কী এক অজানা কারণে পাপিয়াকে বাদ দিতে পারেননি তারা

খুজিস্তা নূর-ই নাহারিন

ফেসবুক ডায়েরি ১ মার্চ ২০২০, রোববার | সর্বশেষ আপডেট: ৮:১৪

নরসিংদীর সিনিয়র নেতৃবৃন্দ ২০১৪ সালে গঠিত জেলা কমিটিতে পাপিয়াকে যুব মহিলা লীগের সেক্রেটারি পদে মনোনয়ন দেওয়ার বিপক্ষে অনাস্থা প্রস্তাব রেখেছিলেন, তাঁরা সরাসরি এই মনোনয়নের বিরোধিতা করেছিলেন। নেতাদের তোপের মুখে কমিটি করতে না পেরে স্থগিত ঘোষণা করেন, পরে ঢাকায় ফিরে এসে অসম্পূর্ণ কমিটি পূর্ণ করে ঘোষণা করেন। কী এক অজানা কারণে পাপিয়াকে কিছুতেই বাদ দিতে পারেননি তারা।
কিন্তু কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ একবারের জন্যও কি জানতে চাননি কেন তাঁদের এই অনাস্থা, পাপিয়ার প্রতি তাঁদের ক্ষোভ, ঘৃণা, অনীহা এবং অপছন্দের কারণ সমূহ কী অথবা কেন ???
এলাকার গুরুত্বপূর্ণ পদে সমাসীন রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গের চরম আপত্তি সত্ত্বেও কি করে যুব মহিলা লীগে পদ পায় পাপিয়া ?
(লেখাটি খুজিস্তা নূর-ই নাহারিন এর ফেসবুক ওয়াল থেকে নেয়া)

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

মাসুম

২০২০-০৩-০১ ০৮:৩৮:২৫

আর্থিক লেনদেনই মূল কারন । যুব মহিলা লীগের সভানেত্রী ও সাধারন সম্পাদককে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হোক । সব কাহিনী বেরিয়ে আসবে ।

Lutfar Rahman

২০২০-০৩-০১ ১৮:৩৭:৪৭

কারণ কোন অজানা নয়। আর্থিক সুবিধা সহ সকল অনৈতিক কার্যক্রমের এক সিন্ডিকেটের কারণেই পাপিয়ারা পদ লাভ করে।

শওকত আলী

২০২০-০৩-০১ ১৭:১১:০৫

বাংলাদেশের যতগুলো রাজনৈতিক দল আছে, তন্মধ্যে ক্ষমতায় ছিল বেশিরভাগ সময়ে আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টি। কিন্তু এই তিন দলের অধিকাংশ নেতাকর্মীরা দুর্নীতিগ্রস্থ বলে আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি। স্থানীয় একটি ওয়ার্ড নেতা থেকে শুরু করে টপ লেভেলের নেতা পর্যন্ত কোনো না কোনোভাবে দুর্নীতিতে নিমজ্জিত। তাই ব্যক্তিগতভাবে এক একজনের কথা বললে এটা বিশ্বাসযোগ্য নয়। আমাদের এই দেশটি মূলত চলছে আল্লাহর উপর ভরসা করে, না হয় এতদিন টিকে থাকার কথা নয়।

আপনার মতামত দিন



ফেসবুক ডায়েরি অন্যান্য খবর



ফেসবুক ডায়েরি সর্বাধিক পঠিত