মিরাজ-তাইজুলদের উপর বিরক্ত সুনীল যোশি

স্পোর্টস রিপোর্টার, ইন্দোর (ভারত) থেকে

খেলা ১৮ নভেম্বর ২০১৯, সোমবার | সর্বশেষ আপডেট: ৯:৫৬

ইন্দোর টেস্টে দুই স্পিনার নিয়ে মাঠে নামে বাংলাদেশ দল। টাইগারদের দুই সেরা স্পিন শক্তির উপর ভরসা রাখে দল। একজন তরুণ অফস্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজ ও অন্যজন অভিজ্ঞ বাঁহাতি স্পিনার তাইজুল ইসলাম। কিন্তু দু’জনের বোলিং ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের উপর কোন ধরণের চাপ তৈরি করতে পারেনি। দু’জনই  রান দেয়াতে সেঞ্চুরি করেছেন। কিন্তু এর মধ্যে উইকেট তুলে নিয়েছেন শুধুমাত্র মিরাজ, তাও একটি। অথচ বাংলাদেশ দলের অন্যতম শক্তিই স্পিন। তাই এমন পারফরম্যান্সের পর সমালোচনা হওয়া স্বাভাবিক।
সাধারণ দর্শক থেকে সংবাদকর্মী; এমনকি ক্রিকেট বোদ্ধা সবাই বিরক্ত টাইগারদের এমন ধারহীন স্পিন আক্রমনে।

এমনকি কিছুদিন আগেও বাংলাদেশের স্পিন কোচের দায়িত্ব পালন করা সুনীল যোশিও বিরক্তি প্রকাশ করেছেন তার শিষ্যদের উপর। তিনি এতটাই চটেছেন যে, শুরুতে স্পিনারদের নিয়ে কথাই বলতে চাননি। তবে সাবেক গুরু বলে কথা, তাই মুখ খুললেন তিনি। দৈনিক মানবজমিনকে যোশি বলেন, ‘ মিরাজ ও তাইজুলের পারফরম্যান্স দেখে আমি খুবই হতাশ। ওরা এত বাজে বল করতে পারে সেটি আমি ভাবিনি। ওদের বল করতে দেখে আমি বিরক্ত বোধ করছিলাম। ওদের কোন কিছুই ঠিক ছিলনা। বল ছাড়া এমনকি নিয়ন্ত্রন কোনটাই করতে পারেনি ঠিক ভাবে।’  

এরই মধ্যে বাংলাদেশ দলের স্পিন বোলিং কোচের দায়িত্ব পেয়েছেন নিউজিল্যান্ডের সাবেক ক্রিকেটার ড্যানিয়েল ভেট্টরি। ভারতের বিপক্ষে সিরিজে দলের স্পিনারদের নিয়ে কাজ করছেন এই কোচ। তাই সাবেক স্পিন কোচ যোশি স্পিনারদের পারফরম্যান্সের পতন নিয়ে কিছু বলতে রাজি হলেন না। তিনি বলেন, ‘তোমাদের তো নতুন কোচ এসেছে। তিনিই ভালো বলতে পারবেন।’ কথার সুরেই বুঝা গেল ভীষণ অভিমানও আছে। তবে বললেন অনেক কথাই; কেন এমন হার! কলকতায় দ্বিতীয় টেস্ট নিয়ে কি করতে হবে।  ফের ডাক পেলে বাংলাদেশে আসবেন কিনা এই সব প্রসঙ্গ নিয়ে বিস্তারিত আসছে দৈনিক মানবজমিনের পাতায়।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

M.H.Mahbub

২০১৯-১১-১৮ ০৮:৪৫:৪৩

বোলিং কোচ ডেনিয়েল ভেটোরীর দৈনিক ৩,৫০০ ডলার বেতনের মধ্যে কারো কমিশন সংযুক্ত আছে কিনা তা খতিয়ে দেখার বিষয় ।

মোঃ কামরুল হাসান

২০১৯-১১-১৮ ০৬:১৭:৪৮

নিউজিল্যান্ডের সাবেক বাঁহাতী অলরাউন্ডার ড্যানিয়েল ভেট্টরি খেলোয়াড়ী জীবনে ছিলেন মাঝারি মানের খেলোয়াড়। আহমরি কোন তারকা খেলোয়াড় ছিলেন না, অথবা কোচ হিসেবেও আইপিএল ছাড়া তেমন কোন বড় কোন দলের কোচ হিসেবে পরিচিত নন। তবে আমাদের বিসিবি কিসের কামড়ে অস্থির হয়ে দৈনিক ৩৫০০ ডলারে ১০০ দিনের চুক্তিতে এমন একজন কোচ নিয়োগ দিলেন তার সঠিক ব্যাখ্যা প্রয়োজন। খেলোয়াড়দের স্বাভাবিক চাহিদা পূরণ করতে, জাতীয় দল ও ক্লাব ক্রিকেটের সকল ক্রিকেটার একযোগে আন্দোলন করতে হয়, সেখানে কি করে এমন খরচের মচ্ছব করে।

আপনার মতামত দিন

খেলা অন্যান্য খবর

বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজ জিতে স্বস্তি পাকিস্তানের

২৯ জানুয়ারি ২০২০

টি-টোয়েন্টির সেরা দল পাকিস্তান। তবে বাংলাদেশ সিরিজের আগে নাম্বার ওয়ান পাকিস্তানের অবস্থা ছিল নড়বড়ে। টানা ...

হার-জরিমানার সঙ্গে পয়েন্টও খোয়ালো প্রোটিয়ারা

২৯ জানুয়ারি ২০২০

সিরিজ বাঁচাতে হলে রেকর্ড গড়ে জিততে হতো দক্ষিণ আফ্রিকার। কিন্তু জোহানেসবার্গ টেস্টে চার দিনের ...

ফাইনালে তিতাস ও বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড

২৯ জানুয়ারি ২০২০

বঙ্গবন্ধু পপুলার লাইফ প্রিমিয়ার বিভাগ ভলিবল লীগের ফাইনালে উঠেছে তিতাস ক্লাব ও বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন ...





খেলা সর্বাধিক পঠিত