প্রধানমন্ত্রী বলে গেছেন অভিযান অব্যাহত রাখতে

প্রথম পাতা

স্টাফ রিপোর্টার | ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার | সর্বশেষ আপডেট: ৫:৫১
গডফাদার ও দুর্নীতিবাজদের সঙ্গে কোনো আপস হবে না বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের  সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, নিজের দলের লোক অপরাধ করলেও তাকে ছাড় দেয়া হবে না। গতকাল সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সভা কক্ষে সমসাময়িক বিষয় নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ সব কথা বলেন। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়ার আগে নির্দেশনা দিয়ে গেছেন এই অভিযান যেন অব্যাহত থাকে। দুর্নীতি ও অপরাধের বিরুদ্ধে অভিযান চলবে। গডফাদার ও দুর্নীতিবাজদের সঙ্গে কোনো আপস হবে না। দুর্বৃত্তদের চক্র ভাঙতে হবে যতদিন প্রয়োজন হবে, ততদিন এই অভিযান চলবে। অবৈধ ক্যাসিনোর বিরুদ্ধে অভিযান শুরুর পর অনেকেই গা ঢাকা দিয়েছে জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, অপরাধী যেই হোক কেউই ছাড় পাবে না।
সরকার আটঘাট বেঁধেই নেমেছে। দুর্নীতি, দুর্বৃত্তায়ন, মাদক, সন্ত্রাসী কার্যক্রম যতদিন চলবে ততদিন অভিযান চলবে। ইতিবাচক রাজনীতি করলে সরকারের এই অভিযানকে বিএনপি সাধুবাদ জানাতো মন্তব্য করে তিনি বলেন, বিএনপির সৎসাহস নেই বলে হাওয়া ভবন, খোয়াব ভবন নামে যে দুর্নীতি হয়েছে, তাদের ধরতে পারেনি। সরকারের জনপ্রিয়তা বাড়ায় তাদের গাত্রদাহ হচ্ছে। ‘জিকে শামীম কাজ পেতে বিপুল অংকের টাকা ঘুষ দিয়েছেন বলে শোনা যাচ্ছে, এ বিষয়টি তদন্ত করবেন কি না’ সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন,আপনারা একটু বের করুন কাদের কাদের ঘুষ দিয়েছে। কেউ বসে নেই। সরকারের পক্ষ থেকে আটঘাট বেঁধেই নেমেছি, এখানে কোনো প্রকার আপস নেই। তিনি বলেন, আমরা ব্যবস্থা নিচ্ছি, বেটার লেট দেন নেভার। আমরা তো কাজটা করছি, সরকারের এক বছরও এখনও যায়নি। নট দ্যাট আমরা ইলেকশনকে সামনে রেখে এই ব্যবস্থাগুলো নিচ্ছি ভোটের জন্য। আমি বলছি, আমরা মিন করছি,যা করছি। জেলা পর্যায়ে এই অভিযান চলবে কি না জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, অলরেডি চলছে। ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের সভাপতি ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাট প্রসঙ্গে জানতে চাইলে সাংবাদিকদের ওবায়দুল কাদের বলেন,যারা নিজেদের আড়াল করে রেখেছেন তাদের খোঁজা হচ্ছে। অপর এক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, যারা অপরাধী তারা আগে কে কী দল করেছে, সেটি বড় কথা না।  সেটি আমরা দেখছি না। এখন তারা আওয়ামী লীগের কর্মী, আমরা সে বিবেচনায় তাদের বিচার করছি। অভিযান সম্পর্কে যুবলীগ চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরীর মন্তব্যের জবাব দেন তিনি। মন্ত্রী বলেন, কে কী মন্তব্য করেছেন তা দেখার সময় নেই। এ অভিযান দুর্নীতি, মাদক সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে। এ নিয়ে সমালোচনা করার সুযোগ নেই। সরকার, দল এবং আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর চোখের সামনে এমন ভয়াবহ মাদক, জুয়া ব্যবসা কিভাবে গড়ে উঠেছে? এমন প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের সাংবাদিকদের দিকেই আঙ্গুল তোলেন। তিনি বলেন, অনুসন্ধানী সাংবাদিকতার মাধ্যমে গনমাধ্যমকর্মীরাও এসব তুলে ধরতে পারতেন। সংবাদপত্রে প্রতিবেদন দেখে নেতাকর্মীরা ভুল-ভ্রান্তি শুধরে যান বলে উল্লেখ করেন তিনি।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

পদ হারালেন ওমর ফারুক

১০ বছর আমার চেহারা ভালো ছিলো এখন খারাপ হয়েছে: ওমর ফারুক চৌধুরী

যুবলীগের প্রস্তুতি কমিটি গঠন

সিঙ্গাপুরে রাজার হালে ক্যাসিনো ডন সাঈদ

মোহাম্মদপুরের সুলতানের পতন

ঢাবি অ্যালামনাই এসোসিয়েশনে কেন যেতেন জি কে শামীম

সম্রাটের অস্ত্র ভাণ্ডারের খোঁজ মিলেছে

পাক-ভারত সীমান্তে গুলির লড়াই

মেননের বক্তব্যে তোলপাড়

ঢাবিতে ফের ছাত্রদলের ওপর হামলা

খালেদা জিয়াকে দেখতে যাবেন ঐক্যফ্রন্ট নেতারা

মন্ত্রী হলে কি এ কথা বলতেন?

অবৈধ উপায়ে নির্বাচনে জয়ীদের কোনো বৈধতা থাকে না

সাগর-রুনি হত্যা মামলার তদন্ত কর্মকর্তাকে তলব

ওয়াসার পানি সরাসরি পানের নিশ্চয়তা দিতে হবে

বাংলাদেশে এখন বিশ্বের আধুনিক আইটি সিস্টেম রয়েছে: জয়