মেহবুবা মুফতির প্রশ্ন- কাশ্মীরে সেনা কেন?

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১০ অক্টোবর ২০১৯, বৃহস্পতিবার
পাকিস্তান থেকে কথিত অত্যাসন্ন হামলা মোকাবিলার জন্য কাশ্মীরে সেনা মোতায়েন করেনি বিজেপি নেতৃত্বাধীন সরকার। তারা সেনা মোতায়েন করেছে কাশ্মীরের ভিন্নমতকে দমিয়ে রাখতে। এ অভিযোগ করেছেন জম্মু-কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি। অফিসিয়াল টুইটার একাউন্টে পোস্ট করা এক পোস্টে তিনি এ কথা বলেছেন। মেহবুবা গৃহবন্দি হওয়ার পর ওই টুইট একাউন্টটির ব্যবস্থাপনায় রয়েছেন তার মেয়ে ইলতিজা মুফতি। এ খবর দিয়েছে অনলাইন জি নিউজ।

প্রথম টুইটে তিনি প্রশ্ন রেখেছেন, সবকিছু যদি স্বাভাবিক থাকে তাহলে কাশ্মীরে কেন ৯ লাখ সেনা সদস্য তার ব্যাখ্যা কি? পাকিস্তান থেকে হামলা হবে এই কারণে তারা কাশ্মীরে নন। তারা শুধু কাশ্মীরে অবস্থান করছেন প্রতিবাদ বিক্ষোভকে থামাতে।
ভিন্নমত দমন করায় ব্যবহৃত হওয়ার পরিবর্তে সেনাবাহিনীর প্রথম দায়িত্ব হলো সীমান্তকে সুরক্ষিত রাখা।
 
পরের এক টুইটে তিনি যোগ করেন, বিজেপি জওয়ান কার্ড ব্যবহার করছে ও তাদের ভোটাধিকার ছিনতাই করছে। কিন্তু প্রকৃত সত্য হলো, কাশ্মীরিদের যদি কামানের তোপ হিসেবে বিবেচনা করা হয়, তাহলে কাশ্মীরে অসন্তোষ দমাতে সেনারা দাবার ঘুঁটিতে পরিণত হবেন। জওয়ান অথবা কাশ্মীেিদর প্রতি কোনো তোয়াক্কা করে না ক্ষমতাসীন দল।

মেহবুবা মুফতি হলেন কাশ্মীরের পিপলস ডেমোক্রেটিক পার্টির প্রধান। তিনি ভারতীয় সংবিধান থেকে অনুচ্ছেদ ৩৭০ বাতিল করার বিরুদ্ধে অব্যাহতভাবে কথা বলে আসছেন। ওদিকে কাশ্মীরে আটক রাজনীতিবিদদেরকে আজ বৃহস্পতিবার থেকে মুক্তি দেয়া শুরু হওয়ার কথা রয়েছে।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

কুবিতে গাঁজা সেবনকালে ২ ছাত্রলীগ নেতা আটক, কক্ষে পাওয়া গেলো হাতুড়ি

বোলপুরে দুই বাংলাদেশি পর্যটক হয়রানির স্বীকার

আটক আসামিকে নিয়ে অভিযান, ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ২

যুবলীগ চেয়ারম্যানসহ বিতর্কিতদের গণভবনে না যাওয়ার নির্দেশ

‘এটি একটি ভিন্নধর্মী পরিকল্পনা’

ফরিদপুরে দুই ভাইয়ের ত্রাসের রাজত্ব

সন্ত্রাস-সাম্প্রদায়িকতা রুখে দেয়ার শপথ বুয়েটে

সোহরাওয়ার্দীতে সমাবেশ করবে ঐক্যফ্রন্ট

সেই বড় ভাই কারা

ফের আলোচনায় আবদুল হাই বাচ্চু

অভিযান অব্যাহত থাকবে

মাটি কেনায় নয়ছয়ের পাঁয়তারা

ইন্টারগেশন সেলে মুুখোমুখি হচ্ছেন সম্রাট-আরমান

সড়কের দুই পাশে ট্রাক বাস রেখে চাঁদাবাজি করা হয় : শামীম ওসমান

কোনো উদ্যোগেই দাম কমছে না পিয়াজের

তদন্ত প্রতিবেদন ২০শে নভেম্বর