বাংলাদেশ সীমান্তে ভারত অত্যাধুনিক ইসরাইলি সুরক্ষা ব্যবস্থা বসাচ্ছে

ভারত

কলকাতা প্রতিনিধি | ১৪ আগস্ট ২০১৭, সোমবার | সর্বশেষ আপডেট: ৩:১২
ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তকে নিñিদ্র করতে ভারত ‘ইসরাইলি ফেন্সিং সিস্টেম’ লাগাচ্ছে। এই সিস্টেমের নিজস্ব ‘কুইক রেসনপ্স টিম’ (কিউআরটি) মেকানিজম রয়েছে, যা অনুপ্রবেশ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারবে।  একে বলা হয় স্মার্ট ফেন্সিং ব্যাবস্থা। সীমান্ত সুরক্ষা বাহিনী বিএসএফ-এর মহাপরিচালক  কে কে শর্মা জানিয়েছেন, নতুন সীমান্ত সুরক্ষা ব্যবস্থা দেশের নিরাপত্তায় এক ব্যাপক বদল আনবে। তিনি বলেন, আমাদের সার্বিক প্রস্তুতি অনেকটাই দ্রুত এবং ক্ষিপ্র হবে। শর্মা বলেন, বর্তমানে বিএসএফ-এর বিভিন্ন টিম বিভিন্ন জায়গায় নজরদারি চালায়। এখন এমন এক অত্যাধুনিক কিউআরটি-নির্ভর সিস্টেমকে ব্যবহার করার কথা ভাবা হচ্ছে, যা আগে কখনও পরীক্ষা করা হয়নি। তিনি যোগ করেন, নতুন সিস্টেমের মধ্যে বিভিন্ন যান্ত্রিক সরঞ্জাম ও প্রযুক্তি ব্যবহার করা হবে। বিএসএফের মহাপরিচালক আরও জানিয়েছেন, কাঁটাতারের বেড়ায়  লাগানো সিসিটিভি ক্যামেরা থেকে ফিড (ভিডিও) সরাসরি চলে যাবে বর্ডার আউটপোস্টে। সেখানে মনিটর থাকবে। তাতে সব উঠবে। মনিটরের মাধ্যমে সর্বক্ষণ নজরদারি চালানো হবে। অর্থাৎ, জওয়ানদের আর বেশি বাইরে পাহারা দিতে হবে না। আবার, নিরাপত্তাও বিঘিœত হবে না। শর্মা জানান, কোনও অনুপ্রবেশের চেষ্টা হলেই, সঙ্গে সঙ্গে বিশেষ সফটওয়্যারের মাধ্যমে সেই সঙ্কেত মনিটারে পৌঁছে যাবে। বাংলাদেশের পাশাপাশি পাকিস্তান সীমান্তেও অনুরূপ সুরক্ষা ব্যবস্থা চালু করা হচ্ছে। এই ব্যবস্থায় অনুপ্রবেশের সময় কাঁটাতারের সঙ্গে সংস্পর্শে এলেই অ্যালার্ম বেজে উঠবে। সিস্টেম জানিয়ে দেবে, ঠিক কোথায় অনুপ্রবেশের চেষ্টা চালানো হয়েছে। নিকটবর্তী পোস্ট থেকে বাহিনী পাঠিয়ে তাৎক্ষনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে। জানা গিয়েছে, ইতিমধ্যেই জম্মুতে ৫ কিলোমিটার দীর্ঘ করে দুটি জায়গায় এই নতুন ব্যবস্থার কার্যকারিতা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। কিছুদিনের মধ্যে পূর্ব সীমান্তের ত্রিপুরা, আসাম ও পশ্চিমবঙ্গে এই বিশেষ সিস্টেম বসানো হবে।  আগামী কয়েক বছরের মধ্যেই বাংলাদেশ ও পাকিস্তান সীমান্তে কাঁটাতারের বেড়া দেবার কাজ সম্পূর্ণ করার জন্য ভারত সরকার বিশেষ উদ্যোগ গ্রহন করেছে। পাশাপাশি সীমান্তের নিরাপত্তা জোরদার করতে একটি বিশেষ প্রকল্প হাতে নিয়েছে বিএসএফ। এই প্রকল্পের নাম দেওয়া হয়েছে কম্প্রিহেনসিভ ইন্টিগ্রেটেড বর্ডার ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম।


 
এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

Imon Hussain

২০১৭-০৯-০৬ ০৫:৩৭:৩২

When it was a matter of Bangladeshi Hindu minorities, Modi government showed lot of compassion and offered several benefits towards them including issuance of multiple visa for the Bangladeshi Hindus. Some ministers of Modi government even proposed to give them citizenship of India. But when it comes to the Muslim Rohingya minority of Myanmar, Modi government is getting impatient and trying to push them back to their country where they are getting slaughtered mercilessly by the Myanmar government forces. Mr. Narendra Modi must not forget how in 1971 Indira Gandhi handled the situation by welcoming millions of Bangladeshi refugees who fled the country due to brutal aggression by the then Pakistani regime. India, not only gave shelters to the Bangladeshi refugees but also helped them to fight back against the genocide and ultimately helped Bangladesh to liberate the country from Pakistan. No matter what political motive the Indira government had at that time but the fact remains that India won the hearts of millions at that time with their good gesture. Same gesture is expected from both Modi and Hasina towards the Rohingya minorities during the worst time of their lives and they can jointly create a strong international forum to force Myanmar to stop this atrocities.

ওবাইদুল ইসলাম

২০১৭-০৯-০১ ০২:৪৩:৪৯

দুর্বল প্রতিরক্ষা বাহিনীর জন্য বাংলাদেশ প্রতিবেশী দেশগুলির অন্যায় আগ্রাসন থেকে নিজেদের রক্ষা করতে পারছে না । অত্যাধুনিক সরঞ্জাম ও কঠোর প্রশিক্ষনের মাধ্যমে শক্তিশালী প্রতিওক্ষা বাহিনী গড়ে তোলার সাথে সাথে গণতন্ত্রকেও এগিয়ে নিতে হবে । শক্তিশালী গণতন্ত্র নিজেই একটি প্রতিরক্ষা কবজ । প্রয়োজনীয় অস্ত্র নিজ দেশে তৈরি করার যোগ্যতাও শক্তিশালী প্রতিরক্ষা বাহিনীর অন্যতম শর্ত ।

আপনার মতামত দিন

‘প্রধানমন্ত্রীর উপর হামলা চেষ্টার খবর ভিত্তিহীন’

‘প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার চক্রান্তের খবর সম্পূর্ণ ভূয়া’

‘জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার চক্রান্ত’

বান্দরবানের রোহিঙ্গারা কোন মনোযোগই পাচ্ছেন না

টেকনাফে চার লাখ ৯৫ হাজার পিস ইয়াবাসহ দুই রোহিঙ্গা আটক

যুবলীগ নেতাকে অস্ত্রের মুখে অপহরণ

ধুমপানে বাধা দেয়ায় দোকানিকে সিগারেটের ছ্যাঁকা

পারমাণবিক যুদ্ধের হিম আতঙ্ক

লেবার নেতা হিসেবে সাদিক খানকে দেখতে চান বৃটিশ ভোটাররা

রোহিঙ্গাদের সমর্থনে বোস্টনে প্রতিবাদ বিক্ষোভ

কর্ণফুলীতে বিএনপির তিন প্রার্থীর নির্বাচন বর্জন

মনিপুর থেকে ১০৭ ‘বাংলাদেশী’ পুশব্যাক

পূর্ব লন্ডনে এসিড হামলায় আহত ৬

সাদুল্যাপুরে ১১২ মেট্রিক টন চাল জব্দ, গুদাম সিলগালা

রোহিঙ্গা ইস্যুতে এবার বিমসটেকেও ছায়া পড়েছে

রাজধানীতে আগুনে পুড়ে নিহত ১