মেডিকেল অফিসার থাকলেও কনসালটেন্ট সংকট খুলনার অধিকাংশ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে

স্টাফ রিপোর্টার, খুলনা থেকে

দেশ বিদেশ ২৫ জানুয়ারি ২০২০, শনিবার

প্রতিমাসেই সিভিল সার্জনের দপ্তর থেকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে প্রতিবেদন পাঠিয়ে জনবলের চিত্র তুলে ধরা হয়। যার কপি দেয়া হয় খুলনার স্বাস্থ্য পরিচালক এবং মহাখালী স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বরাবর। কিন্তু সংকট থেকেই যায়। বিশেষ করে খুলনা জেলার ৯টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মেডিকেল অফিসার পর্যায়ের চিকিৎসকের অভাব না থাকলেও চরম সংকট অবস্থা বিরাজ করছে কনসালটেন্ট পর্যায়ের চিকিৎসকদের। দাকোপ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও প.প. কর্মকর্তা ডা. মো. মোজাম্মেল হক নিজামী জানান, হাসপাতালটি ৫০ শয্যার হলেও বর্তমানে রোগী থাকে ৮০ জনের বেশি। গ্রীষ্ম মওসুমে রোগীর সংখ্যা একশ’ ছাড়িয়ে যায়। হাসপাতালটিতে ৩৯তম বিশেষ বিসিএস’র ডাক্তার পদায়ন করা হয়েছে আটজন। আগে থেকে সেখানে পদায়ন আছেন আটজন চিকিৎসক।
এ ছাড়া আটটি ইউনিয়ন উপ-স্বাস্থ্যকেন্দ্রে পদায়নকৃত আটজন এবং পূর্বেও ইউনিয়ন পর্যায়ের নয়জন চিকিৎসকও ডিউটি করেন হাসপাতালে। জরুরি, আন্তঃ ও বহির্বিভাগে নিয়মিত রোগী দেখছেন মেডিকেল অফিসার পর্যায়ের এসব চিকিৎসকরা। কিন্তু ৫০ শয্যার হাসপাতালের জন্য যেখানে ১০ জন কনসালটেন্ট থাকার কথা সেখানে রয়েছেন মাত্র একজন গাইনি কনসালটেন্ট। বাকি কনসালটেন্ট, জুনিয়র কনসালটেন্ট ও জেনারেল সার্জারির কাজ চালানো হয় মেডিকেল অফিসার পর্যায়ের চিকিৎসক দিয়ে। দাকোপের পাশাপাশি জেলার অন্য সব উপজেলা হাসপাতালের চিত্রও প্রায় একই। ফুলতলা উপজেলা হাসপাতালে আটজন চিকিৎসক সংকট থাকলেও নেই কোনো নার্সের সংকট। এ হাসপাতালে সর্বমোট ৩৫ জন জনবল সংকট রয়েছে বলেও উল্লেখ করেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও প. প. কর্মকর্তা ডা. শেখ মোহাম্মদ কামাল হোসেন। তেরখাদা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে উপজেলা স্বাস্থ্য ও প.প. কর্মকর্তা, জুনিয়র কনসালটেন্ট, সার্জারি, জুনিয়র কনসালটেন্ট, মেডিসিন, জুনিয়র কনসালটেন্ট, অ্যানেসথেসিয়াসহ নয়জন জুনিয়র কনসালটেন্টের পদ শূন্য রয়েছে। গাইনি কনসালটেন্ট থাকলেও তিনি খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে সংযুক্তি রয়েছেন।
পাইকগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সার্জারি, গাইনি, মেডিসিন এবং অ্যানেসথেসিয়া বিভাগের জুনিয়র কনসালটেন্ট রয়েছেন পদের বিপরীতে কর্মরত। এমনকি পদের বিপরীতে কর্মরত আছেন প্যাথলজিস্ট ও অ্যানেসথেটিস্টও। ওই হাসপাতালটিতে বর্তমানে আটজন চিকিৎসকের পদ শূন্য রয়েছে বলেও জানান উপজেলা স্বাস্থ্য ও প. প. কর্মকর্তা ডা. নীতিশ চন্দ্র গোলদার। কয়রা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সেও বর্তমানে উপজেলা স্বাস্থ্য ও প. প. কর্মকর্তাসহ ১০টি কনসালটেন্টের পদ শূন্য রয়েছে। এ ছাড়া সহকারী সার্জন ও মেডিকেল অফিসারের পদও শূন্য রয়েছে বলে উপজেলা স্বাস্থ্য ও প. প. কর্মকর্তার কার্যালয়ের এক প্রতিবেদনে দেখা যায়।

আপনার মতামত দিন



দেশ বিদেশ অন্যান্য খবর

৪৯ লাখ জাল রুপিসহ প্রতারক চক্রের ৮ সদস্য গ্রেপ্তার

১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০

রাজধানীর সবুজবাগ থানার কদমতলা থেকে ভারতীয় জাল রুপি ও জাল রুপি তৈরির সরঞ্জামসহ আটজনকে গ্রেপ্তার ...

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠক

আরো কর্মী নিয়োগ ও বিনিয়োগে কাতারের প্রতি আহ্বান ঢাকার

১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০

ডিকাব টকে চীনা দূত লি

রোহিঙ্গা সঙ্কটে দূতিয়ালি অব্যাহত রাখার প্রত্যয়

১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০

বাম জোটের আলোচনা সভা

‘ব্যাংক লুটপাট এখন উন্নয়নের অংশ হয়ে গেছে’

১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০

এসপি’র কাছে স্বামীর অভিযোগ

ট্রাকচালকের স্ত্রীকে তুলে নিয়ে গেল পুলিশ

১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০

তিনটি আসনের উপনির্বাচনে জাপার প্রার্থী ঘোষণা

১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০

জাতীয় সংসদের ৩টি আসনের উপ-নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীর নাম ঘোষণা করেছে জাতীয় পার্টি (জাপা)। এর মধ্যে ...

ঢাকায় ট্রেনে কাটা পড়ে যুবক নিহত

১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০

ঢাকার আশকোনা রেলগেটে ট্রেনে কাটা পড়ে অজ্ঞাত পরিচয়ের যুবক (২২) নিহত হয়েছেন। গতকাল সকালে বিমানবন্দর ...

মন্ত্রিসভায় নীতিগত অনুমোদন

শিশু হাসপাতাল ও শিশু স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট একীভূত হচ্ছে

১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০

একীভূত হচ্ছে ঢাকা শিশু হাসপাতাল ও শিশু স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট। দু’টি সংস্থাকে একীভূত করতে ‘বাংলাদেশ শিশু ...

সেনাপ্রধানের সঙ্গে জাম্বিয়ার সেনাবাহিনী কমান্ডারের সৌজন্য সাক্ষাৎ

১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০

বাংলাদেশে সফররত জাম্বিয়ার সেনাবাহিনী কমান্ডার লেফটেন্যান্ট জেনারেল উইলিয়াম মাইপাম্বে সিকাজ্যুই গতকাল সেনাবাহিনী সদর দপ্তরে বাংলাদেশ ...



দেশ বিদেশ সর্বাধিক পঠিত