২ কর্মকর্তা লাপাত্তা

প্রথম পাতা

স্টাফ রিপোর্টার | ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, রোববার | সর্বশেষ আপডেট: ৩:৪৬
টেন্ডার মুঘল শামীমের কাছ থেকে দেড় হাজার কোটি টাকা ঘুষ নেয়া গণপূর্তের দুই প্রকৌশলী লাপাত্তা। এর মধ্যে রয়েছেন সদ্য সাবেক এক প্রধান প্রকৌশলী মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম ও আরেক সাবেক অতিরিক্ত প্রকৌশলী আব্দুল হাই। টেন্ডার পেতে শামীম বিভিন্ন সময় রফিকুল ইসলামকে ঘুষ দিয়েছেন ১ হাজার ১০০ কোটি ও আব্দুল হাইকে দিয়েছেন ৪০০ কোটি টাকা। কিন্তু শামীম র‌্যাবের হাতে গ্রেপ্তারের পর এই দুই প্রকৌশলীকে আর খোঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। ধরা পড়ার ভয়ে তারা গাঁ ঢাকা দিয়েছেন।

এদিকে অনুসন্ধানে জানা গেছে, গণপূর্ত অধিদফতরের সাবেক প্রধান প্রকৌশলী মোহাম্মদ রফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে অনিয়ম, দুর্নীতি ও টেন্ডার বাণিজ্য করে হাজার কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ রয়েছে। অবৈধ অর্থ দিয়ে কানাডায় বাড়ি কিনেছেন তিনি। চাকুরিতে থাকার সময় সাবেক গণপূর্ত মন্ত্রী ও সচিবের কালেক্টর ছিলেন এ প্রধান প্রকৌশলী।
বিভিন্ন সূত্র থেকে পাওয়া তথ্যে জানা গেছে, রফিকুল ইসলাম কানাডায় নিকটাত্মীয়ের নামে বাড়ি কিনেছেন। এছাড়া প্রথম ঘরের স্ত্রীর ছেলে শাওনের মাধ্যমে হংকংয়ের এইচএসবিসি ব্যাংকে ২০০ কোটি টাকা জমা রেখেছেন। অভিযোগ রয়েছে, রফিকুলের নামে ঢাকায় একাধিক বিলাসবহুল বাড়ি ও ফ্ল্যাট রয়েছে। ধানমন্ডির ৮নং রোডে হাউজ নং-৯, রাজধানীর গ্রীনরোডের গ্রিন কর্নার নামের অ্যাপার্টমেন্টে আলিশান দুটি ফ্ল্যাট, গুলশানের ৩৫নং রোডে ৪৪নং বাড়িতে বিলাসবহুল ফ্ল্যাট এবং বনানীর ৭নং রোডে এফ/১৭ আনোয়ার মঞ্জিল নামে একটি বাড়ি রয়েছে।

এছাড়া মিরপুরে ১০ কাঠা জমির ওপর ১২টি ফ্ল্যাটবিশিষ্ট ছয়তলা বাড়ির মালিকও তিনি। চাকুরিতে থাকার সময়ে গণপূর্ত অধিদপ্তরের প্রতিটি বড় বড় কাজের টেন্ডার থেকে ‘নেগোসিয়েশন মানি’ হিসেবে রফিকুল ইসলাম এবং জি কে বিল্ডার্সের মালিক গোলাম কিবরিয়া শামীম শতকোটি টাকা ভাগবাটোয়ারা করেন। একইভাবে আবদুল হাইও অবৈধভাবে শত শত কোটি টাকার সম্পদ অর্জন করেছেন। তার সঙ্গে টেন্ডার মুগল শামীমের যোগসাজস ছিল।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Kazi

২০১৯-০৯-২৩ ১৭:১৭:০৯

রফিকুল ইসলামকে ঘুষ দিয়েছেন ১ হাজার ১০০ কোটি ও আব্দুল হাইকে দিয়েছেন ৪০০ কোটি টাকা। এদের ধরে পাচায় বাদাম দিয়ে টাকার হদিস বের করা প্রয়োজন ও টাকা উদ্ধার করা জরুরি । টেন্ডার ওভার প্রাইসিং করে সরকারী টাকা তারা শামীম থেকে নিত। বর্তমানে প্রতিটি টেন্ডার মূল্য তৃতীয় পক্ষ দিয়ে নিরীক্ষা করে টেন্ডার কল করা উচিত । ভারতে যে কাজ যে দামে সম্পন্ন হয় বাংলাদেশে দ্বিগুণ তিনগুণ মূল্যে তার টেন্ডার হয়। তারপর ও কাজটাও টেকসই হয় না। ধ্বসে পড়ে কাজ চলমান অবস্থায় অথবা ১০/১৫ বছরের মধ্যে।

Md Harun al Rashid

২০১৯-০৯-২৩ ১৬:০৫:৩৯

এই সংস্হার অফিসগুলোর বর্তমান কর্তাব্যত্তিদের বক্তব্য কি? এদের সম্পদের হিসেব নেয়া হোক।

Kazi

২০১৯-০৯-২৩ ০০:২৮:৫৩

To stop corruption, only means to continue comparing the assets of a person with legal income. If it doesn't match to seize property beyond income.

ইকবাল কবির

২০১৯-০৯-২২ ২১:৩৪:২১

টিআইবি কোন সরকারের আমলে দেশ কে দূর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন বানিয়ে ছিলো সেটা এখন মূখ্য বিষয় নয়,দেশের জনগন দেখছে তাদের চারপাশের ফকিন্নির পোলারা কি ভাবে কোটি পতি হচ্ছে,ক্ষমতা আকরে থাকার সুফল কারা পাচ্ছে? দলের নাম পুঁজি করে যে যে অবস্হানে আছেন সেখানেই লুটপাট করছেন, মুখে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার কথা বলে দেশটাকে কোথায় নিয়ে যাচ্ছেন তা দেশবাসী দেখতেই পাচ্ছেন।আমরা এখন ৩০ লাখ শহিদের রক্তে পাওয়া সোনার বাংলাদেশের সঙ্গে বিশ্বাস ঘাতকতা করছি।

Shahed

২০১৯-০৯-২২ ২১:০৬:২৫

নিরিহ জনগনকে করের আওতামুক্ত রেখে এইসব দূর্নীতিবাজদের তালিকা করে তাদের সম্পদ বাজেয়াপ্ত করা হউক এবং তাহা সরকারী কাজে ব্যয় করা হউক

shishir

২০১৯-০৯-২৩ ০৯:৫৬:১৭

nai

ফিদহার

২০১৯-০৯-২২ ২০:৪২:২৩

ত্রদের সব টাকা সরকারি কাজে ব্যায় করা হোক ত্রদের ঘর বাড়ী সব সরকারের আয়াতে নিয়ে যাক

আপনার মতামত দিন

সুন্দরবনে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৪ বনদস্যু নিহত

শায়েস্তাগঞ্জে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় যুবক নিহত

নবীনগর পৌরসভায় আওয়ামী লীগ প্রার্থী জয়ী

লক্ষ্মীপুরে দু’দল ডাকাতের ‘গোলাগুলি’তে একজন নিহত

যেভাবে ভারতের ওপর নির্ভরশীলতার ইতি টানতে চায় নেপাল

শায়েস্তাগঞ্জে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ডাকাত নিহত

মুখোমুখি তুরস্ক ও সিরিয়ার সেনাবাহিনী?

৪৩ জনের তালিকা শ’ শ’ কোটি টাকা পাচারের তথ্য

দলবেঁধে বিদেশ ভ্রমণ

টাকার মান কমানোর উদ্যোগ যা ভাবছেন বিশ্লেষকরা

ছাত্ররাজনীতি বন্ধ হওয়া উচিত

দুদক চেয়ারম্যানের পদত্যাগ করা উচিত

গণভবনে আবরারের বাবা-মা, দ্রুত বিচারের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

চার বড় ভাইকে নিয়ে সিলেটে নানা জল্পনা

ড. ইউনূসের গ্রেপ্তারি পরোয়ানা স্থগিত

পরিবেশ রক্ষা করেই সুন্দরবন এলাকায় উন্নয়ন হচ্ছে- সালমান এফ রহমান