হার মানতে নারাজ

ষোলো আনা

ষোলো আনা ডেস্ক | ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, শুক্রবার | সর্বশেষ আপডেট: ৫:০৫
প্রতীকী ছবি
আমেনা বেগম। বয়স মাত্র ৩৫। স্বামীর সঙ্গে যোগাযোগ নেই তার। শুধু জানেন ঢাকায় থাকেন। বিয়ে করেছেন আরেকটা। ২ বছর ধরে কোনো যোগাযোগ নেই। এক পুত্রসন্তানকে নিয়ে যুদ্ধ তার। ছেলে আমিনুর রহমান পড়ে পঞ্চম শ্রেণিতে।
হেরে যাওয়ার পাত্র নন তিনি। কঠোর পরিশ্রমী হত দরিদ্র আমেনা দেখছেন নতুন স্বপ্ন।

আমেনার বাড়ি নীলফামারী জেলার, ডোমারে। স্বামী চলে যাওয়ার পর থেকে থাকেন বাবার বাড়িতে। মিলেছে কোনোরকম মাথা গোঁজার ঠাঁই। এখানে তিনি পালন করেন গরু। তার তত্ত্ব্বাবধানে বড় হয় দু’টি গরু। পরম যত্নে গরু দু’টি ৮ মাস ধরে পালন করেছেন তিনি। বিক্রির জন্য দিয়ে দেন বড় ভাইয়ের হাতে। তার ভাই ধানের ব্যবসা করেন। তবে কোরবানি ঈদে বিভিন্ন এলাকা থেকে গরু নিয়ে ঢাকায় বিক্রি করেন।

বড় ভাই রাজধানীতে আনেন ১৮টি গরু। সব গরু বিক্রি হয়। আর তার বোনের গরু দু’টি বিক্রি করে মেলে প্রায় ২ লাখ টাকা। এতে লাভ হয় প্রায় ৮০ হাজার টাকা। এই টাকা দিয়ে আবার ২টি গরু কিনেছেন ৪৫ হাজার টাকা দিয়ে। বাকি টাকা সারা বছরের চলার রশদ। এছাড়াও তিনি করেন মৌসুমি বিভিন্ন কৃষি কাজ।


এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

১০ দিনের রিমান্ডে ক্যাসিনো সম্রাট

ঢাকা কলেজ ছাড়লেন আবরারের ভাই

আবরার হত্যাকাণ্ড নিয়ে কূটনীতিকদের মন্তব্য ‘অহেতুক’

চার্জশিটভুক্তরা স্থায়ী বহিষ্কার না হওয়া পর্যন্ত ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন

নবম ওয়েজ বোর্ডের গেজেট কেন অবৈধ নয়

আরেক আসামি গ্রেপ্তার

পিয়াজের ফের সেঞ্চুরি

তাদের ছাতা খোঁজা হচ্ছে

যেন একেকটি টর্চার সেল

লাখ কোটি টাকায় আরো দুই মেট্রোরেল প্রকল্প অনুমোদন

কীন ব্রিজ নিয়ে নাটকীয়তা

মেয়াদ শেষেও আলোর মুখ দেখেনি যুবদলের পূর্ণাঙ্গ কমিটি

বাবার কোলেই ঘুমন্ত তুহিনকে জবাই করে চাচা

বড়পুকুরিয়া খনির সাবেক ৭ এমডিসহ ২৩ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে পরোয়ানা

এমপিও নীতিমালা সংশোধনের দাবিতে শিক্ষকদের গণঅবস্থান

মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ