যে কথা মানতে নারাজ তাইজুল

স্পোর্টস রিপোর্টার

খেলা ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০, বুধবার

আন্তর্জাতিক টেস্টে বাংলাদেশের হয়ে ১০০’র বেশি উইকেট নিয়েছেন মাত্র তিনজন। তাদের একজন তাইজুল ইসলাম। বাঁহাতি এই স্পিনারের ১০৮ উইকেটের ৩৫টিই আবার জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে। সবশেষ ২০১৮তে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে বাংলাদেশ ১৫১ রানে হারলেও ম্যাচে ১১ উইকেট নেন তাইজুল। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষেই ইনিংসে সর্বোচ্চ ৮ উইকেট নেয়ার ব্যক্তিগত রেকর্ড রয়েছে তার। ঘরের মাঠে ২২শে ফেব্রুয়ারি তাদের বিপক্ষে টেস্ট খেলতে নামছে টাইগাররা। স্বাভাবিকভাবেই আলোচনায় তাইজুল। ‘জিম্বাবুয়ের সঙ্গে যখন খেলা হয় আপনার নামটাই বেশি উঁচ্চারিত হয়।
কেমন লাগছে?’ গতকাল অনুশীলনের এক ফাঁকে সংবাদমাধ্যমের এমন প্রশ্নের উত্তরে তাইজুল বলেন, ‘এই কথাটা ভালো লাগলো না। কারণ জিম্বাবুয়ের সঙ্গেই যে আমি উইকেট পেয়েছি তা তো নয়। আগেই বলেছি, যাদের সঙ্গেই খেলেন, ভালো জায়গায় বল না করলে উইকেট নেয়া সম্ভব নয়। তাছাড়া ওরা যে একেবারে খারাপ দলও নয়।’
মিরপুর শেরেবাংলায় অনুষ্ঠেয় জিম্বাবুয়ে টেস্ট সামনে রেখে গতকালই আনুষ্ঠানিক অনুশীলন করে বাংলাদেশ দল। দলে ডাক পাওয়া ৮ ক্রিকেটার অংশ নেননি এ ক্যাম্পে। কারণ আগের দিনই তারা বাংলাদেশ ক্রিকেট লীগের (বিসিএল) তৃতীয় রাউন্ড খেলে ঢাকায় ফিরেছেন। গতকাল ছিলেন বিশ্রামে। এ দিন প্রধান   কোচ রাসেল ডমিঙ্গোর সঙ্গে ছিলেন নয়া বোলিং কোচ ওতিস গিভসনও। নেটে ব্যাটিং করেছেন অধিনায়ক মুমিনুল হক সৌরভ, তামিম ইকবাল, লিটন দাস, মোহাম্মদ মিঠুনরা। বোলিং অনুশীনে দেখা গেছে ইবাদত হোসেন, আবু জায়েদ রাহী, তাসকিন আহমেদ, তাইজুলদের। একটি সূত্রে জানা গেছে, কাল অনুশীলনে ১৬ সদস্যের সবাই উপস্থিত থাকবেন। তবে এই সিরিজে ব্যাটিং কোচ নিল ম্যাকেঞ্জি, ফিল্ডিং কোচ রানায়ক কুক ও স্পিন বোলিং কোচ ড্যানিয়েল ভেট্টরির সার্ভিস পাচ্ছে না বাংলাদেশ।
বাংলাদেশ ঘরে-বাইরে শেষ ৬ টেস্টের ৫টিই  ইনিংস ব্যবধানে হেরেছে। ঘরের মাঠে তারা সর্বশেষ টেস্ট খেলে আফগানিস্তানের বিপক্ষে। গত বছর অনুষ্ঠিত ওই ম্যাচেও বিশাল রানের ব্যবধানে হারেন মুশফিকরা। তবে এবার ঘুরে দাঁড়াতে আত্মবিশ্বাসী তাইজুল। তিনি বলেন, ‘আসলে দেশে যখন খেলা হয় নিজের কাছে একটু অন্যরকম লাগে। এটা আপনারা জানেন যে ভালো করবো বা ভালো করার অনুভূতিটা থাকে।’ শেষ ৬ টেস্টে দলের স্পিন বিভাগের ব্যর্থতা চোখে লেগেছে। সাকিব আল হাসান নিষিদ্ধ হওয়ার পর স্পিন বিভাগের অবস্থা আরো করুণ। কেন? একটু ক্ষেপেই তাইজুলের জবাব, ‘তাহলে আমরা এখন যারা আছি তারা ভালো স্পিনার নই? সাকিব ভাই থাকতে যেহেতু পারফরম্যান্স ভালো হতো তাহলে এটাই উত্তর। তার জায়গা পূরণে তার মানের ক্রিকেটারই আসতে হবে। ওই মানের স্পিনার নেই আমাদের।’ স্কোয়াডে পাঁচ পেসার নেয়া কি তাহলে স্পিনারদের ব্যর্থতার কারণে? তাইজুল বলেন, ‘এই কারণে পেসার নেয়া হয়েছে কিনা তা জানি না। কিন্তু পেসার আছে। পাকিস্তানে স্পিনার গিয়েছিল আমিও খেলেছি। আসলে বললাম তো ওই (সাকিব) মানের স্পিনার এখনো হয়নি তাই ফলাফল এমন হচ্ছে।’
২০১৮তে জিম্বাবুয়ের খর্বশক্তির দলের কাছে টেস্ট হেরেছিল টাইগাররা। তবে সেই হারকে দুর্ঘটনা মানতে নারাজ তাইজুল। তিনি বলেন, না আমি আসলে দুর্ঘটনা বলবো না। দুর্ঘটনা অন্য জিনিস। আসলে ওইটা আমরা খারাপ খেলেছি বিধায় হেরেছি। ম্যাচে আমরা ভালো খেলেছি তাই জিতেছি।

আপনার মতামত দিন



খেলা অন্যান্য খবর

করোনা মহামারি

ঘরে থাকতে দুর্জয়ের ‘নরম-গরম’ অনুরোধ

৭ এপ্রিল ২০২০



খেলা সর্বাধিক পঠিত



লাশের মিছিল দেখে আতঙ্ক

মধ্যবিত্তের পাশে কে! প্রশ্ন বিজয়ের

স্টেডিয়ামের কাজ করছে সর্বোচ্চ সতর্কতায়

আতঙ্ক নিয়েও ভালো আছেন বাংলাদেশের ভারতীয় কিউরেটররা