বিস্ময়কর উত্থান ঘটলেও জার্মানিতে এএফডি’র নেতা কে!

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৭, মঙ্গলবার | সর্বশেষ আপডেট: ৮:৫৮
সংবাদ সম্মেলন ছাড়ছেন পেট্রি
পার্লামেন্ট নির্বাচনে বিস্ময়কর উত্থান ঘটলেও জার্মানিতে গভীরভাবে বিভক্ত হয়ে পড়েছে উগ্র ডানপন্থি, কঠোর ইসলাম ও অভিবাসন বিরোধী দল অলটারনেটিভ ফর জার্মানি (এএফডি)। রোববারের নির্বাচনে তারা প্রথমবারের মতো জার্মান পার্লামেন্ট বুন্দেসটাগে প্রবেশের টিকেট হাতে পেয়েছে। সেই বিজয় উদযাপন করতে গিয়েই যেনো বোমার বিস্ফোরণ ঘটালেন দলের নেত্রী, দলের সহপ্রতিষ্ঠাতা ফ্রাউক পেট্রি। তিনি সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, পার্লামেন্টে অধিকতর কট্টর যেসব নেতাকর্মী রয়েছেন তাদের সঙ্গে তিনি বসবেন না। অর্থাৎ তাদের থেকে দূরত্ব বজায় রাখবেন তিনি। দলের বিজয়ের পর প্রথম দলীয় সংবাদ সম্মেলনে তিনি এমন ঘোষণা দিয়েছেন।
এতে চমক দেখানো এই দলটির ভিতরে শুরুতেই দেখা দিয়েছে গভীর বিভক্তি। ফলে প্রশ্ন দেখা দিয়েছেÑ এএফডি’র নেতা কে এখন! কে এই বিভক্তি সামাল দেবেন! এ খবর দিয়েছে অনলাইন ফিনান্সিয়াল টাইমস। এতে জার্মানির রাজধানী বালিন থেকে সাংবাদিক গাই চাজান লিখেছেন, জার্মান পার্লামেন্ট বুন্দেসটাগের নির্বাচনে বিস্ময়কর সফলতা অর্জন করেছে এএফডি। এর একদিন পরেই উগ্র ডানপন্থি এ দলটিতে বিভক্তি দেখা দিয়েছে। এটা ফুটে উঠেছে দলীয় সংবাদ সম্মেলনে। তাতে ফ্রাউক পেট্রি সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, তার দলে অতি মাত্রায় কট্টর সহকর্মী রয়েছেন। তাদের অনেকেই বুন্দেসটাগের টিকেট হাতে পেয়েছেন। কিন্তু এত্ত কট্টর সহকর্মীদের সঙ্গে পার্লামেন্টে একসঙ্গে বসা যায় না। তিনি বসবেন না তাদের পাশে। দলটি উগ্রপন্থি হলেও ফ্রাউক পেট্রিকে দলে দেখা হয় অপেক্ষাকৃত কম উগ্র হিসেবে। তিনি মোটামুটি উদারপন্থি বলেই মনে করছেন অনেকে। দলে কট্টরপন্থিদের সঙ্গে তাই দীর্ঘদিন তার সংঘাত চলছে। এ জন্যই সোমবারের সংবাদ সম্মেলনে তিনি বোমা ছুড়ে মারলেন। উল্লেখ্য, তার দল এএফডি’র বয়স মাত্র চার বছর। এরই মধ্যে ইসলামের বিরোধিতা করে, শরণার্থীদের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে জার্মানির জাতীয়তাবাদীদের কাছে বেশ গ্রহণযোগ্যতা পেয়েছে  তারা। তারই ধারাবাহিকতায় বৃন্দেসটাগের ৯৪টি আসনের টিকেট কেটে ফেলেছে তারা। ভোট পেয়েছে শতকরা ১৩ ভাগ। কিন্তু দলের যখন এমন উত্থান তখন পেট্রির কণ্ঠে এমন হতাশা কেন! অনেক বিশ্লেষক মনে করে, এমন বিভক্তি অপরিহার্য হয়ে উঠেছিল। কারণ, দলের ভিতরে পাওয়ার গেম বা ক্ষমতার লড়াই রয়েছে। দলের উপনেতা ক্রিশ্চিয়ান ডেমোক্রেটের সাবেক নেতা আলেক্সান্দার গাউল্যান্ডের সঙ্গে তার দ্বন্দ্ব চলছিল। তাতে তিনি হেরে যান।এর ফলে তার তো দলই ছেড়ে দেয়ার কথা বলছিলেন কেউ কেউ। রোববার নির্বাচনের দিন সন্ধ্যায় বিতর্ক উসকে দেন গাউল্যান্ড। তিনি বলেন, এএফডি জার্মান চ্যান্সেলর মারকেল অথবা যেই সরে যাবে তার মোকাবিলা করবে। যে পিছুটান দেবে তার মোকাবিলা করবে। তিনি নির্বাচনী প্রচারণার সময় ক্ষোভ ছড়িয়ে দেন। তিনি বলেন, দুটি বিশ্বযুদ্ধে জার্মান সেনারা যে অর্জন করেছেন তার জন্য জার্মানির গর্বিত হওয়া উচিত। এপ্রিলে জার্মানির কলোগনিতে দলের সম্মেলন হয়। সেখানে দলকে উগ্র মৌলবাদী বিরোধিতাকারী অবস্থানের নীতি থেকে বের করে আনার চেষ্টা করেন মিসেস পেট্রি। তিনি দলকে অধিকতর বাস্তবতার দিকে নিয়ে আসার চেষ্টা করেন। তিনি চাইছিলেন এএফডি’তে উগ্র ডানপন্থি অবস্থানের সঙ্গে দূরত্ব সৃষ্টি করাতে। অর্থাৎ তার দলকে উগ্র ডানপন্থি অবস্থান থেকে সরিয়ে আনার চেষ্টা ছিল তার। তিনি তখন যুক্তি দিয়েছিলেন, এটা করা হলে আঞ্চলিক ও জাতীয় পর্যায়ে ভবিষ্যত জোট সরকারে অংশ নিতে পারবে এএফডি। কিন্তু তার এমন দাবি বা প্রস্তাব শুরুতেই কণ্ঠভোটে বাতিল করে দেয়া হয়। সোমবারের সংবাদ সম্মেলনে মিসেস পেট্রি বলেছেন, ২০১৩ সালে এএফডি গঠন করার পর সব সময়ই এর লক্ষ্য ছিল ক্ষমতা বা শাসনে দ্রুততার সঙ্গে ফিরে যাওয়ার শক্তি। কিন্তু সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোকে অনেক নেতা এ দলকে নৈরাজ্যবাদীদের দল হিসেবে দেখানোর চেষ্টা করেছেন। পেট্রি বলেন, এমন ধারায় যে গ্রুপটি দলে রয়েছে তারা হয়তো বিরোধী অবস্থানে সফলতা লাভ করবে। কিন্তু সরকারে একটি বিশ্বাসযোগ্য ভূমিকা রাখতে পারবে না। তিনি বলেন, এ জন্যই তিনি বুন্দেসটাগে এএফডি দলের অংশ না হওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তিনি বলেন, এখন দলের ভিতরকার এসব বিষয় নিয়ে আমাদের খোলামেলা কথা বলা দরকার। আমরা এ বিষয়গুলো এড়িয়ে যেতে পারি না।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

নারী সহশিল্পীর সঙ্গে যৌন সম্পর্কে বাধ্য করা হয় আমাকে

বিবাহ বহির্ভূত যৌন সম্পর্ক নিষিদ্ধ করার আবেদন প্রত্যাখ্যাত ইন্দোনেশিয়ায়

ডাবলিন সিটি কাউন্সিল ফিরিয়ে নিল সু চির খেতাব

‘বুদ্ধিজীবী হত্যায় দণ্ডপ্রাপ্তদের দেশে ফেরানোর কাজ চলছে’

ব্রেক্সিট: পার্লামেন্টে আরেক দফা শোচনীয় পরাজয় তেরেসা মে’র

অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে সাবেক কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

মিয়ানমারে রয়টার্সের দুই সাংবাদিক গ্রেপ্তার, নিঃশর্ত মুক্তি দাবি, যুক্তরাষ্ট্র, ইইউ, সিপিজের উদ্বেগ

বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে খালেদা জিয়ার শ্রদ্ধা

রোহিঙ্গা শিবিরে আগুন, ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি

নিউ জেএমবির প্রতিষ্ঠাতা আটক

বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে প্রেসিডেন্টের শ্রদ্ধা

টিভিতে সাক্ষাৎকার বন্ধ করে রাহুলকে শোকজ

পূর্ব জেরুজালেম ফিলিস্তিনের রাজধানী

শুক্রবার থেকে কলকাতায় শুরু হচ্ছে বাংলাদেশ বিজয় উৎসব

জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদকে মিয়ানমার, বাংলাদেশ সফরের আহ্বান

৪ সাংবাদিকের ওপর হামলার ঘটনায় ভূমিমন্ত্রীপুত্র কারাগারে