ব্যথামুক্ত নরমাল ডেলিভারি সেবা দিচ্ছে ইমপাল্‌স হাসপাতাল

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার | ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শুক্রবার
ব্যথামুক্ত নরমাল ডেলিভারি সেবা দিচ্ছে ইমপাল্‌স হাসপাতাল। রাজধানীর প্রাণকেন্দ্র তেজগাঁয়ে ইমপাল্‌স হসপিটাল সর্ম্পূণ আধুনিক সুবিধাসহ গর্ভবতী মায়েদের দিচ্ছে স্বাভাবিক ও ব্যথাবিহীন প্রসবের এই সুবিধা। ১১ই সেপ্টেম্বর এক সংবাদ সম্মেলনে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ এ তথ্য তুলে ধরেন। এ সময় সিঙ্গাপুরের ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি হাসপাতালের সিনিয়র কনসালটেন্ট ডা. মো. তৌফিক ইসলাম এবং আয়ারল্যান্ড ওয়াটারফোর্ড ইউনিভার্সিটি হাসপাতাল’র সিনিয়র কনসালটেন্ট জিন্নুরাইন জয়গিদার এবং পোর্টিয়নকুলা ইউনিভার্সিটি হাসপাতাল’র সিনিয়র কনসালটেন্ট ডা. কাজী নাফিজা হামিদ উপস্থিত ছিলেন। বাংলাদশে বেসরকারি হাসপাতালে প্রসবের ৮০ শতাংশেরও বেশি সিজারের মাধ্যমে হয়ে থাকে, যা ঝুঁকিপূর্ণ এবং ব্যয়বহুল হলেও সম্পূর্ণ অপ্রয়োজনীয়। এক গবেষনায় দেখা গেছে, প্রতি বছর সিজারের মাধ্যমে সন্তান প্রসব করার জন্য সারা দেশে রোগীদের কাছ থেকে প্রায় ১২০০ কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়া হয়। যা সর্ম্পূণ অপ্রয়োজনীয় ও ঝুঁকিপূর্ণ কারণ এধরনের ডেলিভারি মা এবং শিশু দুজনকেই ঝুঁকির মধ্যে ঠেলে দেয়। অনেক গর্ভবতী মা প্রায়ই ব্যথা আতঙ্কের কারণে সন্তান প্রসব করার জন্য অস্ত্রোপচার করতে বাধ্য হন। তবে অতিরিক্ত অর্থ খরচ করার পরেও তাদের প্রসব পরবর্তী দীর্ঘ মেয়াদী বিভিন্ন জটিলতার সম্মুখীন হতে হয়। স্বাগত বক্তব্যে ইমপাল্‌স হেলথ সার্ভিসেস অ্যান্ড রিসার্চ সেন্টার লিমিটেড’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক অধ্যাপক ডা. জাহের আল-আমিন বলেন, সিজারিয়ান কোন মতেই স্বাভাবিক প্রসবের বিকল্প হতে পারে না। আবার আধুনিকতার নিরিখে প্রসবের সময় ব্যথাও কোনমতে কাম্য নয়। এসব চিন্তা করেই আমরা গত বছর থেকে ব্যথামুক্ত নরমাল ডেলিভারী শুরু করে যথেষ্ট সাফল্যও অর্জন করেছি। সিজারিয়ান প্রসবের কারণে মায়েরা অনেকগুলি সমস্যার সম্মুখীন হয়ে থাকেন। কারণ এটি একটি অপারেশন যা সাধারণ প্রসবের মাধ্যমে এড়ানো সম্ভব। সাধারণ ব্যথাহীন নরমাল ডেলিভারির জন্য যা প্রয়োজন তা হচ্ছে একটি সুসজ্জিত ব্যবস্থাপনা, পর্যাপ্ত এনেসথিয়েসিস্ট, ২৪ ঘণ্টার জন্য সার্বক্ষণিক কনসালটেন্টদের উপস্থিতি, যার মাধ্যমে প্রি-ডেলিভারি, ডেলিভারি এবং ডেলিভারি পরবর্তী সেবা দক্ষতার সঙ্গে করা সম্ভব। ইমপাল্‌স হসপিটাল হচ্ছে বাংলাদেশে একমাত্র স্বাস্থ্য কেন্দ্র যেখানে মায়েরা পাবেন সর্বোত্তম ব্যথাহীন স্বাভাবিক ডেলিভারি সেবা। এই উদ্যোগকে আরো বেগবান এবং অত্যাধুনিক করতে আমরা বিদেশ থেকে বিশেষ টিম এনেছি যারা আগামী ১ সপ্তাহ সারাক্ষণ এখানে থেকে ইমপালসের সমস্ত ডেলিভারী পরিচালনা করবেন এবং আমাদের স্থানীয় যে দূর্বলতা/ফাঁকফোকর রয়েছে তা দূর করতে সক্ষম হবেন। ডা. কাজী নাফিজা হামিদ তার উপস্থাপনায় বলেন, উন্নত বিশ্বে সব মা-ই ব্যথামুক্ত নরমাল ডেলিভারি প্রত্যাশা করে থাকে। তারা চায় সন্তান প্রসবের পরবর্তী যেসব সেবার দরকার হয় তাও হতে হবে ব্যথামুক্ত। এপিডুরাল অ্যানালজেসিয়া পদ্ধতি সম্পর্কে বর্ণনা করতে তিনি বলেন, এটি ব্যবহার করলে রোগীরা সম্পূর্ণ ব্যথা মুক্তভাবে তাদের সন্তান প্রসব করতে পারে।


এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Kazi

২০১৯-০৯-১২ ২০:৪৮:১০

I am not living in Bangladesh. But I know many cases of relatives they feel proud of cesarean operations. Many relatives call us to send money to help bear the cost. Later they show proudness to other poor relatives.

আপনার মতামত দিন

ক্যাসিনো গডফাদারদের তালিকা ধরে অভিযান

আপনারা এতদিন আঙ্গুল চুষছিলেন?

শিক্ষায় ইদান প্রাইজে ভূষিত ফজলে হাসান আবেদ

নেপালিদের খুঁজছে র‌্যাব

নূরকে ফেরানোর আইনি লড়াইয়ে এগোলো বাংলাদেশ

ছাত্রদলে নতুন নেতৃত্ব

যুবলীগের কমিটি ভেঙে দেয়া নিয়ে আলোচনা

শিশু একাডেমির ডিজি’র পদত্যাগ চান শিশুসাহিত্যিকরা

শিমুল হত্যা মামলা চলতে বাধা নেই

সিদ্ধিরগঞ্জে মা ও দুই সন্তানকে গলা কেটে হত্যা

শিবগঞ্জে যুবকের দুই কব্জি কেটে নিলো সন্ত্রাসীরা

জুনিয়র চেম্বার ইন্টারন্যাশনালের পুরস্কার পেলেন শায়ান এফ রহমান

ক্যাসিনোয় প্রশাসনের কেউ জড়িত থাকলে ব্যবস্থা

মসজিদের শহরকে ক্যাসিনোর শহরে পরিণত করেছে সরকার

হেরফের নেই পিয়াজের বাজারে

ফারমার্স ব্যাংকে জালিয়াতির ঘটনায় ৩ জনের ব্যাংক হিসাব জব্দ