মিয়ানমারের রাখাইন অভিযানে অকুণ্ঠ সমর্থন চীনের

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৭, মঙ্গলবার | সর্বশেষ আপডেট: ৩:৩৮
দ্ব্যর্থহীন কণ্ঠে মিয়ানমারকে সমর্থন দেয়ার কথা ব্যক্ত করেছে চীন। শুধু তা-ই নয়, তারা মিয়ানমারের এই ‘কর্মযজ্ঞে’ সমর্থন দিতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে। তারা বলেছে, রোহিঙ্গা মুসলিম সঙ্কট নিয়ে মিয়ানমার যে ‘সেফগার্ড স্ট্যাবিলিটি’ বা স্থিতিশীলতা রক্ষার প্রচেষ্টা চালাচ্ছে তাতে সমর্থন রয়েছে চীনের। লন্ডনের অনলাইন দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্ট ব্রেকিং নিউজ হিসেবে এ খবর দিয়েছে। এতে বলা হয় চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র জেং শুয়াং বলেছেন, রাখাইন রাজ্যে সহিংসতার নিন্দা জানিয়েছে চীন। তিনি বলেছেন, রাখাইন রাজ্যে মিয়ানমার সরকার শান্তি ও স্থিতিশীলতা সমুন্নত রাখতে যে প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে তাতে আমাদের সমর্থন রয়েছে। আমরা আশা করি, যত দ্রুত সম্ভব সেখানে শৃংখলা ও স্বাভাবিক জীবনযাত্রা ফিরে আসবে। তিনি আরো বলেন, জাতীয় উন্নয়নের জন্য মিয়ানমার তার স্থিতিশীলতার সুরক্ষা নিয়ে কাজ করছে। এ জন্যই তাদের প্রচেষ্ঠা। মিয়ানমারের এই প্রচেষ্টায় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সমর্থন থাকা উচিত বলে আমরা মনে করি। উল্লেখ্য, মিয়ানমারের রাখাইনে সহিংসতার কারণে কমপক্ষে ৩ লাখ ১৩ হাজার রোহিঙ্গা মুসলিম পালিয়ে বাংলাদেশে ঠাঁই নিয়েছে। এ ঘটনায় মিয়ানমারের ওপর আন্তর্জাতিক চাপ বাড়ছেই। জাতিসংঘ, যুক্তরাষ্ট্র, বৃটেন সহ বিভিন্ন দেশ ও সংস্থা অং সান সুচির নেতৃত্বাধীন সরকারের নিন্দা জানিয়েছে। সুচির প্রতি সহিংসতার নিন্দা জানাতে বলা হয়েছে। কিন্তু সুচি বলছেন, তারা ‘টেরোরিস্ট’দের বিরুদ্ধে অভিযান চালাচ্ছেন। এতে গণহারে মানুষ মারা হচ্ছে। জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক প্রধান জায়েদ রাদ আল হোসেন এই হত্যাকা-কে জাতি নিধন হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন। আগামীকাল জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদ জরুরি ভিত্তিতে বিশেষ বৈঠকে বসছে। খবর ছড়িয়ে পড়েছে, ওই বৈঠকে বাধা দেয়ার চেষ্টা করছে চীন। আর মিয়ানমারকে চলমান সহিংসতায় সমর্থন প্রকাশের ব্রেকিং রিপোর্ট ইন্ডিপেন্ডেন্ট প্রকাশ করলো সেই বৈঠককে সামনে রেখেই।
এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

মোঃ কবির হোসেন

২০১৭-০৯-১২ ১১:৩২:৪৮

বিবেক হিন মানুষ পশুর সমান আর ওরা অমুসলিম আর অমুসলিম মানে অমানুষ ওদের কোন ধর্ম নাই ওরা মানুষ খেকো জানোয়ার ওরা খুনি ওরা পশু।

রুহুল আমীন

২০১৭-০৯-১২ ০৮:৫৭:৫০

চীনকে ছি! ছি!

Ruhul Amin Jakkar

২০১৭-০৯-১২ ০৮:২৭:১৮

অন্যায় যে করে আর অন্যায় যে সহে, তব ঘৃণা তারে যেন তৃণ সম দহে। কবির এ মূল্যবান বাণীকে কার্যকর করতে চীনের এ গণহত্যার সমর্থনকে বিশ্ববাসি ঘৃণাভরে প্রত্যাখান করছে।

Jahangir Alam

২০১৭-০৯-১২ ০৫:১৫:১৪

চীন নিজেই উরুগুই মুসলিমদের দীর্গ দিন জিম্মি ও হত্যা করে চলেছে |

হাফিজ জামিল

২০১৭-০৯-১২ ০৩:৫৪:৩৫

যার ভিতরে মানবতা নাই সে কখনো মানুষ হতে পারেনা চিনের মানবতা বিরীধী সমর্তন কে ঘৃনা জানাই ।

আপনার মতামত দিন