ঢাবি ছাত্রলীগ

গ্রুপ পরিবর্তন করায় বিশ্ববিদ্যালয় নেত্রীকে নির্যাতন করেছে হলের নেত্রীরা

শিক্ষাঙ্গন

বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার | ৩ আগস্ট ২০১৭, বৃহস্পতিবার | সর্বশেষ আপডেট: ৭:৫৩
গ্রুপ পরিবর্তন করায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের ছাত্রী বিষয়ক সম্পাদক ইমাম সুলতানা স্মৃতিকে মারধরের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। বলা হচ্ছে, বাংলাদেশ-কুয়েত মৈত্রী হল ছাত্রলীগের সভাপতি ফরিদা পারভীনসহ কয়েকজন নেত্রী তাকে মারধর করেন। বুধবার রাত ১২টা থেকে সাড়ে ৩টা পর্যন্ত লাগাতার সাড়ে তিন ঘন্টা শারীরিক ও মানসিকভাবে নিজ হলের ছাদে নির্যাতনের দাবি করেন বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের ওই নেত্রী। তিনি আরো দাবি করেন, এ সময় তাকে গলা টিপে মেরে ফেলার চেষ্টা করা হয়। অভিযুক্ত নেত্রীদের অন্যরা হলেন- হল শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি সুস্মিতা দে ও শারমিন সিদ্দিকী এবং কর্মী শিরিন ¯েœহা। এরা সবাই বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মোতাহার হোসেন প্রিন্স এর অনুসারী।
ভুক্তভোগী ছাত্রলীগ নেত্রী বলেন, দীর্ঘদিন ধরে আমাকে থ্রেট করে আসছেন হলের সভাপতিসহ ওই চার নেত্রী। মূলত আমি প্রিন্স ভাইয়ের গ্রুপ পরিবর্তন করে সোহাগ (কেন্দ্রিয় সভাপতি) ভাই এর রাজনীতি করার কারণে আমার প্রতি তারা ক্ষেপেছে। প্রিন্স ভাইও আমাকে বিভিন্ন সময় বিভিন্নভাবে থ্রেটমূলক কথা বলেছেন এবং আমাকে প্রোগ্রামে অংশ নিতে বারণ করেছেন। এরই প্রেক্ষিতে ওই চার নেত্রী আমাকে নিয়মিত থ্রেট দিতো। এক পর্যায়ে পহেলা আগস্টে হলের মোমবাতি প্রজ্জ্বলন অনুষ্ঠানে অংশ নেয়ার জের ধরে আমাকে গতকাল হলের ছাদে ডেকে নেয়। ¯েœহা আমার গলাও টিপে ধরে এক সময়। যদিও হল সভাপতি ছেড়ে দিতে বললে গলা ছেড়ে দেয়া হয়। কিন্তু নির্যাতন থামে নি। রাত সাড়ে ৩টা পর্যন্ত আমার উপর নির্যাতন চালায়। তবে অভিযোগের বিষয়টি অস্বীকার করে হল ছাত্রলীগের সভাপতি ফরিদা পারভীন বলেন, আপুর সঙ্গে আমার সম্পর্কটা ভালো। আর হলের সহ-সভাপতিদের হলে কী প্রভাব থাকে সেটি সবার জানা। তাই ওনারাও এমন করতে পারেন না। আমি কেন ওনাকে মারবো- মোমবাতি প্রজ্জ্বলনের ওই প্রোগ্রামে যাওয়ার কারণে কেন আমরা ওনাকে হেনস্তা করবো। আমরাইতো ওনাকে ইনভাইট করেছি ওই প্রোগ্রামে। এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মোতাহার হোসেন প্রিন্স বলেন, আমি এমন কোন অভিযোগ শুনিনি। যদি এমন ধরণের কোন ঘটনা ঘটে থাকে তাহলে খোঁজ নিচ্ছি। অপরাধীদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে।
 

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

আটকে গেল ঢাকার নির্বাচন

ধরা পড়েনি সেই অস্ত্রধারী

স্থগিতে সরকারের ভূমিকা নেই

হার জেনে সুযোগ নিয়েছে সরকার

ভোট নিয়ে হাসিনা-প্রণব আলোচনা

ছয় মাসের মধ্যে ডাকসু নির্বাচনের ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন চুক্তি বিশ্বব্যাপী প্রতিক্রিয়া

ওআইসি’র নির্বাচনে ঢাকার প্রার্থীতার ক্যাম্পইন শুরু

নির্বাচন এলেই একটি শ্রেণি মাথাচাড়া দিয়ে ওঠে

ট্রাম্প টাওয়ারে যেন উদ্ভট রিহার্সেল

চট্টগ্রামে ‘স্কুল ছাত্রলীগের’ প্রথম বলি আদনান!

ইয়ে থি আজীব বাত...

মুলতবির আবেদন খারিজ আজও আদালতে যাবেন খালেদা জিয়া

বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীর নগ্ন ছবি ছড়ানোর অভিযোগে দুজন আটক

জুড়িতে দুই পক্ষের সংঘর্ষে মুক্তিযোদ্ধা নিহত

গৌরনদীতে ছাত্রলীগ ও যুবলীগের সংঘর্ষ, আহত ৬