দার্জিলিং পরিস্থিতি নিয়ে সরকারের সঙ্গে আলোচনা ইতিবাচক

ভারত

কলকাতা প্রতিনিধি | ২৯ আগস্ট ২০১৭, মঙ্গলবার
দার্জিলিং পাহাড়ে স্বাভাবিক অবস্থা ফিরিয়ে আনতে পাহাড়ের বিভিন্ন দলের প্রতিনিধিদের সঙ্গে ইতিবাচক আলোচনা হয়েছে বলে জানিয়েছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার। মঙ্গলবার নবান্নে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, পাহাড়ে শান্তি ফেরাতে সবদলই সহমত হয়েছে। পাহাড়ে যে অনির্দ্দিষ্টকালের বনধ চলছে তা তুলে নেবারও অনুরোধ করা হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন, এতদিন পরে আলোচনা শুরু হয়েছে। আলোচনার মাধ্যমেই সমস্যার সমাধান হবে। আবার বৈঠক হবে। সেই বৈঠকটি হবে ১২ই সেপ্টেম্বর উত্তরবঙ্গের সচিবালয় উত্তরকন্যায়। মুখ্যমন্ত্রী পাহাড়ের দলগুলিকে দাজিংলিংয়ের পরিস্থিতি স্বাভাবিক করার লক্ষ্যে এদিন বৈঠকে ডেকেছিলেন। এই বৈঠকে গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার প্রধান বিমল গুরুঙ যোগ না দিলেও মোর্চার ৫ প্রতিনিধি এবং গোর্খা ন্যাশানালিস্ট লিবারেশন ফ্রন্ট, অখিল ভারতীয় গোর্খা লীগ ও জনআন্দোলন পার্টির নেতারা যোগ দিয়েছিলেন। বৈঠকের শুরুতেই গোর্খা নেতাদের পক্ষ থেকে আলাদা গোর্খা রাজ্যের দাবি নিয়ে আলোচনার দাবি জানান। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী এ বিষয়ে আলোচনা করতে অপারগতা জানান। তবে বৈঠকে মোর্চার চীফ কোঅর্ডিনেটর বিনয় তামাঙ বলেছেন, পাহাড়ে শান্তি ফেরা জরুরি। তিনি পাহাড়ে সাম্প্রতিক সময়ে যে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে তার নিন্দা করেছেন। সেইসঙ্গে তিনি মোর্চা সমর্থকদের মৃত্যুর সিবিআই তদন্তের পাশাপাশি বিচারবিভাগীয় তদন্তের দাবি জানিয়েছেন। জানা গেছে, পাহাড়ের দলগুলি ফিরে গিয়ে আলোচনা করে বনধ প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নেবে । 
দার্জিলিং পাহাড়ে গত ৭৮ দিন ধরে টানা বনধ চলছে। স্কুল কলেজ, বাজার হাট, কল কারখানা সবই বন্ধ। বন্ধ দার্জিলিংয়ের সুখ্যাতি যে চা নিয়ে সেই চা বাগানের উৎপাদনও। খাদ্য ও নিত্য প্রযোজনীয় জিনিসের অভাবে পাহাড়ের জনজীবন এক রকম বিপর্যস্ত। 
এই পরিস্থিতিতে গোর্খা ন্যাশানালিস্ট লিবারেশন ফ্রন্টের প্রধান মন ঘিসিঙ প্রথম মুখ্যমন্ত্রীকে দার্জিলিংয়ের অচলাবস্থার অবসানের অনুরোধ জানিয়ে চিঠি লিখেছিলেন। সেই চিঠির পরিপ্রেক্ষিতে গত ২২আগষ্ট মুখ্যমন্ত্রী বৈঠকের কথা ঘোষনা করেছিলেন। তিনি পাহাড়ের সব দলকে এই বৈঠকে যোগ দেবার আহ্বানও জানান। এর পরেই গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার পক্ষে চিফ কোঅর্ডিনেটর বিনয তামাংও মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি লিখে আলোচনায় বসার আগ্রহ প্রকাশ করেছিলেন। এদিনের বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন, বৈঠক হওয়ার অর্থই আলোচনার পথ খুলেছে। আর সব দলই শান্তি ফেরাতে চায়। 
এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন