মানুষ ব্যাংকবিমুখ হবে

ফেসবুক ডায়েরি

| ৪ জুন ২০১৭, রোববার | সর্বশেষ আপডেট: ১১:১৮
আলোকিত বাংলাদেশ পত্রিকার রিপোর্টার সাজ্জাদ মাহমুদ খান লিখেছেন, মানুষ ব্যাংকবিমুখ হবে! রাতারাতি মাল্টিপারপাস, এনজিও, এমএলএম ও হায় হায় কোম্পানি গজিয়ে উঠবে। তারা অধিক মুনাফার লোভে ফেলে লুটপাট করবে। ক্ষুদ্র ও মাঝারি পর্যায়ের আমানতকারীরা আতঙ্কিত হয়ে পড়বে। গত দুইদিনে অন্তত এক ডজন মানুষ ফোনে জানতে চেয়েছে, টাকা ব্যাংকে রাখবে নাকি অন্য কোথাও? গরিব মানুষের ক্ষুদ্র সঞ্চয় সরকার কেড়ে নিতে চাচ্ছে কেনো? আমি তাদের বলেছি, সরকারকে ট্যাক্স দিতে না চাইলে ৯৯ হাজার টাকা পর্যন্ত ব্যাংকে রাখুন। বাকি টাকা বালিশের নিচে কিংবা মাটি খুঁড়ে রাখুন। হঠাৎ গজিয়ে ওঠা মাল্টিপারপাস-হায় হায় কোম্পানিতে টাকা রাখবেন না।
তারা লুট করে পালাবে। আমও যাবে ছালাও যাবে। মাননীয় মন্ত্রী, প্রস্তাবিত বাজেটে ব্যাংক আমানতের উপর বর্ধিত করের ফলে ক্ষুদ্র ও মাঝারি পর্যায়ের আমানতকারীরা বা গ্রাহকরা ব্যাংকবিমুখ হবে। নন ব্যাংকিং খাতে বিনিয়োগে উৎসাহিত হবে সাধারণ মানুষ। অধিক মুনাফার লোভ দেখিয়ে মাল্টিপারপাস, সমবায় সমিতি, এনজিও ও অনিবন্ধিত আর্থিক প্রতিষ্ঠান জনগণের টাকা লুট করবে। ব্যাংকে তারল্য সংকট তৈরি হবে। ব্যবসায়ী শ্রেণি ঋণ পাবে না। ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প উদ্যোক্তারা ব্যবসায়িক ঝুঁকিতে পড়বে।

 

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

যশোরে বিএনপি নেতা অমিতের বক্তব্যে তোলপাড়

বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব শুরু

‘বিষয়টি নিয়ে আমি বেশ উত্তেজিত’

পাঁচ দশকের দীর্ঘ লড়াই

ভিডিও দেখে অস্ত্রধারীদের খোঁজা হচ্ছে

‘অতিষ্ঠ হয়ে প্রেমিককে ছুরিকাঘাত’

ফল প্রকাশের দাবিতে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ, অবরোধ

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে সময় লাগবে ৯ বছর!

মত প্রকাশের স্বাধীনতা সীমিত, আক্রমণের শিকার নাগরিক সমাজ

মেয়র আইভী হাসপাতালে

জিয়াউর রহমানের ৮২ তম জন্মবার্ষিকী আজ

এবার আটকে গেল দক্ষিণের ১৮ ওয়ার্ডের নির্বাচনও

হাথুরুকে দেখিয়ে দেয়ার লড়াই

‘আপনার এত তাড়াহুড়া কিসের?’

সংবাদটি আমাকেও শোকে মুহ্যমান করে ফেলে

‘নেতৃত্ব তৈরির প্রক্রিয়া বাধাগ্রস্ত করতেই ছাত্র সংসদ নির্বাচন বন্ধ রাখা হয়েছিল’