বেঙ্গালুরুর এপার্টমেন্টগুলোয় নিষিদ্ধ হচ্ছে ‘বাঙালি’ শ্রমিকরা

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ৫ নভেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার
ভারতের বেঙ্গালুরুর বহু এপার্টমেন্ট ভবনে ‘বাংলাভাষী’ শ্রমিক নিয়োগ দেয়া নিষিদ্ধ ঘোষণা হয়েছে। সম্প্রতি ভারতজুড়ে কথিত অবৈধ বাংলাদেশি অভিবাসীদের ওপর ভারত সরকারের সমন অভিযানের কারণে তারা এমন সিদ্ধান্ত নিতে উদ্ধুদ্ধ হচ্ছেন বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। শহরের প্রযুক্তি-সমৃদ্ধ এলাকাগুলোয় বাংলাদেশি সন্দেহে বাংলাভাষী গৃহকর্মী, নিরাপত্তারক্ষী ও অন্যান্য শ্রমিকদের নিয়োগ দেয়া বন্ধ হচ্ছে। বিভিন্ন ভবন ও প্রতিষ্ঠানের মালিকেরা শ্রমিক প্রদানকারী সংস্থাগুলোয় এমন শ্রমিক না পাঠানোর আহ্বান জানিয়েছেন। টাইমস অব ইন্ডিয়ার এক অনুসন্ধানী প্রতিবেদনে এমন তথ্য বেরিয়ে এসেছে।
শহরের এপার্টমেন্ট কমপ্লেক্সগুলোয় এমন সিদ্ধান্তের পেছনে রয়েছে ভারত সরকারের কথিত বাংলাদেশি দমন প্রচেষ্টা। ভবন মালিকেরা বাংলাদেশি নিয়োগ দিয়ে আইনি জটিলতার শিকার হতে চাইছে না। স্থানীয়রা বাংলাভাষী ও বাংলাদেশিদের মধ্যে পার্থক্য করতে না পারায় তাদের এর ভুক্তোভুগী হচ্ছেন ভারতীয়রাও। বেঙ্গালুরুর বাঙালিরা জানিয়েছেন, সব দিক দিয়েই তাদের ভুল বোঝা হচ্ছে।
উপেক্ষা করা হচ্ছে তাদের।
বেঙ্গালুরুর মারাঠাহালিতে রোহান বাসান্থা এপার্টমেন্টের এক বাঙালি বাসিন্দা দেবায়ানি বসু জানান, আমাদের এপার্টমেন্টের চেয়ারম্যান আমাদের বাঙালি শ্রমিক নিয়োগ না দিতে নির্দেশ দিয়েছেন। বলেছেন, এতে আমরা ঝুঁকিতে পড়বো। রোববার এক বৈঠকে বিষয়টি নিয়ে আমাদের মধ্যে আলোচনা হয়েছে। তিনি বলেন, সমস্যাটা হচ্ছে ভাষাগত। পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশের ভাষার মধ্যে প্রচুর মিল রয়েছে। সহজে একজন বাংলাদেশি ও ভারতীয় বাঙালির মধ্যে পার্থক্য করা কঠিন।
রোহান বাসান্থা এপার্টমেন্ট এসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট প্রভু পাটিল বলেন, ভবনে অনেক বাঙালি পরিবার থাকেন। তারা বাংলাদেশি গৃহকর্মী নিয়োগ দিয়েছেন। আমরা তাৎক্ষণিকভাবে ওইসব শ্রমিকদের সকল নথিপত্র সংগ্রহ করতে বলেছি। এমনকি আধার কার্ড, ভোটার আইডি কার্ড ও অন্যান্য ব্যক্তিগত তথ্যও। সবমিলিয়ে আমরা প্রায় ১০০ বাংলাভাষী শ্রমিকের সন্ধান পেয়েছি। তাদের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়ার জন্য ফের বৈঠকে বসবো আমরা।
বেঙ্গালুরুর হোয়াইটফিল্ড শহরতলীর এক এপার্টমেন্টের বাসিন্দা প্রতিভা কুমারি। তিনি জানান, তার এপার্টমেন্ট এসোসিয়েশন কর্তৃপক্ষ প্রত্যেক বাসিন্দাকে এক ইমেইলে বাংলাভাষী শ্রমিক নিয়োগ না দেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট সংস্থাগুলোকেও অবহিত করতে অনুরোধ করেছেন। তিনি বলেন, গত দুই সপ্তাহ ধরে আমরা কর্নাটক, তামিল নাডু ও অন্ধ্র প্রদেশ থেকে আসা শ্রমিক নিয়োগ দিচ্ছি। এরা বাংলা বলে না।
তবে অনেকে এখনো বাংলাভাষীদের নিয়োগ দিয়ে যাচ্ছেন। বেঙ্গালোর এপার্টমেন্ট’স ফেডারেশনের প্রেসিডেন্ট মুরালিধর রাও জানান, তারা বাংলাভাষীদের নিষিদ্ধ করার কোনো ঘোষণা দেননি। এতে কয়েকশ’ শ্রমিকের জীবন পাল্টে যাবে। তিনি বলেন, আমরা পরিস্থিতি সম্পর্কে অবগত। কিছু এপার্টমেন্ট কর্তৃপক্ষ এমনটা করেছে। প্রত্যেক এপার্টমেন্টই নিজস্ব সিদ্ধান্ত নেয়ার অধিকার রাখে।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

mahmudunnabi

২০১৯-১১-০৫ ১০:৩৯:৩৪

তারা বাংলাদেশী নয় পশ্চিমবঙ্গবাসী। ভারতীয় বাঙালী।

হাসান

২০১৯-১১-০৫ ১৫:০২:৩৩

এভাবে ধর্ম ও ভাষা নিয়ে রেষারেষি করে ভারতের অখণ্ডতা বুঝি থাকবে!

আপনার মতামত দিন

পিয়াজ বিমানে উঠে গেছে, আর চিন্তা নেই

ক্যাসিনো কাণ্ড: দু’মাসে ৫০ অভিযান, এরপর কি?

এবার চালবাজি

বিয়েতে পিয়াজ উপহার

শ্রমিক নিয়োগে সিঙ্গাপুর মডেল

অতি মুনাফার পিয়াজ এবার ময়লার ভাগাড়ে

চুয়াডাঙ্গায় পিয়াজের বাজারে অভিযান অবরুদ্ধ ম্যাজিস্ট্রেট

ছাই থেকে জ্বালানির খোঁজে মুমিনুল

সারা দেশে বিএনপি’র প্রতিবাদ সমাবেশ কাল

ম্যাজিস্ট্রেট আসার খবরে ৭০ টাকা কমে গেল পিয়াজের দাম

কৃষ্ণা রায়কে চাপা দেয়া বাসচালকের সহকারী গ্রেপ্তার

পদ পেতে মরিয়া সিলেট আওয়ামী লীগের নেতারা

ছুরিকাঘাতে যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছে চবি ভর্তিচ্ছু ছাত্রী

রাবি শিক্ষার্থীকে ছাত্রলীগের মারধর

সাড়ে ৪ বছরেও ‘ভালো’ ঋণ গ্রহীতাদের প্রণোদনায় অগ্রগতি নেই

বিশ্বব্যাংক কর্মকর্তাদের সঙ্গে সালমান এফ রহমানের বৈঠক