এনপিআর আটকাতে সিপিআইএমের ডাক, ‘জবাব নেহি দেঙ্গে’

কলকাতা প্রতিনিধি

ভারত ২০ জানুয়ারি ২০২০, সোমবার | সর্বশেষ আপডেট: ৪:২০

জাতীয় নাগরিকপঞ্জি (এনআরসি) এবং জাতীয় জনসংখ্যাপঞ্জি (এনআরসি) ঠেকাতে বিরোধী আন্দোলনকারীদের মুখে ইতিমধ্যেই শোনা গেছে, ‘কাগজ দেখাবো না’ স্লোগান। এবার বামপন্থীরাও সেই পথে হাঁটতে চলেছেন। সরাসরি অসহযোগ আন্দোলনের ডাক দিয়েছে সিপিআইএম। এনপিআর আটকাতে তাদের নতুন স্লোগান ‘জবাব নেহি দেঙ্গে’। সিপিআইএম সিদ্ধান্ত নিয়েছে, এনপিআর-এর প্রশ্নের জবাব না দেয়ার জন্যই বাড়ি-বাড়ি গিয়ে মানুষের কাছে আবেদন জানাবেন দলের কর্মীরা। দেশজুড়ে আগামী ২৩ মার্চ পর্যন্ত এই কর্মসূচি চলবে।

দলের কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠক শেষে রোববার তিরুবন্তপুরমের ইএমএস সেন্টার থেকে সিপিআইএমের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি বলেছেন, ভুল তথ্য দিলে শাস্তির মুখে পড়তে হতে পারে। নাগরিকদের জেনে-বুঝে সেই ঝুঁকির মুখে ঠেলে দেয়া উচিৎ নয়। তার চেয়ে আমরা বলবো, জবাব নেহি দেঙ্গে।

সাধারণ জনগণনা এবং এনপিআর-এর মধ্যে কী তফাত, আমাদের কর্মীরা তা বোঝাতে বাড়ি বাড়ি যাবেন।
ইয়েচুরির বক্তব্য, সরকারি সমীক্ষকেরা জনগণনা এবং এনপিআর-এর জন্য দুই গুচ্ছ প্রশ্ন নিয়ে যাবেন। সেগুলোর মধ্যে কী ফারাক এবং জনগণনায় আপত্তি না করেও এনপিআর-এ অসহযোগিতার কথা সিপিআইএম কর্মীরা ব্যাখ্যা করতে নামবেন।

ইয়েচুরি বলেছেন, জনগণনার সঙ্গে এনপিআর-কে গুলিয়ে দেয়ার চেষ্টা করছে বিজেপি। অতীতে যখন এনপিআর হয়েছে, তখন সমস্যা ছিল না। কিন্তু নরেন্দ্র মোদীর জমানায় সংসদে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বিবৃতি এবং সরকারি বিজ্ঞপ্তি থেকে বোঝা যাচ্ছে, এনপিআর নাগরিকত্বের সঙ্গে সম্পর্কিত এবং এনআরসির প্রথম ধাপ।

আপনার মতামত দিন



ভারত অন্যান্য খবর

পশ্চিমবঙ্গে মাতৃভাষা দিবস সাড়ম্বরে পালিত

২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০

 ভারতের পশ্চিমবঙ্গে বাংলাদেশের সঙ্গেই অমর একুশে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস সাড়ম্বরে পালিত হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গ ছাড়া ত্রিপুরা, ...

গান স্যালুটে শেষ বিদায়

অভিনেতা তাপস পালের মৃত্যুর জন্য বিজেপি দায়ী: মমতা

২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০

ভালবাসার দিনে অফিসেই বিয়ে

১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০



ভারত সর্বাধিক পঠিত