আমরা উন্নয়ন করেছি দুর্নীতিতে- সুলতানা কামাল

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার | ১০ অক্টোবর ২০১৯, বৃহস্পতিবার | সর্বশেষ আপডেট: ৩:২৬
আমরা দুর্নীতিতে উন্নয়ন করেছি বলে মন্তব্য করেছেন সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা সুলতানা কামাল। তিনি বলেন, যেটার কিছু কিছু নমুনা এখন বের হয়ে আসছে। শুধু ক্যাসিনো কেন্দ্রিক শুদ্ধি অভিযান শুরু হয়েছে। কিন্তু, অন্যদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছেলেদের পিটিয়ে মেরে ফেলা হচ্ছে। ক্ষমতা দেখিয়ে মানুষের ওপরে অন্যায় আচরণ করা হচ্ছে। ব্যাংক লুট করা হচ্ছে, শেয়ারবাজারে কেলেঙ্কারি হচ্ছে। গতকাল রাজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবে প্রতিবন্ধী নারী জাতীয় পরিষদ আয়োজিত প্রতিবন্ধী ব্যক্তির অধিকার ও সুরক্ষা আইন, ২০১৩: বাস্তবায়ন, বিদ্যমান পরিস্থিতি ও করণীয়’ শীর্ষক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।
মানবাধিকারকর্মী সুলতানা কামাল বলেন, আমরা যে মুখে বলি একটা সমতার দেশ তৈরি করেছি, উন্নয়নের এক্কেবারে মহাসড়কে চলে গেছি।
বাংলাদেশ সারা বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল হয়ে গেছে, সবকিছু হয়ে গেছে। কিন্তু, এই উন্নয়নের সঙ্গে আমরা কী মানবিকতাকে সামনে এগিয়ে নিয়ে যেতে পেরেছি? উন্নয়নের সঙ্গে সভ্যতার তাল মিলিয়ে চলতে পেরেছি?
তিনি আরো বলেন, উন্নয়ন বলতে আমরা কী বুঝতে পারছি? উন্নয়ন বলতে রাস্তাঘাট, সেতু-ইমারত, বড় প্রকল্প যেখানে বালিশ কিনতে লাগে ১৪ হাজার টাকা, বালিশ তুলতে লাগবে আরও ৪ হাজার টাকা। তাহলে আমরা প্রচ- উন্নয়ন করেছি দুর্নীতিতে।


 


এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

আবরার ইস্যুতে বিবৃতি দেয়ায় জাতিসংঘ দূতকে তলব

বুয়েটে ভর্তি পরীক্ষা আজ কাল থেকে ফের আন্দোলন

পুলিশের বাধায় ঐক্যফ্রন্টের র‌্যালি পণ্ড

সঞ্চয়পত্র বিক্রি কমছে ব্যাংক খাতে সরকারের ঋণ বাড়ছে

মাহিমের চোখের সামনেই মাকে কেড়ে নিল ঘাতক ভ্যান

রাজীবের দুই ভাইকে ১০ লাখ টাকা দেয়ার নির্দেশ

শেখ হাসিনার অ্যাকশন শুরু হয়ে গেছে : কাদের

এবছর ভারতের চেয়ে বেশি দ্রুত বাড়বে বাংলাদেশের অর্থনীতি: বিশ্বব্যাংক

‘আবরার তখন মাগো মাগো বলে চিৎকার করছিলো’

মেজর হাফিজের জামিন

দুর্যোগ মোকাবিলায় বাংলাদেশ রোল মডেল

পুরো ক্যাম্প নিয়ন্ত্রণ নয়, কাঁটাতারের বেড়া নির্মাণ করবে সেনাবাহিনী

আমার ছেলে নির্দোষ

আবরারের ভাইকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সহযোগিতা দিতে প্রস্তুত: আইনমন্ত্রী

‘নকল করে ফার্স্ট ক্লাস ফার্স্ট হয়ে কোনো লাভ হবে না’

ক্যানসারে এক বছরে দেড় লাখের বেশি আক্রান্ত মৃত্যু এক লাখ ৮ হাজার