ভোলায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ধর্ষণ মামলার দুই আসামি নিহত

শেষের পাতা

ভোলা প্রতিনিধি | ১৫ আগস্ট ২০১৯, বৃহস্পতিবার | সর্বশেষ আপডেট: ২:১৯
ভোলায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ষষ্ঠ শ্রেণির  ছাত্রী ধর্ষণ মামলার অন্যতম দুই আসামি নিহত হয়েছে।  গত মঙ্গলবার রাতে আড়াইটার দিকে ভোলা সদর উপজেলায় পুলিশের সঙ্গে এ ‘বন্দুকযুদ্ধের’ ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলো- সদর উপজেলার চরসামাইয়া ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের সৈয়দ আহম্মেদের ছেলে আল আমিন (২৫) ও কামাল মিস্ত্রির ছেলে মঞ্জুর আলম (৩০)। স্থানীয় সূত্র জানায়, মঙ্গলবার রাত আড়াইটার দিকে সদর উপজেলার রাজাপুর ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের দক্ষিণ রাজাপুর এলাকার নদীর তীর সংলগ্ন এলাকায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ চাঁদরাতে স্কুলছাত্রী গণধর্ষণ মামলার প্রধান দুই আসামি নিহত হয়। পরে তাদের মরদেহ উদ্ধার করে নিয়ে যায় পুলিশ। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ভোলা মডেল থানা পুলিশের সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) শিখর বলেন, মঙ্গলবার রাত আড়াইটার দিকে রাজাপুর ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের দক্ষিণ রাজাপুর এলাকায় স্কুলছাত্রী গণধর্ষণ মামলার আসামিদের ধরতে গেলে পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। এ সময় আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি ছোড়ে পুলিশ। এতে গণধর্ষণ মামলার প্রধান দুই আসামি নিহত হয়েছে। এএসআই শিখর আরো বলেন, পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত দুই ব্যক্তি চরসামাইয়া এলাকার ‘স্কুলছাত্রী’ গণধর্ষণ মামলার আসামি আল আমিন ও মঞ্জুর আলম।
চাঁদরাতে মেহেদি দিয়ে সাজতে গিয়ে তাদের হাতে গণধর্ষণের শিকার হয় ষষ্ঠ শ্রেণির ওই ছাত্রী। নিহতদের মরদেহ ভোলা সদর হাসপাতালে রয়েছে। গণধর্ষণের শিকার স্কুলছাত্রীর পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, সদর উপজেলার উপজেলার চরসামাইয়া ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের চরসিফলি গ্রামের এক কৃষক ঈদ উপলক্ষে তার আদরের দুই মেয়ের জন্য বাজার থেকে মেহেদি কিনে আনেন। রোববার সন্ধ্যার দিকে তাদের বাবা গরু বিক্রি করার  পৃষ্ঠা ২ কলাম ১
টাকা আনতে ভোলা শহরে যান। বাবা শহরে চলে যাওয়ার পর দুই বোন রাত ৮টার দিকে প্রতিবেশী দুঃসম্পর্কের আত্মীয় মাহফুজের স্ত্রীর কাছে হাতে  মেহেদি দিয়ে সাজতে যায়। ওই সময় আগে থেকে অপেক্ষমাণ মাহফুজের ঘরের ভাড়াটিয়া আল আমিন ষষ্ঠ শ্রেণিতে পড়ুয়া স্কুলছাত্রীকে  ডেকে তার ঘরে নিয়ে যায়। এ সময় আলমিনের স্ত্রী ঘরে ছিল না। এ সুযোগে ওই ছাত্রীকে আলামিন ও তার সহযোগী মঞ্জুর আলম হাত-পা ও মুখে কাপড় বেঁধে ধর্ষণ করে পালিয়ে যায়। পরে ছাত্রীর চিৎকারে স্থানীয়দের সহযোগিতায় তাকে উদ্ধার করে মুমূর্ষু অবস্থায় ভোলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে ওই ছাত্রীকে সোমবার ঈদের দিন বরিশালের শের-ই-বাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যালয় (শেবাচিম) হাসপাতালে পাঠানো হয়।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

স্টোকসের অবিশ্বাস্য ইনিংসে ইংল্যান্ডের ইতিহাস গড়া জয়

শুল্কমুক্ত গাড়ি সুবিধা মুহিতের সুনামের সঙ্গে মানানসই হবে না: টিআইবি

রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংককে আর কোনো অর্থ দেয়া হবে না

বিদেশগামীদের সঙ্গে প্রতারণা ঠেকাতে নজরদারি জোরদারের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

নিকাহনামা থেকে কুমারি শব্দ বাদ দেয়ার নির্দেশ

মাহীকে দুদকের জিজ্ঞাসাবাদ, যাননি স্ত্রী

ডেঙ্গুতে মৃত্যু থামছে না

স্কুল থেকে মেয়েকে নিয়ে ফেরা হলো না আফছারের

৬ মাসে খেলাপি ঋণ বেড়েছে ১৮ হাজার কোটি টাকা

কোনো ষড়যন্ত্রই উন্নয়ন বাধাগ্রস্ত করতে পারবে না-সালমান এফ রহমান

দেড় মাসেও খোঁজ মেলেনি সিলেটের নাসিমার

নাগরিকত্ব দিলে একসঙ্গে ফেরার ঘোষণা

দায়বদ্ধতা ও প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে মনোনিবেশ করুন

এডিসের বিরুদ্ধে বাড়ি বাড়ি অভিযান

প্রথম দিনেই উত্তাপ ছড়াচ্ছে জি-৭ সম্মেলন

রোহিঙ্গা ক্যাম্প এলাকায় সহিংসতায় নাগরিকদের ‘সতর্ক’ করলো বৃটেন