এডিস মশা নিয়ন্ত্রণে ডিএনসিসির চিরুনি অভিযান, ৭ মামলায় ৮০ হাজার টাকা জরিমানা

স্টাফ রিপোর্টার

অনলাইন ১৯ মে ২০২০, মঙ্গলবার, ৩:৫৯

ডেঙ্গু প্রকোপ থেকে নগরবাসীকে সুরক্ষা দিতে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) ৫টি অঞ্চলে সকাল থেকে মশক নিধনে বিশেষ পরিচ্ছন্নতা ও চিরুনি অভিযান পরিচালিত হয়েছে। আজ মঙ্গলবার চিরুনি অভিযানে ডিএনসিসির ৫টি অঞ্চলে মোট ২৪৩৯ টির অধিক বাড়ি, স্থাপনা, নির্মাণাধীন ভবন পরিদর্শন করে বিভিন্ন বাড়ি, প্রতিষ্ঠান, স্থাপনায় ও পরিত্যক্ত জায়গায় এডিসের লার্ভা পাওয়ায় ৭টি মামলা ও ৮০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

অঞ্চল-১ (উত্তরা) এর আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা জুলকার নায়ন ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আনোয়ারুল হালিম এর নেতৃত্বে উত্তরা ৭ নম্বর সেক্টরে মোট ৯৯৪ টি বাসাবাড়ি, নির্মাণাধীন ভবন ও প্রতিষ্ঠানে বেলা ১০টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত অভিযান পরিচালিত হয়। এ সময়ে প্রায় ৭৪৬টি স্পটে এডিস মশার প্রজনন উপযোগী পরিবেশ পাওয়া যায়। এর মধ্যে ৪০টি স্পটে এডিস মশার লার্ভা পাওয়া গেছে। এ সকল স্থানে কীটনাশক স্প্রে করা হয়েছে এবং বাড়ির মালিকদেরকে সতর্ক করা হয়েছে। এ সময়ে ২টি মামলায় মোট ৬ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

অঞ্চল-২ (মিরপুর-২) এর আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এএসএম শফিউল আজম এর নেতৃত্বে মিরপুর এলাকার ৪৫৯টি বাড়ি ও স্থাপনায় বেলা ১০টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত চিরুনি অভিযান পরিচালিত হয়।
এ সময়ে ২টি নির্মানাধীন ভবনে এডিস মশার লার্ভা পাওয়া যাওয়ায় ২টি মামলায় ২জনকে মোট ৬০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

অঞ্চল-৩ (মহাখালী) এর আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মীর নাহিদ আহসান এর নেতৃত্বে ১৮ নম্বর ওয়ার্ডের বারিধারা কে-ব্লক এলাকায় ১৪৪টি বাড়ি, স্থাপনা ও নির্মাণাধীন ভবনে বেলা ১০টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত চিরুনি অভিযান পরিচালিত হয়। এ সময়ে ৮টি স্থানে এডিস মশার লার্ভা পাওয়া যাওয়ায় তাদেরকে সতর্ক করা হয়েছে এবং ৩টি মামলায় ৩ জনকে মোট ১৪ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

অঞ্চল-৪ (মিরপুর-১০) এর ১২ নম্বর ওয়ার্ডের ১৯৬টি বাসাবাড়ি, নির্মাণাধীন ভবন ও স্থাপনায় চিরুনি অভিযান চালানো হয় । এসময়ে ৩টি বাড়িতে এডিস মশার লার্ভা ও প্রায় ১০৪টি বাড়িতে এডিস মশার প্রজনন উপযোগী পরিবেশ পাওয়া গেলে তাদেরকে সতর্ক করে সেসব স্থানে কীটনাশক স্প্রে করা হয়। তবে কোন জরিমানা করা হয়নি।

অঞ্চল-৫ (কারওয়ান বাজার) এর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বেলায়েত হোসেনের নেতৃত্বে মোহাম্মদপুরে চিরুনি অভিযান পরিচালিত হয়। এ সময়ে মোট ১৮৭টি বাড়ি ও স্থাপনা পরিদর্শন করে এডিস মশার প্রজননস্থলসমূহ ধবংসপূর্বক কীটনাশক প্রয়োগ করা হয়েছে তবে কাউকে জরিমানা করা হয়নি।

উল্লেখ্য, চলমান চিরুনি অভিযানসহ ডেঙ্গু থেকে নগরবাসীকে সুরক্ষা দিতে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে গত ১০ই মে থেকে পরিচালিত অভিযানে এখন পর্যন্ত সর্বমোট ৩লক্ষ ৪৮হাজার ৩শত টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এডিস মশা নিয়ন্ত্রণে ডিএনসিসির চিরুনি অভিযান অব্যাহত থাকবে।

আপনার মতামত দিন

অনলাইন অন্যান্য খবর

বাঘায় মসজিদের ইমাম নিয়োগকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ-গুলিবর্ষণ, আহত ১০

২৮ মে ২০২০

রাজশাহীর বাঘা উপজেলায় মসজিদের ইমাম নিয়োগকে কেন্দ্র করে দুপক্ষের সংঘর্ষের সময় গুলিতে ১০ জন আহত ...



অনলাইন সর্বাধিক পঠিত



গণস্বাস্থ্যের কিটে পরীক্ষা

করোনায় আক্রান্ত ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী