আলাপন

‘এখন যে কেউ গায়ক কিংবা গায়িকা বনে যাচ্ছে’

বিনোদন

ফয়সাল রাব্বিকীন | ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার | সর্বশেষ আপডেট: ৮:০২
গুণী সংগীতশিল্পী ফাহমিদা নবী। ধারাবাহিকভাবে শ্রোতাদের বেশ কিছু জনপ্রিয় গান তিনি উপহার দিয়েছেন। অডিওর বাইরে চলচ্চিত্রের গানেও তিনি পেয়েছেন সফলতা। বর্তমানে নতুন গানের বাইরেও দেশ-বিদেশের স্টেজ শো নিয়ে ব্যস্ত এ সংগীত তারকা। সব মিলিয়ে কেমন আছেন? ফাহমিদা নবী বলেন, বেশ ভালো আছি। ভালো থাকার চেষ্টা করি সব সময়। বর্তমান ব্যস্ততা কি নিয়ে? ফাহমিদা বলেন, ব্যস্ততা তো অবশ্যই গান নিয়ে। স্টেজ শো ও বিভিন্ন চ্যানেলের অনুষ্ঠানের শুটিং নিয়ে ব্যস্ত থাকছি। তাছাড়া নতুন গানের রেকর্ডিং নিয়ে ব্যস্ত থাকতে হয়। এই আর কি। নতুন গানের কাজ সম্পর্কে বলুন। কি কাজ করছেন? ফাহমিদা নবী বলেন, নতুন গানের কাজ আসলে মোটামুটি সব সময় চলতে থাকে। সম্প্রতি ‘সমান্তরাল দুটি রেখা এক তো হবার নয়’- এমন কথার একটি নতুন গানের কাজ করেছি। এর ভিডিওর শুটিংও শেষ মোটামুটি। এর বাইরে আরো কয়েকটি নতুন গানের কাজও চলছে। এগুলো সামনে নির্দিষ্ট সময় পর পর প্রকাশ হবে। বর্তমানে অডিও ইন্ডাস্ট্রির অবস্থা কেমন মনে হচ্ছে? ফাহমিদা নবী বলেন, এখন সংগীত ইন্ডাস্ট্রির অবস্থা অস্থির। কোম্পানির বাইরেও যে কেউ ইউটিউবে গান প্রকাশ করতে পারছে। এটা ইতিবাচক হিসেবে নেয়া উচিত ছিলো। কিন্তু দেখা যাচ্ছে এখন যে কেউ গায়ক কিংবা গায়িকা বনে যাচ্ছে। এটা কিন্তু ভয়ংকর একটি ব্যাপার। যার যেটায় জ্ঞান নেই সে সেটা হতে চাইছে। এটা শুধু সংগীতের ক্ষেত্রে নয়, সব ক্ষেত্রেই হচ্ছে। যার যেটা হবার যোগ্যতা নেই তার সেটা হবার চেষ্টা করাও উচিত নয়। আমাদের মিউজিক ইন্ডাস্ট্রির কথা যদি বলি দেখা যাচ্ছে সবাই গায়ক কিংবা গায়িকা হতে ব্যস্ত। গীতিকার, সুরকার ও সংগীত পরিচালকদের ক্ষেত্রেও তেমনই অবস্থা। এ কারণে কিন্তু গানের মান আর থাকছে না। এখন মানহীন গানের ভীড়ে ভালো গানগুলোও হারিয়ে যাচ্ছে। কারণ মানহীন গানের সংখ্যা বেশি, প্রচারণা বেশি। কিন্তু এখান থেকে উত্তরনের পথ কি? ফাহমিদা নবী বলেন, সচেতনতা তৈরি হতে হবে নিজের মাঝে। শ্রোতাদের সচেতন হতে হবে। যারা গানের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট তাদের সচেতন হতে হবে। তবে যদি উপলব্ধি বিষয়টা নিজের মাঝে না থাকে তাহলেতো হবে না।  কেউ যদি বুঝতে না চায়, তাকে জোর করে বোঝানো যায় না। তাই উপলব্ধিটাই সব থেকে বড় বিষয়। এ প্রজন্মের গান কি শোনা হয়? তারা কেমন করছে বলে মনে হয়? ফাহমিদা নবী বলেন, অবশ্যই শোনা হয়। অনেক অস্থিরতার মধ্যেও যে মেধাবী শিল্পী, সুরকার, গীতিকার ও সংগীত পরিচালক আমাদের নেই, তা বলবো না। অনেকেই ভালো করছে। অনেকের গান আমার ব্যাক্তিগতভাবে পছন্দ। আমি বিশ্বাস করি তারা সঠিক জায়গায় থাকলে অনেক দূর পর্যন্ত যাবে। তবে রাতারাতি তারকা হবার প্রবণতাটা এখন বেশি। এখান থেকে বের হয়ে আসতে হবে। কাজ যদি মানসম্পন্ন হয় তবে সেটাই একদিন তাকে তারকায় পরিণত করবে। তারকা হবার চেষ্টার দরকার নেই। ফাহমিদা নবী আরো বলেন,  একটা কথা আছে যারা দ্রুত ওপরে ওঠে তারা দ্রুতই পড়ে যায়। এ কথার সঙ্গে আমি একমত। তাই তরুণ প্রজন্মকে বলবো ভালো কথা-সুরের প্রতি মনোযোগী হতে। শিখার কোন শেষ নেই। প্রতিনিয়ত শেখার চেষ্টা করতে হবে। আমি নিজেও ছোট-বড় সবার কাছ থেকে শেখার চেষ্টা করি। সংগীত শিক্ষার আসলে শেষ নেই। তাই সব সময় শিখে যাওয়ার চেষ্টা করতে হবে। আর একটা কথা বলতে চাই, সেটা হচ্ছে মানুষ হিসেবে ভালো হওয়ার চেষ্টা করতে হবে। সেটাই একজন শিল্পীকে বড় করে, বাঁচিয়ে রাখে।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

টসে হেরে ফিল্ডিংয়ে বাংলাদেশ

ভিকারুননিসার নতুন অধ্যক্ষ নিয়োগ

যশোরে বোমা নিষ্ক্রি করতে গিয়ে বিস্ফোরণে র‌্যাব সদস্য আহত

মেসেজ ক্লিয়ার

মেডিকেল মিরাকল ঘটানো সেই দম্পতি আইসিইউতে

আপত্তিকর মন্তব্য করায় টিআইবিকে বেক্সিমকো’র চিঠি

বার্সার জয়ে ফাতির ইতিহাস

পুলিশকে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী

গোয়ালঘরে মা

বাস চাপায় ছাত্রলীগের তিন নেতা নিহত

শোভন ও রাব্বানীকে আইনের আওতায় আনার দাবি বিএনপি নেতা সোহেলের

রাব্বানীকে জিএস পদ থেকে অপসারণের আল্টিমেটাম

মিরপুরে গার্মেন্টস কর্মীদের সড়ক অবরোধ

গডফাদাররা নিরাপদে

কুকুরের মৃত্যুতে ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রীর শোক, ফুলের মালা দিয়ে শেষ শ্রদ্ধা

টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ এক রোহিঙ্গা নিহত