স্বামী-মেয়েকে হারিয়ে নির্বাক আনজুম আরা

বাংলারজমিন

টেকনাফ (কক্সবাজার) প্রতিনিধি | ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭, বুধবার
রাখাইন রাজ্যের মংডু শহরের নিকটে ৫নং ওয়ার্ডের পশ্চিমপাড়ার বাসিন্দা আনজুম আরা বেগম (২৩)। গত সোমবার দুই সন্তান আবদুল হাফেজ (৪), নুর হাফেজ (৬) ও এক ভাগ্নি নুর বিবি (১৩)কে নিয়ে হাজার হাজার রোহিঙ্গাদের সঙ্গে শাহপরীরদ্বীপ সীমান্ত দিয়ে এপারে ঢুকে। টাকা পয়সা না থাকায় ঘাট মাঝিদের দিতে হয়েছে আধা ভরি স্বর্ণ। তাদের সঙ্গে নেই কোনো পুরুষ অভিভাবক। অনেক আগেই মা-বাবার মৃত্যু হয়েছে। ভাই-বোন থাকলেও পালানোর সময় কে কোথায় গিয়েছে খবর নেই।
একমাত্র স্বামী মির আহমদ (৩১) পালানো সময় বিজিপির গুলিতে আহত হয়েছে। ওই অবস্থায় তাকে ধরে নিয়ে যায় বিজিপি। এ সময় ৭ বছরের মেয়ে রুশমিকাকে খুঁজে পায়নি। ঘর জ্বালিয়ে দিয়েছে সেনা ও বর্মী মগ। কিছুই বের করতে পারেনি। তার সামনে জ্বলন্ত আগুনে নিক্ষেপ করেছে ছোট্ট শিশুদের। পুরুষদের গুলি করে হত্যা করেছে। সেই বিভীষিকাময় পরিস্থিতি থেকে কোনোরকমে খালি হাতে পালিয়ে আসতে সক্ষম হয়েছে আনজু। একসঙ্গে স্বামী ও মেয়েকে হারিয়ে নির্বাক আনজুম আরা। কেঁদে কেঁদে চোখের পানি শুকিয়েছে। ১৮ দিন যাবৎ ছেলেদেরসহ তার ভাগ্নিকে নিয়ে পার্শ্ববর্তী মন্দিরপাড়া, সুধাপাড়া, সোনাপাড়া ও লামারপাড়া গ্রামসহ এ গ্রাম থেকে অন্য গ্রামে আশ্রয় নিয়ে রাত কাটান। এ সময় অর্ধাহারে অনাহারেও থাকতে হয়েছে তাদের। এ সময় খোঁজ নিতে থাকে মেয়ে ও স্বামীর। কিন্তু পায়নি। নিরুপায় হয়ে সোমবার রাতে এলাকার কয়েকটি রোহিঙ্গা পরিবারের সঙ্গে তিনিও শাহপরীরদ্বীপ সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে ঢুকে সকালে টেকনাফ বাসস্ট্যান্ডে অন্যান্য রোহিঙ্গা পরিবারের সঙ্গে চলে আসেন। আনজুম আরা আরো জানান, আগের দিন থেকে কিছু খাননি। ছেলেদেরসহ তিনিও অভুক্ত। ক্ষুদায় কাতরাচ্ছে শিশু ছেলেরা। সেও অভুক্ত থেকে প্রায় হাড্ডিসার। ছেলেদের সান্ত্বনা দেয়ার মতো ভাষা তার আর জানা নেই। এরই মধ্যে একজন ত্রাণদাতা কলা নিয়ে এলে চারজনের জন্য দু’টি কলা নিতে সক্ষম হয়েছে। এছাড়া অপর এক ত্রাণদাতার কাছ থেকে পেয়েছে ২শ’ টাকা।  
এখন কোথায় যাবে, কি করবে তার জানা নেই। শুনেছে এপারে তার ছোট এক চাচাত ভাই রয়েছে। তার নাম্বার সংগ্রহ করে সকাল থেকে যোগাযোগ করছে। কিন্তু আসবে বলেও আসছে না। চাচাতো ভাইয়ে অপেক্ষায় আনজুম আরা অসহায়ভাবে ছেলেদের নিয়ে বসে রয়েছেন স্টেশনের আবুছিদ্দিক মার্কেট চত্বরে হাজারো রোহিঙ্গাদের সঙ্গে।
 

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

ঢাকা ওয়াসাকে ১৩টি খাল উদ্ধারের নির্দেশ

এসডিজি অর্জন করতে হলে প্রতিবছর ৩০ শতাংশ নতুন বিদ্যুৎ সংযোগ বাড়াতে হবে

‘অনুপ্রবেশকারীদের ৫০০০ পাওয়ারের বাতি জ্বালিয়েও খুঁজে পাওয়া যাবে না’

‘ক্ষমতা থাকলে সরকারকে টেনে-হিচড়ে নামান’

আগামীকাল আদালতে যাবেন খালেদা জিয়া

‘সেনা মোতায়েনের প্রয়োজন নেই’

‘তদন্তের স্বার্থেই তনুর পরিবারকে ডাকা হয়েছে’

জিম্বাবুয়ের নতুন প্রেসিডেন্ট হচ্ছেন ‘কুমির মানুষ’

আশ্রয়শিবিরে সংক্রমণযুক্ত পানির বিষয়ে ইউনিসেফের সতর্কতা

চীন, উত্তর কোরিয়ার ১৩ প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের অবরোধ

রোহিঙ্গা সঙ্কট: উচ্চ আশা নিয়ে বাংলাদেশ-মিয়ানমার বৈঠক শুরু

ঘোড়ামারা আজিজসহ ছয় জনের মৃত্যুদণ্ড

নিবিড় পর্যবেক্ষণে মহিউদ্দিন চৌধুরী

আফ্রিকার স্বৈরাচারদের মেরুদণ্ডে শিহরণ

রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে চীনের প্রস্তাব, যা বললেন মুখপাত্র...

দুদকের মামলা থেকে অব্যাহতি পেলেন মেয়র সাক্কু