বিস্ময়কর প্রাণি এক!

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭, বৃহস্পতিবার | সর্বশেষ আপডেট: ৫:৩১
ঘূর্ণিঝড় হার্ভে যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাস ও আশপাশের এলাকায় শুধু মানুষকেই বাস্তুচ্যুত করে নি, একই সঙ্গে সামুদ্রিক প্রাণিদেরও বাস্তুচ্যুত করেছে। তারই প্রমাণ মিলেছে টেক্সাস সিটি বিচে। সেখানে ঘূর্ণিঝড় হার্ভের পর পাওয়া গেছে রহস্যময় একটি বিশাল প্রাণি। এটি না কোনো মাছ, না কোনো তিমি প্রজাতির। এর পরিচয় কেউ দিতে পারছেন না। প্রাণিটির কোনো চোখ নেই। কিন্তু আছে ব্লেডের মতো তীক্ষè ধারযুক্ত দাঁত। শরীরের গঠন সিলিন্ডারের মতো। গত সপ্তাহে ন্যাশনাল অডোবন সোসাইটির প্রীতি দেশাই সৈকতে এটিকে দেখতে পান মৃত অবস্থায়। তিনি বলেন, হঠাৎ করে গভীর সমুদ্র থেকে আমার চোখে পড়ে কিছু একটা। প্রথমে দূর থেকে দেখে মনে করেছিলাম এটা বাইম মাছ জাতীয় কিছু। কিন্তু যতই কাছে যেতে থাকি ততই অচেনা হয়ে ওঠে প্রাণিটি। বিশেষ করে তার মুখ যেমন, এমনটা আমি এর আগে কখনো দেখি নি। আমি এটাকে কিছুক্ষণ এদিক ওদিক থেকে দেখলাম। কিন্তু চিনতে পালাম না। তারপর এটাকে উল্টে দিলাম। কিন্তু না। এর সম্পর্কে আমার মাথায় কোনো আইডিয়াই কাজ করলো না। তাই প্রীতি দেশাই ওই প্রাণিটির ছবি পোস্ট করেছেন টুইটারে এবং জীববিজ্ঞানীদের সহায়তা চেয়েছেন একে সনাক্ত করতে। প্রীতি বলেছেন, এ বিষয়টি টুইটারে তুলে ধরাই যথার্থ হয়েছে। কারণ, টুইটারে থাকেন বহু বিজ্ঞানী, গবেষক। তাদের কেউ কেউ এ বিষয়ে আগ্রহী হবেন এবং প্রাণিটি সনাক্ত করবেন বলে আমার আশা। এরই মধ্যে প্রীতি দেশাইয়ের পোস্টে সাড়া দিয়েছেন কিছু জীববিজ্ঞানী। তারা বলেছেন, তাদের বিশ্বাস সামুদ্রিক এই প্রাণিটি বাইম মাছেরই কোনো একটি প্রজাতি হতে পারে। তবে তারা শতভাগ নিশ্চয়তা দিতে পারেন নি। প্রীতি বলেন, এমন কথা শুনে আমার মাথা ও মননে আঘাত লাগলো। আমি তো বাইম মাছ দেখেছি। আমি তো তার আকৃতি জানি। তবে এ বিষয়ে বেশির ভাগ মানুষ মত দিয়েছেন যে, এটি সাপ জাতীয় বাইম। একে পাওয়া যায় মেক্সিকো উপসাগরে। ৩০ থেকে ৯০ মিটার গভীর পানিতে এর বসবাস। তারা নিজেদের সব সময় লুকিয়ে রাখে। তবে কখনো কখনো তারা অল্প পানিতেও বেরিয়ে আসে। এদের চোখ থাকে। কিন্তু তা খুবই ছোট্ট। প্রীতি দেশাই যখন এ প্রাণিটিকে দেখতে পেয়েছেন ততক্ষণে হয়তো ওই চোখ পচে গলে গেছে। ন্যাচারাল হিস্ট্রির স্মিথসোনিয়ান ন্যাশনাল মিউজিয়ামের ড. কেনেথ টিঘে বিশ্বাস করেন, মৃত এ প্রাণিটি হলো একটি সাপ জাতীয় বাইম। তিনি বলেন, এটা বাইমেরই অন্য কোনো পরিবারভুক্ত হতে পারে।
এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন