৫৭ ধারা একটি কালো আইন

ফেসবুক ডায়েরি

অমিতাভ রেজা চৌধুরী | ১৫ জুলাই ২০১৭, শনিবার | সর্বশেষ আপডেট: ১০:৫৭
চলচ্চিত্র গবেষক ও লেখক অধ্যাপক ফাহমিদুল হকের বিরুদ্ধে ৫৭ ধারায় যে হয়রানিমূলক মামলা করা হয়েছে তা প্রত্যাহার করা হোক।
৫৭ ধারা একটি কালো আইন। এই আইন মানুষের কণ্ঠরোধ করার জন্য, মানুষকে দমন করার জন্য এবং মানুষের প্রতিবাদকে নস্যাৎ করতে প্রবর্তন করা হয়েছে। এই কালো আইনের সর্বশেষ শিকার অধ্যাপক ফাহমিদুল হক। আমরা সকলে অবিলম্বে এই মামলা প্রত্যাহার দাবি করছি।
আমরা আশা করি মামলাকারী শিক্ষকের শুভবোধের উদয় হবে এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এমন হয়রানি এবং হঠকারি পদক্ষেপ থেকে নিজেদের মর্যাদাকে সুরক্ষিত করবেন।
বাংলাদেশের সকল চলচ্চিত্র নির্মাতা, চলচ্চিত্র সংগঠক, চলচ্চিত্র শিক্ষক ও গবেষক, চলচ্চিত্র সাংবাদিক, চলচ্চিত্র কর্মী সকলের কাছে আহ্বান আপনারা এই কালো আইনের (৫৭ ধারা) বিরুদ্ধে সোচ্চার হোন এবং অধ্যাপক ফাহমিদুল হকের সপক্ষে অবস্থান নিন। আমরা অবশ্যই অধ্যাপক ফাহমিদুল হকের সঙ্গে আছি, পাশে আছি এবং লড়াইয়ের সম্মুখে আছি!।


এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

রোহিঙ্গা সঙ্কট সমাধানে চীনের তিন দফা প্রস্তাব

সিএনজি অটোরিকশার ৪৮ঘন্টার ধর্মঘট

শাহজালালে ৩ কোটি টাকা মূল্যের স্বর্ণসহ আটক ১

দীপিকার মাথা কাটলে পুরস্কার ১০ কোটি রুপি!

নিউ ক্যালেডোনিয়ায় ৭ মাত্রার ভূমিকম্প

কেন সৌদি আরব ও ইরান পরস্পরের প্রতিপক্ষ?

বন্দুকের নলের মুখেও ক্ষমতা ছাড়তে রাজি নন মুগাবে

বাংলাদেশের বন্ধু, মার্কিন কূটনীতিক হাওয়ার্ড বি শেফার আর নেই

তারেক রহমানসহ তিনজনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা

গেদে সীমান্তে পিতা-পুত্রের মিলন, আবেগঘন এক দৃশ্য

বিএনপির নেতার বাসার সামনে থেকে বোমা উদ্ধার

‘পুরুষের চেয়ে নারীরা বেশি যৌন নিপীড়ক’

দুদকের মামলায় গ্রেপ্তার পঙ্কজ রায়

কেক কেটে তারেক রহমানের জন্মদিন পালন

মা ও ছেলেকে কুপিয়ে হত্যা করলো যুবক

কানাডার উন্নয়নমন্ত্রী আসছেন মঙ্গলবার