত্তরা। গতকাল ভোরে উপজেলার পলিরামদেবপুর এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। শাহিনুর রহমান সবুজ এ অঞ্চলের ছাত্রলীগের সভাপতির দায়িত্বে রয়েছেন। মো. শাহিনুর রহমান সবুজ নবাবগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দিয়েছেন। সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ওই আমবাগানে সারি সারি আমগাছ মাথা নুয়ে পড়ে রয়েছে। গাছগুলোকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কাটা হয়েছে। বাগানের দক্ষিণ দিকে কিছু আমগাছ দাঁড়িয়ে আছে।
বাগানের পাশে রুবেল মিয়া নামে এক কৃষক বলেন, গাছ কাটা আর মানুষ খুন করা একই কথা। মানুষের সঙ্গে মানুষের শক্রতা থাকতেই পারে কিন্তু গাছের সঙ্গে এমন শত্রুতা ঠিক হয়নি। বাগান মালিক শাহিনুর রহমান সবুজ জানান, পাঁচ একর জায়গা নিয়ে বাগানটির অবস্থান। বাগানে ৪০০ বিভিন্ন প্রজাতির আমগাছ ছিল। যেগুলোতে এবার আম এসেছিল। আমগাছগুলো বয়স প্রায় ৩ বছর হয়েছিল। কিন্তু কে বা কারা রাতের আঁধারে প্রায় ৩০০ বিভিন্ন প্রকার আমগাছ কেটে ফেলেছে এটা আমার জানা নেই। তিনি বলেন, এর আগেও ওই বাগানের প্রায় ৭ শতাধিক আমগাছসহ বিভিন্ন প্রকার ফলদ গাছ কেটে ফেলেছিল দুর্বৃত্তরা। নবাবাগঞ্জ থানার ওসি সুব্রত কুমার সরকার জানান, গাছ কাটার বিষয়ে এখনো কোনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

নয়াপল্টনে উৎসবের আমেজ

দেশের মাটিতে মঈনুল ও তানিয়ার লাশ

রাজধানীতে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় বৃদ্ধাসহ নিহত ২

পাকিস্তানে তালেবান প্রধানের ভাইকে হত্যা শান্তি আলোচনার পথে সমস্যা নয়

অবরুদ্ধ কাশ্মীরে বাড়ছে নিরাপত্তা বাহিনীর নির্যাতন, চলছে বাছবিচারহীন গ্রেপ্তার

চামড়ার দরপতনের তদন্ত চেয়ে রিট

আফগানিস্তানে বিয়ের অনুষ্ঠানে ভয়াবহ জঙ্গি হামলা, হতাহত ২৫০

পবিত্র হজ পালন শেষে প্রথমদিনে ফিরলেন ১৯৪২ জন

কাশ্মীর: প্রেসিডেন্টের আদেশ চ্যালেঞ্জ ভারতের সুপ্রিম কোর্টে

শখের মোটরসাইকেল প্রথম দিনেই কেড়ে নিলো কলেজছাত্রের প্রাণ

সিরাজগঞ্জে ডেঙ্গুতে কলেজছাত্রের মৃত্যু

‘এখন দর্শকের প্রশংসা বলে কিছু নেই’

কাতারে নিজেদের বিপদ ডেকে আনছেন বাংলাদেশিরা

ডেঙ্গুতে মৃত্যু থামছে না

উফ! কী মর্মান্তিক

‘হাত-পা বেঁধে নাইমকে শ্বাসরোধ করে খুন করি’