গোপালগঞ্জ আওয়ামী লীগের সম্মেলন প্রবীণের সঙ্গে লড়াইয়ে নবীনরাও

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি

বাংলারজমিন ৭ ডিসেম্বর ২০১৯, শনিবার

দীর্ঘ ৪ বছর পর আগামী ১৩ই ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে গোপালগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন। সম্মেলনকে ঘিরে মুকসুদপুর, কাশিয়ানী, কোটালীপাড়া, টুঙ্গিপাড়া ও সদর  উপজেলায় বইছে উৎসবের আমেজ। প্রতিটি মোড়ে ভরে গেছে ব্যানার-ফেস্টুন ও তোরণে। প্রবীণ রাজনীতিবিদদের পাশাপাশি নেতৃত্বের লড়াইয়ে মাঠে নেমেছেন নবীনরাও। স্থানীয় নেতাকর্মীরা জানান, যারা পদ-পদবী বিক্রি ও দালালি করে যারা শত কোটি টাকা, বিলাস বহুল গাড়ি-বাড়ির মালিক হয়েছেন এ ধরনের নেতারা আবার আসুক তা আমরা চাই না। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ নিয়ে যিনি স্বচ্ছ রাজনীতি করবে এমন কাউকে চাই। এদিকে নবীন ছাত্রনেতারা বলছে, প্রধানমন্ত্রী দলের ভেতরে স্বচ্ছতা ফিরিয়ে আনতে কাজ করছেন। যারা কঠিন বিপদের সময় পাশে ছিলেন অথচ গত ১০ বছরে তারাই সব ধরনের সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত হয়েছেন এবার কেবলমাত্র তাদেরকেই মূল্যায়ন করা করবেন।
এ সকল প্রচার-প্রচারণায় কিছুটা প্রার্থীদের মধ্যে ক্ষোভ দেখা না দিলেও কর্মীদের একে অপরের  ভেতরে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কে কার পছন্দের প্রার্থীকে জনপ্রিয় করে গড়ে তুলতে পারে তা নিয়ে চলছে প্রতিযোগিতা। গোপালগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ বর্তমান সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বর্ষীয়ান ত্যাগী নেতা চৌধুরী এমদাদুল হক গত সাড়ে ৩ বছর ধরে সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন। এর আগে প্রবীণ এই নেতা ১৪ বছর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। গোপালগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগ বর্তমান সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান চৌধুরী এমদাদুল হক বলেন, আমি সভাপতি পদে এবারও প্রার্থী আছি। তবে প্রধানমন্ত্রী, না চাইলে থাকব না।
এ ছাড়া জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি প্রবীণ রাজনিতিবিদ রুহুল আমিন নিজেকে সভাপতি পদে প্রার্থিতা ঘোষণা করে বলেছেন, প্রধানমন্ত্রীর কাছে সভাপতি পদ চাইবো। এবং বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা সিকদার নুর মোহাম্মাদ দুলু ও সদর উপজেলার বর্তমান চেয়ারম্যান বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা শেখ লুৎফার রহমান বাচ্চুর নামও শোনা যাচ্ছে। অন্যদিকে জেলা আওয়ামী লীগের বর্তমান সাধারণ সম্পাদক মো. মাহাবুব আলী খাঁন গত সাড়ে ৩ বছর ধরে সাধারণ সম্পাদক পদে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। তবে তার সমর্থকরা বলেছেন, এবারও তিনি সাধারণ সম্পাদক পদে এবারও প্রার্থী হবেন। একই পদে  গোপালগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি বদরুল আলম (বদর) রয়েছে আলোচনায়। বদরুল আলম বলেন, ৮৬ সালে কলেজ রাজনীতি থেকে আমার রাজনৈতিক জীবন শুরু করেছি। আওয়ামী লীগের দুঃসময় অনেকেই ব্যালেন্স রাজনিতি করেছে আমি করিনি। পদ-পদবী বিক্রি বা দলের নাম ভাঙিয়ে কোন কিছু অতীতেও করিনি আগামীতেও করবো না।

আপনার মতামত দিন

বাংলারজমিন অন্যান্য খবর

সিলেটের আন্ডারগ্রাউন্ড বৈদ্যুতিক লাইনের উদ্বোধন

১৮ জানুয়ারি ২০২০

সিলেটের আন্ডারগ্রাউন্ড  বৈদ্যুতিক লাইনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়েছে। শুক্রবার বিকাল সাড়ে ৩টায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে ...

কুমিল্লায় ক্রসফায়ারের ভয় দেখিয়ে চাঁদা আদায়

১৮ জানুয়ারি ২০২০

কুমিল্লার বাতাবাড়িয়া এলাকার বাসিন্দা  জাহাঙ্গীর ভূঁইয়াকে রাস্তায় থেকে তুলে পুলিশ ফাঁড়িতে নিয়ে ক্রসফায়ারের ভয় ও ...

সিলেট জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি ফয়েজ সাধারণ সম্পাদক সেলিম

১৮ জানুয়ারি ২০২০

সিলেট জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে এটিএম ফয়েজ উদ্দিন সভাপতি ও মো. ফজলুল হক সেলিম সাধারণ ...

ভোট বর্জন করে রাজপথে অঞ্জলি দেয়ার ঘোষণা

১৮ জানুয়ারি ২০২০

আগামী ৩০শে জানুয়ারি ভোট বর্জন করে অঞ্জলি দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে জাতীয় হিন্দু মহাজোট। গতকাল রাজধানীর ...

নারায়ণগঞ্জে দুই যুবককে নির্যাতনকারী আওয়ামী লীগ নেতা সকালে গ্রেপ্তার, বিকালে জামিন

১৮ জানুয়ারি ২০২০

 নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় ছাগল চুরির অভিযোগে দুই যুবককে অমানবিক নির্যাতনের মামলার প্রধান আসামি আওয়ামী লীগ নেতা ...

জামালপুরে দুই পুলিশ সদস্যকে মারধর

১১ যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে মামলা

১৮ জানুয়ারি ২০২০

 জামালপুরে পুলিশের কাজে বাধা ও পুলিশের দুই সদস্যকে মারধরের ঘটনায় জেলা যুবলীগের সভাপতিসহ ১১ জনের ...

শিক্ষার্থীরাই উন্নত বাংলাদেশ গড়ার কারিগর: শিক্ষামন্ত্রী

১৮ জানুয়ারি ২০২০

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, শিক্ষার্থীরাই হচ্ছে উন্নত বাংলাদেশ গড়ার কারিগর। তাদের হাত ধরেই দেশে ...





বাংলারজমিন সর্বাধিক পঠিত