ট্রাম্পের অভিশংসন

১৩ ঘণ্টা বিতর্ক শেষে বিচারপদ্ধতিতে সম্মত সিনেট

মানবজমিন ডেস্ক

এক্সক্লুসিভ ২৩ জানুয়ারি ২০২০, বৃহস্পতিবার

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের অভিশংসন বিচারকার্যের বিধান নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়েছে পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষ সিনেট। মঙ্গলবার অভিশংসন মামলার শুনানির প্রথম দিনে বিচারপদ্ধতি নিয়ে বাদী ও বিবাদী পক্ষের মধ্যে প্রায় ১৩ ঘণ্টা বিতর্ক শেষে সিদ্ধান্ত নিয়েছে সিনেট। ডেমোক্রেটরা ট্রাম্পের আইনজীবীদের সঙ্গে দীর্ঘসময় ধরে বিতর্ক হয়। ডেমোক্রেটদের একাধিক আবেদন প্রত্যাখ্যাত হয়। এ খবর দিয়েছে বিবিসি।

খবরে বলা হয়, স্থানীয় সময় বুধবার ফের বিচারকার্য শুরুর কথা রয়েছে। তবে এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত সে বিষয়ে কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি। এদিন, প্রসিকিউশন আগে ও আসামিপক্ষ পরে যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের সুযোগ পাবে।
তৃতীয়তম মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ থেকে অভিশংসিত হয়েছেন ট্রাম্প। এর আগে দুই ডেমোক্রেট প্রেসিডেন্ট অ্যান্ড্রিও জনসন ও বিল ক্লিনটন নিম্নকক্ষ থেকে অভিশংসিত হয়েছিলেন।
উভয়েই উচ্চকক্ষে পার পেয়ে যান। ধারণা করা হচ্ছে, ট্রাম্পও ছাড় পেয়ে যাবেন। তার বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহার ও কংগ্রেসের প্রক্রিয়ায় বাধাদানের অভিযোগ রয়েছে। তবে তিনি সকল অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

মঙ্গলবার দুই পক্ষের বিতর্ক শেষে নিরপেক্ষ বিচারক হিসেবে মামলার দায়িত্ব পালনের শপথ নিয়েছেন সিনেটররা। তাদের তত্ত্বাবধায়নে থাকবেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রধান বিচারক জন রবার্টস। এতে প্রসিকিউশন থাকবে নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদের ডেমোক্রেটরা। আসামিপক্ষ হিসেবে লড়বেন ট্রাম্পের আইনজীবীরা।

বুধবার স্থানীয় সময় রাত ২টায় (বাংলাদেশ সময় দুপুর ১টা) দুই পক্ষের বিতর্ক শেষ হয়েছে। এদিন সম্মত হওয়া নিয়মানুসারে, উভয় পক্ষকে তাদের দাবির পক্ষে যুক্তি প্রদর্শনের জন্য আগামী তিন দিনের মধ্যে সর্বোচ্চ ২৪ ঘণ্টা সময় দেয়া হবে। স্থানীয় সময় বুধবার বিকাল থেকে এ সময় শুরু হবে। এরপর আগামী সপ্তাহে শুরু হবে সিনেটরদের প্রশ্ন করার পর্ব। তারা সাক্ষী, প্রত্যক্ষদর্শী ও অন্যান্য প্রমাণ নিয়ে প্রশ্ন করবেন। এ জন্য ১৬ ঘণ্টা সময় নির্ধারণ করা হয়েছে।
তবে মঙ্গলবারের বিতর্কে ডেমোক্রেটরা হোয়াইট হাউসে ট্রাম্পের ঘনিষ্ঠ কর্মচারীদের সাক্ষ্য নেয়ার আহ্বান জানায়। তবে তাদের আবেদন প্রত্যাখ্যান করা হয়। সব মিলিয়ে এদিন ডেমোক্রেটদের তিনটি প্রস্তাব সিনেটে ৫৩-৪৭ ভোটে প্রত্যাখ্যাত হয়। এর একটিতে সিনেটের ডেমোক্রেট নেতা চাক শুমার প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সঙ্গে ইউক্রেনের সম্পর্ক সংক্রান্ত হোয়াইট হাউসের নথি তলবে পরোয়ানা জারি করতে বলেছিলেন। আরেকটিতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং হোয়াইট হাউসের বাজেট দপ্তরের নথি ও রেকর্ড তলবের প্রস্তাব তোলা হয়েছিল।

এদিকে সিনেটে অভিশংসন বিচার সাজানোর আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন ডেমোক্রেটরা। মামলার প্রধান বাদী প্রতিনিধি পরিষদের ডেমোক্রেট নেতা অ্যাডাম স্কিফ তার উদ্বোধনী বক্তব্যে বলেন, বেশির ভাগ মার্কিনিই বিশ্বাস করে না যে, সিনেটে ন্যায়বিচার হবে। তিনি বলেন, তারা বিশ্বাস করে না সিনেট নিরপেক্ষ হবে। তাদের বিশ্বাস, বিচারের ফল আগে থেকে সাজানো।

আপনার মতামত দিন



এক্সক্লুসিভ অন্যান্য খবর

৪৭ বছর পর ভাইবোনের মিলন

২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০

শিক্ষা-সংস্কৃতি অগ্রসরে

পরিচ্ছন্ন হবিগঞ্জ গড়তে চান জেলা প্রশাসক কামরুল হাসান

২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০

অস্তিত্ব হারাতে বসেছে ঝিনাইদহের জিকে সেচ প্রকল্পের খালগুলো

২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০

ঝিনাইদহের জিকে সেচ প্রকল্পের কার্যক্রম মুখ থুবড়ে পড়েছে। এই প্রকল্পের আওতায় ৮১৫ কিলোমিটার খালে বর্তমানে ...



এক্সক্লুসিভ সর্বাধিক পঠিত