মারকেলের নতুন মিশনের কাজ শুরু

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৭, মঙ্গলবার | সর্বশেষ আপডেট: ৬:১৬
বিজয় নিশ্চিত করেই জোট সরকার গঠনের কাজ শুরু করে দিয়েছেন জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মারকেল। রোববারের নির্বাচনে তিনি টানা চতুর্থবার নির্বাচিত হন এবং নিজের দল ক্রিশ্চিয়ান ডেমোক্রেটিক পার্টিকে বিজয়ী করেন। আগের চেয়ে কিছু পয়েন্ট কমে তার দল বিজয়ী হলেও নিজেদের শক্তি ধরে রেখেছে। ইউরোপের সবচেয়ে শক্তিশালী নেতায় পরিণত হয়েছেন মারকেল। এখন একই সঙ্গে দেশ, ইউরোপকে নেতৃত্ব দেয়ার পালা তার। একই সঙ্গে আন্তর্জাতিক মহলে প্রভাব আরো বিস্তৃত করার সময়।
এ জন্য তিনি যে জোট সরকার গঠনে হাত দিয়েছেন তা শেষ হতে দু’এক মাস সময় লেগে যেতে পারে। মারকেল আভাষ দিয়েছেন, তিনি আগামী বড়দিনের মধ্যেই সরকার গঠন করবেন। এখন সেই সরকার গঠনের জন্য শরীক খুঁজছেন মারকেল। এই মধ্যে তার জোট সরকারের অংশীদার মধ্য-বামপন্থি সোশাল ডেমোক্রেটরা বলে দিয়েছে, তারা জোট সরকারে থাকবে না। তারা অবস্থান নেবে বিরোধী দলে। ফলে মারকেলের রক্ষণীশল অংশীদারদের নিয়েই পরবর্তী সরকার গঠনের সম্ভাবনা বেশি। তবে সরকার গঠনে এএফডির এমপিদের সঙ্গে কাজ করার কথা সেতো ভাবাই যায় না। দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা সোশাল ডেমোক্রেটিকরা সরকারে যোগ দেয়া অস্বীকার করছে। ফলে ‘জ্যামাইকা’ জোট গঠনের সম্ভাবনা প্রবল হয়ে উঠেছে। এটাকে জ্যামাইকা কোয়ালিশন বলা হচ্ছে এ কারণে যে, জ্যামাইকার পতাকার রঙ ও জার্মান রাজনৈতিক দলগুলোর চিরাচরিত রঙের কারণে। এমন জোটে থাকতে পারে এমন সব দল যারা কখনো কেন্দ্রীয় সরকারে ছিল না। এর মধ্যে রয়েছে সিডিইউ/সিএসইউ। এরা কালো রঙকে প্রতীক হিসেবে ব্যবহার করে থাকে। হলুদ রঙ ব্যবহার করে থাকা ব্যবসা-বান্ধব ফ্রি ডেমোক্রেটস (এফডিপি)ও থাকতে পারে। আর থাকতে পারে গ্রিনস। তবে এক্ষেত্রেও জোট গড়তে অনেকটা তেলখড় পোড়াতে হবে মারকেলকে। কারণ, মূল কিছু নীতির সঙ্গে দ্বিমত পোষণ করে গ্রিনস ও এফডিপি দল। মার্টিন শুলজের দল এসপিডি মূল বিরোধী দলে যাওয়ার ঘোষণা দিলেও তা নিয়ে সমালোচনা হচ্ছে। এ দলটি বর্তমান মেয়াদের সরকারের জোটে রয়েছে। কিন্তু শুলজ বলেছেন, তারা আরেক দফা রক্ষণশীলদের জোটে যাবেন না। ফলে এফডিপির নেতা ক্রিশ্চিয়ান লিন্ডার বলেছেন, পার্লামেন্টে তড়িঘড়ি করে বিরোধী দলে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে এসপিডি। এটা কা-জ্ঞানহীনের কাজ।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

কুয়ালালামপুরে গ্রেপ্তার ২ ইমিগ্রেশন কর্মকর্তা

জামিনে আপন জুয়েলার্সের তিন মালিক

নারী সহশিল্পীর সঙ্গে যৌন সম্পর্কে বাধ্য করা হয় আমাকে

বিবাহ বহির্ভূত যৌন সম্পর্ক নিষিদ্ধ করার আবেদন প্রত্যাখ্যাত ইন্দোনেশিয়ায়

ডাবলিন সিটি কাউন্সিল ফিরিয়ে নিল সু চির খেতাব

‘বুদ্ধিজীবী হত্যায় দণ্ডপ্রাপ্তদের দেশে ফেরানোর কাজ চলছে’

ব্রেক্সিট: পার্লামেন্টে আরেক দফা শোচনীয় পরাজয় তেরেসা মে’র

অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে সাবেক কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

মিয়ানমারে রয়টার্সের দুই সাংবাদিক গ্রেপ্তার, নিঃশর্ত মুক্তি দাবি, যুক্তরাষ্ট্র, ইইউ, সিপিজের উদ্বেগ

বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে খালেদা জিয়ার শ্রদ্ধা

রোহিঙ্গা শিবিরে আগুন, ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি

নিউ জেএমবির প্রতিষ্ঠাতা আটক

বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে প্রেসিডেন্টের শ্রদ্ধা

টিভিতে সাক্ষাৎকার বন্ধ করে রাহুলকে শোকজ

জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদকে মিয়ানমার, বাংলাদেশ সফরের আহ্বান

৪ সাংবাদিকের ওপর হামলার ঘটনায় ভূমিমন্ত্রীপুত্র কারাগারে